• ঢাকা
  • শুক্রবার, ২৭ শ্রাবণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ; ১২ আগষ্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image

গ্রীণ পিট ভাইপার সাপটি লাউয়াছড়ায় জাতীয় উদ্যানে অবমুক্ত 


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: মঙ্গলবার, ২৮ সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ০৪:০৭ পিএম
সাপটির পুরো শরীর গাঢ় সবুজ রঙের আবরণ
গ্রীণ পিট ভাইপার সাপ

মো জহিরুল ইসলাম, মৌলভীবাজার জেলা প্রতিনিধি:  শ্রীমঙ্গলে ভাড়াউড়া চা বাগানের সহকারী বাংলো থেকে উদ্ধার হওয়া বিষধর গ্রীণ পিট ভাইপার সুস্থ্ থাকায় আজ  সুন্দর সাপটি অবমুক্ত করা হয়েছে। 

গত সোমববার ২৭ সেপ্টেম্বর দুপুরে ভাড়াউড়া চা বাগানের সহকারী ব্যবস্থাপকের বাংলোর ফুল বাগানের ফুল গাছে থেকে গ্রীণ  পিট ভাইপার বিষধর  সাপটি বাগানের মালী কাজ করার সময় সাপটি দেখতে পায়।

 বাংলাদেশ বন্যপ্রাণী সেবা ফাউন্ডেশন  পরিচালক স্বপ্ন দেব সজল বলেন, আমরা খবর পেয়ে সাপটিকে উদ্ধার করে নিয়ে  আসি ।

সাপটি লম্বায় তিন ফুট। পুরো শরীর গাঢ় সবুজ রঙের আবরণ । তবে লেজের একদম নিচ দিকে- ছয় ইঞ্চির মতো লালা রঙের। দেখতে খুবই সুন্দর। আমরা প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে তাকে সুস্থ্ করেছি।

উদ্ধার করে আনার পর দেখা যায়  সাপটি নড়াচড়া করতে পারছিল  না।পরে সাপটি বমি করার পর দেখা যায়, সাপটি একটি কাঠ বিড়ালী খেয়েছিলো। বর্তমানে সাপটি সুস্থ  থাকার কারনে আজ দুপুরে লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যানে অবমুক্ত করা হয়েছে।  

এ সময় উপস্থিত ছিলেন এফজি সুব্রত সরকার, তাহজুল ইসলামও বাংলাদেশ বন্যপ্রাণী সেবা ফাউন্ডেশনের পরিচালক স্বপন দেব সজল।

গ্রীণ পিট ভাইপার সম্পর্কে বাংলাদেশ বন বিভাগের বন্যপ্রাণী ও জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণ কর্মকর্তা জোহরা মিলা জানান,  পিট ভাইপার vipreidae গোত্রের বিষাক্ত সাপ। এই গোত্রের আরও দুটি উপগোত্র রয়েছে । ভাইপার গোত্রের সব সাপের চোখ আর নাকের মাঝামাঝি স্থানে একধরনের পিট (Pit) বা গর্ত আছে দেখা যায়। এই পিট মূলত বিশেষ তাপ সংবেদী স্নায়ুতে পরিপূর্ণ যা সেন্সরের কাজ করে। যে সেন্সরে সাপেরা ইনফ্রারেড শনাক্ত করতে পারে। এই পিট সেন্সরের কারণেই সাপটির নাম পিট ভাইপার হয়েছে। এই সাপটি দেশের সিলেট ও চট্টগ্রামের চিরসবুজ বনে দেখা যায়। সুন্দরবনেও এই সাপটি দেখার যায় মাঝে মাঝে। সাপটি সবুজ বোড়া সাপ নামেও পরিচিত। পিট ভাইপারের তিনটি প্রজাতির তিনটিই সবুজ। এরা সাধারণত লম্বায় ২ মিটারের বেশি হয়। সাপটি মূলত নিশাচর, দিনে ঘুমিয়ে বা ঝিমিয়ে কাটিয়ে দেয়। সূর্য ডোবার পর এরা শিকার করতে বের হয়।

এদের খাবারের তালিকা আছে,  সাপটি সাধারণত ব্যাঙ, পাখি, ইঁদুর ইত্যাদি উষ্ণ রক্ত বিশিষ্ট প্রাণী খেয়ে জীবনধারণ করে থাকে। তবে এর প্রধান খাদ্য ইঁদুর। সাধারণত উষ্ণ রক্তের প্রত্যেক জীবিত প্রাণী থেকে ইনফ্রারেড তরঙ্গ নির্গত হয়, ইঁদুরের গা থেকে অনবরত ছড়িয়ে পড়া ইনফ্রারেড তরঙ্গ শনাক্ত করে এই সাপ তাদের পিছু ধাওয়া করে শিকার করে। ।

এই পিট ভাইপার  সাপটি দু চার টি বিষধর সাপের মধ্যে এটি একটি। এরা ডিম পাড়ার বদলে বাচ্চা প্রসব করে

 

ঢাকানিউজ২৪.কম / মো জহিরুল ইসলাম

সারাদেশ বিভাগের জনপ্রিয় সংবাদ

banner image
banner image