• ঢাকা
  • শনিবার, ২২ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ; ০৪ ফেরুয়ারী, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image

 গৌরীপুরে অপহৃত শিশু উদ্ধার, গ্রেপ্তার-৫


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: শুক্রবার, ০৬ জানুয়ারী, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ, ০২:৩৩ পিএম
 গৌরীপুরে অপহৃত শিশু উদ্ধার
গ্রেপ্তার-৫

শফিকুল ইসলাম মিন্টু, গৌরীপুর প্রতিনিধি, ময়মনসিংহ : ময়মনসিংহের গৌরীপুর থেকে অপহৃত শিশু শারমিন আক্তার তন্নী (৫) কে অপহরণের একদিন পর উদ্ধার করেছে গৌরীপুর থানার পুলিশ। বুধবার (৪ জানুয়ারি) দিবাগত রাতে নেত্রকোণা জেলার উপজেলার রাজুর বাজার এলাকা থেকে অভিযান চালিয়ে অপহৃত শিশুটিকে উদ্ধার এবং ঘটনায় জড়িত অপহরণকারী পাঁচ যুবককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

এ ঘটনায় অপহৃত তন্নীর বাবা নুরুল হক বাদী হয়ে গৌরীপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। এ মামলার গ্রেপ্তারকৃত আসামীদের ৭ দিনের রিমান্ড মঞ্জুরের আবেদন করা হয়েছে বলে জানান গৌরীপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি)। 

অপহৃত শিশু শারমিন আক্তার তন্নী এ উপজেলার মইলাকান্দা ইউনিয়নের টিকুরী গ্রামের নুরুল হকের মেয়ে। মঙ্গলবার রাত ৮টার দিকে পাশ্ববর্তী অচিন্তপুর ইউনিয়নের ষৌলপাই গ্রামের স্থানীয় একটি ধর্মীয় ওয়াজ মাহফিল থেকে শিশুটিকে অপহরণেরর পর ১০ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করেছিল অপরহরণকারীরা।

এ ঘটনায় জড়িত গ্রেপ্তারকৃত অপহরণকারীরা হলো উপজেলার ক্ষুদ্র কালিহর গ্রামের নজরুল ইসলামের ছেলে সিরাজুল ইসলাম বাবু (২৩), দুলাল মিয়ার ছেলে মোঃ মোস্তাকিম (২৬), চাঁন মিয়ার ছেলে এখলাছ মিয়া (১৯), টিকুরী গ্রামের আবুল কালামের ছেলে কামরুল ইসলাম (২২) ও কোণাপাড়া গ্রামের আবুল হাসেমের ছেলে জসিম উদ্দিন (২১)। বিষয়টি সাংবাদিকদের নিশ্চিত করেন গৌরীপুর থানার ওসি তদন্ত মনিরুজ্জামান মজুমদার।

গৌরীপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মাহমুদুল হাসান জানান- অপহরণের দিন রাতে তন্নী তার ফুফাতো বোন তানজিনা আক্তারের (৭) সঙ্গে ষৌলপাই গ্রামে স্থানীয় আল হেলাল জামে মসজিদ প্রাঙ্গনে ওয়াজ মাহফিলে যায়। সেখানে অবস্থানকালে রাত ৮ টার দিকে দুই অজ্ঞাত যুবক মোটর সাইকেলযোগে এসে তাদেরকে বলে, তন্নীকে নিয়ে যেতে তার বাবা তাদেরকে পাঠিয়েছেন। তন্নী তখন দুই যুবকের কথায় বিশ^াস করে তাদের মোটরসাইকেলে চড়ে চলে যায়। এদিকে তন্নীর সঙ্গে থাকা ফুফাতো বোন তানজিলা বাড়িতে এসে তন্নীর মা আকলিমা আক্তারকে ঘটনাটি জানালে তাৎক্ষণিক বিভিন্ন স্থানে খোঁজাখুঁজি শুরু করেন তারা। এরপর এদিন রাত সাড়ে ৯ টার দিকে তন্নীর বাবার মোবাইল নম্বরে কল করে তন্নীকে অপহরণ করা হয়েছে বলে জানায় অপহরণকারীরা। এসময় মুক্তিপণ হিসেবে তন্নীর বাবাকে ১০ লাখ টাকা সংগ্রহ করতে বলা হয়। পরদিন বুধবার সকালে অপহরণকারীরা একই নম্বর থেকে কল করে টাকা সংগ্রহ হয়েছে কিনা জানতে চায় এবং টাকা না পেলে তার মেয়েকে মেরে ফেলা হবে বলে হুমকী প্রদান করে।

তিনি আরো বলেন, অপহরণের ঘটনাটি জানার পর গৌরীপুর থানার পুলিশ মোবাইল টেকনোলজির মাধ্যমে ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার প্রমাণ পেয়ে বুধবার সিরাজুল ইসলাম বাবু, এখলাছ মিয়া, কামরুল ইসলাম ও জসিম উদ্দিন এই চার যুববকে গ্রেপ্তার করে। পুলিশী হেফাজতে জিজ্ঞাসাবাদে তারা অপহরণের সঙ্গে জড়িত থাকার সত্যতা স্বীকার করে এবং ভিকটিমের অবস্থান নিশ্চিত করে। গ্রেপ্তারকৃত চার যুবকের দেয়া তথ্যমতে ওইদিন দিবাগত রাতে অভিযান চালিয়ে নেত্রকোণা জেলার সদর উপজেলার রাজুর বাজার এলাকায় অভিযান চালিয়ে মোস্তাকিমের এক আত্মীয়ের বাসা থেকে অপহৃত তন্নীকে উদ্ধার করা হয়। এসময় অপহরণকারী মোস্তাকিমকে গ্রেপ্তার করে। 

এদিকে অপহৃত মেয়েকে ফিরে পেয়ে পুলিশের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন তন্নীর মা আকলিমা আক্তার।

ঢাকানিউজ২৪.কম / কেএন

অপরাধ বিভাগের জনপ্রিয় সংবাদ

banner image
banner image