• ঢাকা
  • শনিবার, ৯ মাঘ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ; ২২ জানুয়ারী, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image

নোয়াখালীতে চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকদের পাল্টাপাল্টি হামলা


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: সোমবার, ১৩ ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ১১:০০ এএম
প্রার্থীর সমর্থকদের পাল্টাপাল্টি হামলা
সমর্থকদের হামলায় ভাংচুর

নোয়াখালী প্রতিনিধি: নোয়াখালীর সদর উপজেলার ৯নং কালাদরাফ ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনকে সামনে রেখে আওয়ামী লীগের প্রার্থী (নৌকা প্রতীক) ও ‘বিদ্রোহী’ প্রার্থীর (মোটর সাইকেল প্রতীক) সমর্থকদের ওপর পাল্টাপাল্টি হামলার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

রোববার (১২ ডিসেম্বর) রাত সাড়ে ৮টার দিকে ওই ইউনিয়নের ৫নম্বর ওয়ার্ডের উত্তর শুল্লুকিয়া হাজী করমুল্ল্যাহ বাজারে এ ঘটনা ঘটে।  

এতে আওয়ামী লীগের প্রার্থীর দুই সমর্থক ও স্বতন্ত্র প্রার্থীর ১ সমর্থক আহত হয়েছেন। আহতরা হলো নুরুল আলম (৫৫) ও সুলতান (৬০) ও গায়ক (৩৯)।   আহতদের স্থানীয়রা উদ্ধার করে ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে।  

নৌকা প্রতীকের চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী মিজানুর রহমান অভিযোগ করেন, গতকাল রোববার রাত সাড়ে ৮টার দিকে মোটর সাইকেল প্রতীকের প্রার্থী নুরুল আমিনের নেতৃত্বে ২০-৩০ আকস্মিক করমুল্ল্যাহ বাজারে তার নির্বাচনী কার্যালয়ে হামলা-ভাঙচুর চালায়। এ সময় কার্যালয়ে বসা দুই সমর্থককে পিটিয়ে আহত করে এবং কার্যালয়ে থাকা চেয়ার, টেবিল ভাঙচুর করে।

মিজানুর রহমান বলেন, এরপর নুরুল আমিন তাদের ৩টি মোটর সাইকেল ভেঙ্গে তাদের কয়েকজন আহত হওয়ার নাটক সাজায়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে।

 স্বতন্ত্র প্রার্থী নুরুল আমিন অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, তার নেতৃত্বে নৌকা প্রতীকের কোন নির্বাচনী কার্যালয় ভাঙচুর করা হয়নি। বরং রোববার রাতে নৌকা প্রতীকের সমর্থকেরাই তার বাড়িতে হামলা চালিয়ে ৩টি মোটর সাইকেল ও তার বসত ঘরের কাচের জানালা ভাঙচুর করে।    

সুধারম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো.সাহেদ উদ্দিন বলেন, নির্বাচনী বিরোধে নৌকা ও স্বতন্ত্র প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে পাল্টাপাল্টি হামলার ঘটনা ঘটেছে। এ সময় নৌকা প্রার্থীর একটি নির্বাচনী কার্যালয়ে ভাঙচুরের ঘটনা ঘটে। অপরদিকে স্বতন্ত্র প্রার্থীর বাড়িতে আওয়ামী লীগের প্রার্থীর সমর্থকরা পাল্টা হামলা চালিয়ে ৩টি মোটর সাইকেল ভাংচুর করে ও ঘরের কাচের জানালা ভাঙচুর করে।  খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।  

সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো.সাহেদ উদ্দিন বলেন, স্বতন্ত্র প্রার্থী নুরুল আমিন গণসংযোগ করে রাস্তায় দিয়ে নিজের নির্বাচনী ক্যাম্পে যাচ্ছিলেন।  ওই সময় বিপরীত দিক থেকে নৌকা প্রতীক দিয়ে তৈরী করা একটি গাড়ি আসছিল।  তখন নৌকা প্রতীকের ওই গাড়িকে স্বতন্ত্র প্রার্থীকে সাইড দিতে বললে নৌকার সমর্থক রিয়াজ স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী নুরুল আমিনের সাথে খারাপ আচরণ করলে এ ঘটনার সূত্রপাত হয়। তবে এ ঘটনায় এখনো কোন পক্ষই থানায় লিখিত অভিযোগ দেয়নি। লিখিত অভিযোগ পেলে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

ঢাকানিউজ২৪.কম / গিয়াস উদ্দিন রনি/কেএন

সারাদেশ বিভাগের জনপ্রিয় সংবাদ

banner image
banner image