• ঢাকা
  • শুক্রবার, ৩ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ; ১৯ জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image
website logo

নারায়ণগঞ্জ প্রধান ডাকঘরে ছেলের বিয়ের অনুষ্ঠান করা পোস্টমাস্টারের বদলি


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: বৃহস্পতিবার, ০৪ জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ০৮:৪৮ পিএম
নারায়ণগঞ্জ, প্রধান ডাকঘরে, ছেলের, বিয়ের, অনুষ্ঠান করা, পোস্টমাস্টারের, বদলি
নারায়ণগঞ্জের প্রধান ডাকঘরের পোস্টমাস্টারের বদলি।

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি : নারায়ণগঞ্জ প্রধান ডাকঘরের পোস্টমাস্টার শাহ আলমকে অবশেষে বদলি করা হয়েছে। তিনি ডাকঘরের ভেতরে নিজের ছেলের বিয়ে ও বৌভাতের অনুষ্ঠান আয়োজন করে ব্যাপক সমালোচনার জন্ম দেন। তাকে ঢাকা জিপিওতে পোস্টমাস্টার (সঞ্চয়) হিসেবে স্থানান্তর করা হয়েছে। তার জায়গায় ডাক অধিদপ্তরের প্রাক্তন শাখা কর্মকর্তা (বেতন ও ভাতা) নাঈমুর রহমানকে পদায়ন করা হয়েছে।

গতকাল বৃহস্পতিবার (০৩ জুলাই) অতিরিক্ত পোস্টমাস্টার জেনারেল খান হাসান মোহাম্মদ ইকবাল মাসুদ স্বাক্ষরিত অফিস আদেশে এই বদলির আদেশ দেয়া হয়। 

আদেশে নাঈমুর রহমানকে নারায়ণগঞ্জ প্রধান ডাকঘরের সহকারী পোস্টমাস্টার শাহ আলমের কাছ থেকে দায়িত্ব বুঝে নেওয়ার নির্দেশনা দেওয়া হলেও, শাহ আলমকে নতুন কর্মস্থলে দায়িত্ব বুঝে নেওয়ার কোন নির্দেশনা দেওয়া হয়নি।

শাহ আলমের কাছে বদলির বিষয়টি জানতে চাওয়া হলে তিনি জানান, “আমি কিছু জানি না। আমার কাছে বদলির কোনো কাগজ আসেনি।” প্রতিবেদকের কাছে আদেশের কাগজ থাকা সত্ত্বেও শাহ আলম বলেন, “আমার কাছে ডাকযোগে আসবে, তাই হয়তো এখনো পাইনি,” বলে ফোনটি কেটে দেন।

প্রসঙ্গত, গত ২৪ মে রাতে শাহ আলম ডাকঘরের ভেতরে নিজের ছেলের বিয়ের অনুষ্ঠান করেন। ২৫ মে পোস্ট অফিস কার্যালয়ের ভেতরেই বৌভাতের আয়োজন করে ব্যাপক সমালোচনা সৃষ্টি করেন। তিনি পোস্ট অফিসের ভেতরে অনুষ্ঠানের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ থেকে মৌখিক অনুমতি নিয়েছিলেন বলে দাবি করেন।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সেই বিয়ের অনুষ্ঠানের ভিডিও ভাইরাল হয়। ভিডিওর কমেন্ট বক্সে চলছে সমালোচনার ঝড়। স্থানীয় জনপ্রতিনিধিসহ অফিসের অন্যান্য কর্মকর্তা ও কর্মচারীও উপস্থিত ছিলেন।

সরকারি প্রতিষ্ঠানকে ব্যক্তিগত কাজে ব্যবহার করা যায় না বলে নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মাহমুদুল হক জানিয়েছেন।

সরেজমিনে দেখা গেছে, ডাকঘর প্রাঙ্গণে সাড়ি সাড়ি চেয়ার বসানো এবং বিভিন্ন রকমের খাবার রান্না করা হচ্ছে। অতিথিদের খাবার পরিবেশনে ব্যস্ত বেয়ারা। ডাকঘরের ভেতরে সাজানো ১২টি ডেকোরেশনের টেবিলে তিন শতাধিক অতিথি দুপুর থেকে বিকাল পর্যন্ত ভোজন করেন।

এ ঘটনায় ডাক অফিসের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের পেশাদারিত্ব নিয়েও প্রশ্ন উঠেছে। তবে পোস্টমাস্টার শাহ আলম কোনো অনুমতিপত্র কিংবা বিল পরিশোধের রশিদ দেখাতে পারেননি। পোস্ট অফিসের অফিসিয়াল কাজকর্ম সম্পন্ন স্থানে মঞ্চ তৈরী এবং প্যান্ডেল দিয়ে ঢেকে রাখার পরিবেশ দেখে হতবাক স্থানীয়রা।

পোস্ট অফিসে কর্মরত কয়েকজন কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানিয়েছেন, ঘটনার পর থেকে পোস্টমাস্টার আমাদের অনেককেই দায়ী করেছেন। ভিডিওতে যাদের দেখা গেছে তাদেরকে পোস্টমাস্টারের রুমে ঢুকতে দেয়া হয়নি।

 

ঢাকানিউজ২৪.কম / জেডএস/বিশ্বজিৎ দাস

আরো পড়ুন

banner image
banner image