• ঢাকা
  • বুধবার, ২ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ; ১৭ জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image
website logo

গমের কাঁচা -পাকা শীষে দোল খাচ্ছে কৃষকের স্বপ্ন


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: সোমবার, ২০ মার্চ, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ, ০৪:৩০ পিএম
দোল খাচ্ছে কৃষকের স্বপ্ন
গমের কাঁচা -পাকা শীষ

মোঃ মশিয়ার রহমান, জলঢাকা (নীলফামারী) প্রতিনিধি: নীলফামারীর জলঢাকায় সবুজ মাঠে গমের কাঁচা-পাকা শীষ বাতাসে দোল খাচ্ছে।

সোনালী রোদে চিকচিক করছে প্রতিটি গমের শীষ। কাঁচা-পাকা শীষের সঙ্গে কৃষকের মনও দোল খাচ্ছে। সবুজ মাঠের দিকে তাকিয়ে কৃষকের মুখে ফুটে উঠেছে হাসি। এ যেন এক অনাবিল তৃপ্তির হাসি।

আগামী ১৫-২৫ দিন পর জমি থেকে চাষিরা গম কাটা শুরু করতে পারবেন। রবি শস্যের মধ্যে অন্যতম একটি লাভজনক ফসল হচ্ছে গম।

বর্তমানে গমের বাজার ভালো থাকায় গম চাষে লাভের আশা করছেন কৃষকরা।জলঢাকায় গত কয়েক বছরের তুলনায় এ বছর গমের ফলন ভালো হয়েছে। গম ক্ষেতে কোন ধরনের রোগ বালাই না হওয়ার কারণে বিঘাপ্রতি আগের তুলনায় ফলন বেড়েছে। 

তবে গম চাষে আগের চেয়ে আগ্রহ কমেছে কৃষকের। উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের তথ্য অনুযায়ী, এবার সদর উপজেলায় ৭০৫ হেক্টর জমিতে গমের আবাদ হয়েছে। এর মধ্যে বারি গম-৩০ ও বারি গম-৩২ উল্লেখ যোগ্য হারে চাষ হয়েছে। উল্লেখ্য যে উপজেলায় এবার যে গম চাষ হয়েছে তার বেশিরভাগই সরকারি প্রণোদনার আওতায় ভুক্ত। 

সরকারিভাবে উপজেলায় প্রদর্শনী ও দেওয়া হয়েছে ১৩ জনের মধ্যে। এদিকে উপজেলায় আবাদের আনুমানিক লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ৩১৭২ মেট্রিক টন। 

এছাড়া রোগ বালাইয়ের তেমন আক্রমণ না থাকায় কৃষকেরা গমের ভালো ফলন পাচ্ছেন। খরচ কম লাভ বেশি হওয়ায় গম চাষাবাদে আগ্রহী হচ্ছেন তারা। তাছারা সরকারি প্রণোদনার আওতায় চলতি মৌসুমে উপজেলা কৃষকদের মধ্যে বিভিন্ন প্রদর্শনীর জন্য সার, বীজ ও কীটনাশক বিনা মূল্যে বিতরণ করা হয়েছে। সরে জমিনে উপজেলার খুটামারা ইউনিয়নের কৃষক বিলাশ চন্দ্র রায় এর সাথে কথা হলে তিনি জানান,গম চাষে খরচ কম এবং ভালো দাম হওয়ায় তিনি ৩৩ শতক জমিতে বারি গম-৩২ চাষ করেছেন। গমের কোন কিছু ফেলতে হয়না। 

গম বিক্রির পর গমের আটি ও বিক্রি করে টাকা পাওয়া যায়। আর প্রতিনিয়ত উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের লোকজন এসে বিভিন্ন পরামর্শ দিচ্ছেন সেই মোতাবেক আমরা গমের পরিচর্যা করছি। আর বর্তমানে গমের ভালো ফলন দেখা যাচ্ছে। আবহাওয়া অনুকুলে থাকলে চলতি বছরে গমমের বাম্পার ফলন হবে।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সুমন আহমেদ এর সাথে দৈনিক  ঢাকা প্রতিদিনকে একান্ত সাক্ষাৎর হলে তিনি জানান,ধানের তুলনায় গম চাষে কম সময় লাগে, লাভ ও বেশ ভালো পাওয়া যায়। আমরা কৃষকদের গম চাষের পরামর্শ ও সহযোগিতা করছি। আশা করছি কৃষকেরা ভালো ফলনের পাশাপাশি ভালো দামে বিক্রি করে লাভবান হতে পারবে। এছাড়া গম চাষে কৃষি অফিসের পক্ষ থেকে সব ধরনের সহায়তা করা হচ্ছে বলে জানান ঐ কর্মকতা।

ঢাকানিউজ২৪.কম / কেএন

আরো পড়ুন

banner image
banner image