• ঢাকা
  • বুধবার, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ; ২৫ মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image

ইউক্রেনে আটকে পড়া নাগরিকদের ফিরিয়ে আনতে ভারতীয় উদ্যোগ


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: বৃহস্পতিবার, ০৩ মার্চ, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ১০:৪৪ এএম
ভারতীয়দের ফিরিয়ে আনতে ফ্লাইট
indian biman

নিউজ ডেস্ক:   ইউক্রেন এবং প্রতিবেশী দেশগুলোতে পাড়ি জমানো ভারতীয় নাগরিকদের ফিরিয়ে আনতে তিন দিনের মধ্যে ২৬টি ফ্লাইট পাঠাচ্ছে ভারত।

ইউক্রেনে আটকে পড়া ভারতীয় নাগরিকদের সরিয়ে নিতে ভারতীয় বিমানবাহিনীর সি-১৭ পরিবহন বিমানকে ‘অপারেশন গঙ্গায়’ যুক্ত করা হয়েছে। রোমানিয়ার উদ্দেশে ইতোমধ্যে যাত্রা করেছে বিমানটি।

মঙ্গলবার ভারতীয় বিমান বাহিনীর (আইএএফ) কর্মকর্তারা জানিয়েছিলেন, ইউক্রেন থেকে ভারতীয় নাগরিকদের ফিরিয়ে আনতে বুধবার ভোর ৪টায় রোমানিয়ার উদ্দেশ্যে রওনা হবে সি-১৭ বিমান। প্রায় ৩০০ জন যাত্রী বহন করার ক্ষমতা সম্পন্ন বিমান সি-১৭ দিল্লির কাছে হিন্দানে তার হোম বেস থেকে যাত্রা শুরু করেছে।

ভারতীয় বিমানবাহিনীকে ইউক্রেনে আটকে পড়া ভারতীয়দের ফিরিয়ে আনতে অপারেশন গঙ্গায় যোগ দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছিলেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী মোদী। এ নিয়ে কথা বলতে গিয়ে ভারতের পররাষ্ট্র সচিব শ্রিংলা বলেছেন, ভারতীয়দের ফিরিয়ে আনতে বুধবার ভোর চারটায় সি-১৭ আইএএফ বিমান রোমানিয়ার উদ্দেশ্যে যাবে।

তিনি আরও বলেন, পরবর্তী তিন দিনের মধ্যে ভারতীয় নাগরিকদের ফিরিয়ে আনার জন্য ২৬টি ফ্লাইট নির্ধারিত হয়েছে। বুখারেস্ট এবং বুদাপেস্ট ছাড়াও পোল্যান্ড এবং স্লোভানিয়ার বিমানবন্দরগুলো ভারতীয়দের ফিরিয়ে আনতে ফ্লাইট পরিচালনার জন্য ব্যবহার করা হবে বলে তিনি জানিয়েছেন।

প্রসঙ্গত, এর আগে শুধু বেসরকারি ভারতীয় ফ্লাইট রোমানিয়া এবং হাঙ্গেরি থেকে ভারতীয়দের ফিরিয়ে নিয়ে এসেছে। ‘অপারেশন গঙ্গা’-এর অধীনে ইউক্রেনের সংঘাতপূর্ণ অঞ্চল থেকে ভারতীয়দের সরিয়ে নেওয়ার জন্য ০৯ টি ফ্লাইট ইতিমধ্যে ইউক্রেনে আটকে থাকা ১০০০ জনেরও বেশি ছাত্রকে ফিরিয়ে এনেছে।

শ্রিংলা বলেন, “সরকার যখন প্রথমে ইউক্রেনের ভারতীয়দের সঙ্গে যোগাযোগ করেছিল, তখন ২০ হাজার ভারতীয় ছাত্র-ছাত্রী ও প্রবাসী ছিল সেখানে। সেই সংখ্যা থেকে আনুমানিক ১২ হাজার ইউক্রেন ছেড়ে চলে এসেছে। অর্থাৎ ইউক্রেনে আমাদের নাগরিকদের মোট সংখ্যার ৬০ শতাংশ ইতোমধ্যে দেশ ছাড়তে পেরেছেন।”

বাকি ৪০ শতাংশের বিষয়ে শ্রিংলা বলেন, “বাকিদের মধ্যে মোটামুটি অর্ধেক খারকিভ ও সুমির মতো সংঘাতপূর্ণ এলাকায় রয়ে গেছে। আর বাকি অর্ধেক হয় পৌঁছে গেছে ইউক্রেনের পশ্চিম সীমান্ত, নতুবা ইউক্রেনের পশ্চিম অংশের দিকে অগ্রসর হচ্ছে। তারা সাধারণত সংঘাতপূর্ণ এলাকার বাইরে রয়েছে বলেই আমরা জানি।”

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় শ্রিংলা রাশিয়া ও ইউক্রেনের রষ্ট্রদূতদের সঙ্গে কথা বলেছেন। তাদের শ্রিংলা জানিয়েছেন, খারকিভ ও অন্য এলাকায় যে ভারতীয়রা আছেন, তারা যাতে নিরাপদে সীমান্তে পৌঁছাতে পারে, সেটা নিশ্চিত করতে হবে। দুই রাষ্ট্রদূতই সাহায্যের আশ্বাস দিয়েছেন। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক

ঢাকানিউজ২৪.কম /

আর্ন্তজাতিক বিভাগের জনপ্রিয় সংবাদ

banner image
banner image