• ঢাকা
  • সোমবার, ৪ মাঘ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ; ১৭ জানুয়ারী, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image

এশিয়া কাপ সেমিফাইনালের পথে বাংলাদেশ


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: শনিবার, ২৫ ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ০৭:০৫ পিএম
সেমিফাইনালের পথে বাংলাদেশ
বাংলাদেশ এশিয়া কাপের সেমিফাইনালে পথে

ডেস্ক রিপোর্টার: ভারতে সিরিজ জয়ের পর অনূর্ধ্ব-১৯ এশিয়া কাপে যেন উড়ছে বাংলার যুবারা।

প্রথম ম্যাচে নেপালকে বড় ব্যবধানে হারানোর পর দ্বিতীয় ম্যাচে শনিবার (২৫ ডিসেম্বর) কুয়েতকেও উড়িয়ে দিল রাকিবুল বাহিনী। আর টানা জয়ে টুর্নামেন্টের সেমিফাইনালে এরই মধ্যে এক পা দিয়ে রেখেছে বাংলার দামাল ছেলেরা।


শারজাহ ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টস হেরে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে মাহফিজুল ইসলামের সেঞ্চুরিতে কুয়েতের বিপক্ষে পাহাড়সম সংগ্রহ দাঁড় করায় বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দল। ১০ উইকেট হারিয়ে ২৯১ রান করে রাকিবুল হাসান বাহিনী। তরুণতুর্কি মাহফিজুল একাই করেন ১১২ রান। এমন অনবদ্য ব্যাটিং করার পথে ১২টি চার ও ৪টি ছক্কা হাঁকায় সে।

পাহাড়সম লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে কুয়েতের শুরুটা মোটেও ভালো হয়নি। স্কোরবোর্ডে মাত্র ৫ রান তুলতেই উদ্বোধনী জুটি ভাঙে তাদের। এরপর একে একে উইকেট হারাতে থাকে কুয়েত। দলটিকে ২২২ রানে হারিয়েছে বাংলার যুবারা।

কুয়েতের পক্ষে দলটির অধিনায়ক মিত ভভসার যা একটু প্রতিরোধ গড়ে তোলার চেষ্টা করেন। তিনি ৪৩ রানের লড়াকু ইনিংস খেলেন। তবে আর কেউ ব্যাট হাতে তেমন কিছু করতে পারেনি।

এর আগে প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশের শুরুটাও ভালো ছিল না। মাত্র ৩ রানেই ওপেনার ইফতেখার হোসেনকে হারিয়ে ফেলে বাংলাদেশ। ইফতেখার ফিরে যান ব্যক্তিগত ২ রানে। এরপর আইচ মোল্লাকে নিয়ে ৮৪ রানের জুটি গড়েন মাহফিজুল। আইচ মোল্লা ২০ রান করে শিকার হন আবদুল্লাহ ফারুকের। এরপর মাহফিজুল ও আরিফুল ইসলাম মিলে ৫৩ রান তোলেন।

বাংলাদেশ যখন চতুর্থ উইকেট হারায় তখন স্কোর বোর্ডে রান ১৮৪। মাহফিজুল আউট হন দলীয় ১৯৭ রানে। ১১৯ বলে ১১২ রান করেন তিনি। তার ইনিংসে ছিল ১২টি চার ও ৪টি ছয়ের মার। শেষ দিকে বাংলাদেশের বড় সংগ্রহে আশা দেখাচ্ছিলেন মেহরব। কুয়েতি বোলারদের ওপর ব্যাটিং তাণ্ডব চালাচ্ছিলেন তিনি। কিন্তু ২৪ বলে ১৭৫ স্ট্রাইকরেটে ৪২ রান করার পর আবদুল সাদিকের শিকারে পরিণত হন।

এরপর প্রায় থমকে দাঁড়ায় বাংলাদেশের ইনিংস। ৩০০ আশা করা হলেও শেষ পর্যন্ত আর সেটি হয়নি। বাকিদের মধ্যে তাহজিবুল ইসলাম ২৫, রাকিবুল হাসান ২১, মুশফিক হাসান ১৩, নাইমুর রহমান ১০ ও রিপন মণ্ডল ৮ রান করেন। কুয়েতের হয়ে ৩ উইকেট নেন আবদুল সাদিক। দুটি করে উইকেট পান মোহাম্মদ উমর ও হেনরি থমাস।

এর আগের ম্যাচে নেপালের বিপক্ষে বাংলাদেশের হয়ে সেঞ্চুরি করেছিলেন যুবা টাইগার প্রান্তিক নওরোজ নাবিল। ১১২ বলে ১২৭ রান আসে তার ব্যাট থেকে। নাবিলের ইনিংসে ছিল ১১টি চার ও একটি ছয়ের মার। সে ম্যাচে নেপাল হেরেছিল ১৫৪ রানের বড় ব্যবধানে। নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৪ উইকেট হারিয়ে ২৯৭ রান সংগ্রহ করে রাকিবুল হাসানরা। জবাবে ১৪৩ রানেই গুটিয়ে যায় নেপালের ইনিংস।

ঢাকানিউজ২৪.কম / কেএন

খেলা বিভাগের জনপ্রিয় সংবাদ

banner image
banner image