• ঢাকা
  • বুধবার, ২৬ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ; ০৮ ফেরুয়ারী, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image

কিশোর গ্যাং লিডারের প্রতিহিংসার আগুনে পুড়েছে পোষা কবুতর


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: রবিবার, ০৪ ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ১১:৪৪ এএম
কিশোর গ্যাং লিডারের প্রতিহিংসা
কিশোর গ্যাং লিডার মো. মোবারক

জাফর আলম, কক্সবাজার প্রতিনিধি: কক্সবাজার সদর উপজেলার চৌফলদন্ডী ইউনিয়নের দক্ষিণ পাড়ায় আশরাফ আলী সওদাগর নামের এক ব্যক্তির বাড়ীটি রক্ষা পেলেও পুড়ে ছাই হয়ে গেছে পোষা কবুতর, মালামাল ও কবুতর ঘর। এই অগ্নিসংযোগের ঘটনাটি স্থানীয় এক কিশোর গ্যাং লিডার মো. মোবারক ঘটিয়েছে বলে অভিযোগের তীর তার দিকে। এর আগে ঘরের ভেন্টিলেটর ভেঙ্গে পৌনে দুই লাখ টাকা লুট করেছিল ওই কিশোর গ্যাং লিডার। 

পরে অবশ্য তার বাবা আলম বহদ্দার ও মনছুর মনির পদক্ষেপে টাকাগুলো ফের পায় ভুক্তভোগী আশরাফ আলী সওদাগর।

গত ২৭ নভেম্বর বার ( নভেম্বর ) রাত ৩ টার সময় তার বাড়ীতে এ আগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটে।আশরাফ আলী সওদাগরের বাড়ি চৌফলদন্ডী ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ড দক্ষিণপাড়া গ্রামে। তিনি চৌফলদন্ডী ব্রীজের পাশে একটি কুলিং কর্ণার ব্যবসা করেন। সংগঠিত ঘটনার সময় আশপাশের লোকজনের সহযোগিতায় আগুন নিয়ন্ত্রনে আনে।

ভুক্তভোগী পরিবার ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ২৭ নভেম্বর রাতে বাড়ীর সবাই ঘুমিয়ে পড়ে। রাত ৩ টার দিকে আশরাফ আলী সওদাগরের বসত ঘরে আগুন জ্বলতে দেখে প্রতিবেশিরা এগিয়ে এসে আগুন নেভানোর চেষ্টা করি এবং বাড়ীর লোকজনও ঘর থেকে বেরিয়ে এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনেন। 

দীর্ঘ চেষ্টার পর আগুন নেভাতে সক্ষম হয়, বাড়ীতে বড়ধরনের ক্ষতি থেকে রক্ষা হলেও। এরমধ্যে বসতবাড়ীর লাকড়ী, গাছ ও ঘরের মধ্যে থাকা সব মালামাল পুড়ে যায়। ঘরের সাথে থাকা কবুতরের ঘর ছিল সেটাও পুড়ে যায়। কবুতরের ঘর বন্ধ থাকার কারণে ৫ টি দামী কবুতর পুড়ে মারা গেছে। 

আশরাফ আলী সওদাগর  জানান, ওই দিন রাতে বাড়ীর সবাই ঘুমিয়ে যাই । হঠাৎ আমার প্রতিবেশী আমাকে বলেন যে আমার ঘরে আগুন লেগেছে। আমরা এসে দেখি আমার ঘরের বাহিরে সব মালামাল পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। 

তিনি আরও বলেন, ঘরে সাথে লাগানো কবুতর ঘর, লাকড়ী, বড় ছাতা, কবুতর পুড়ে মারা গেছে । 

এসময় প্রায় দেড় লাখ টাকার মত ক্ষতি হয়েছে । এই অগ্নিসংযোগ পরিকল্পিত দাবী করে আশরাফ আলী সওদাগর আরও বলেন, গত তিনমাস আগে আমার বসতবাড়ীর ভেনটিলেটর ভেঙ্গে আলমিরা থেকে ১ লাখ ৭০ হাজার টাকা লুট করে নিয়ে যায় স্থানীয় কিশোর গ্যাং লিডার মো. মোবারক। তার বাবার হস্তক্ষেপে টাকাগুলো উদ্ধার হয়েছিল। এঘটনার পর থেকে ক্ষুদ্ধ থাকেন মোবারক। 

লুন্ঠিত টাকা উদ্ধার পরবর্তী ঘটনা প্রবাহের প্রতিশোধ পরায়ন হয়ে এই অগ্নিসংযোগের ঘটনাটি সে করেছে বলে আশংকা রয়েছে । 

আশরাফ আলী সওদাগর বলেন, ‘ঘটনায় আকস্মিকতায় আমি কিংকর্তব্যবিমূঢ় হয়ে যাই। আমার এতো শখের পালিত কবুতরগুলো চোখের সামনে এক নিমিষেই শেষ হয়ে যাবে, তা ভাবতেও পারিনি। তিনি আরো জানান, তার বেশ কিছু বিদেশি প্রজাতির ও দামি কবুতর ছিলো। এসব কতুতরের দাম অনেক। তার মোট ক্ষতির পরিমাণ ৫০ হাজার টাকার বেশি। এব্যাপারে আশরাফ আলী সওদাগর আইনের আশ্রয় নিচ্ছেন বলে জানান। 

স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগে জানা গেছে, মো. মোবারক। বয়স ১৬ বছর। চৌফলদন্ডী ইউনিয়ন ২ নং ওয়ার্ড দক্ষিণপাড়া এলাকার এক সময়ের পেশাদার চিচকে চোর। এখন কিশোর গ্যাংয়ের লিডার। মোবারক কিশোর গ্যাংয়ে ১০-১৫ জন সদস্য রয়েছে। তার গ্যাংয়ের সদস্যরা মাদক ব্যবসা, চুরি, ছিনতাই, মারামারিসহ বিভিন্ন অপকর্মে জড়িত। 

মোবারকের অপকর্মে দিশেহারা পুরো চৌফলদন্ডীর বাসিন্দারা। মোবারকের বিরুদ্ধে মাদক, চুরি, ছিনতাই, দস্যুতাসহ একাধিক অভিযোগ রয়েছে। চৌফলদন্ডী উপকূলীয় এলাকা ঘিরেই গড়ে উঠেছে মোবারকের অপরাধ সাম্রাজ্য। চৌফলদন্ডী ব্রীজ থেকে শুরু করে নৌঘাট, বেড়িবাঁধসহ আশপাশের এলাকায় অহরহ ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটে। স্থানীয় বাসিন্দাদের দাবি কিশোর গ্যাং লিডার মোবারক ২/৩ বছর ধরে এই এলাকায় শতাধিক ছিনতাই করেছে। 

বেড়িবাঁধ এলাকায় মাদক সেবনে বাধা দেওয়ায় কয়েক যুবককে প্রকাশ্যে পিটিয়ে আহত করে মোবারক ও তার সহযোগীরা। এ সময় ওই যুবকদের ধরে অন্যত্র নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করা হয়। এ ব্যাপারে মোবারকের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি কিশোর গ্যাং কিংবা ছিনতাইয়ে জড়িত নই। কে বলেছে আপনাকে আমার কথা। সবই মিথ্যা।

ঢাকানিউজ২৪.কম / কেএন

অপরাধ বিভাগের জনপ্রিয় সংবাদ

banner image
banner image