• ঢাকা
  • শনিবার, ১৭ আষাঢ় ১৪২৯ বঙ্গাব্দ; ০২ জুলাই, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image

হত্যাকাণ্ডের পর অস্ত্র আইনের কথা বললেন বাইডেন


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: বুধবার, ২৫ মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ১১:০৬ এএম
অস্ত্র আইনের কথা বললেন বাইডেন
মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: টেক্সাস অঙ্গরাজ্যের একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে বন্দুক হামলায় ১৮ শিশুসহ ২১ জন নিহত হয়েছেন। মর্মান্তিক এ হত্যাকাণ্ডের পর হোয়াইট হাউস থেকে জাতির উদ্দেশে ভাষণ দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন।

আবেগঘন বক্তৃতার শুরুতেই বাইডেন বলেন, ‘আরও একটি গণহত্যা। প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়ার পর আমি আশা করেছিলাম, আমাকে আর এ ধরনের ঘটনার মুখোমুখি হতে হবে না।’

বন্দুক হামলায় শিশু শিক্ষার্থীদের প্রাণহানির প্রসঙ্গ তুলে ১৯৭২ সালে এক সড়ক দুর্ঘটনায় প্রথম স্ত্রী ও শিশুকন্যাকে হারানোর দুঃখের অভিজ্ঞতার কথাও তুলে ধরেন বাইডেন। বলেন, ‘সন্তান হারানো নিজের আত্মার একটি অংশ ছিঁড়ে ফেলার মতো। বুকের ভেতর একটা শূন্যতা ভর করে, যা আপনাকে সারাজীবন তাড়া করে ফিরবে। আপনার জীবন আর কখনোই আগের মতো হবে না।’   

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ান জানায়, টেক্সাসে হামলার প্রেক্ষাপটে কড়া সুরে যুক্তরাষ্ট্রে অস্ত্র আইনের প্রয়োজনীয়তা নিয়েও মন্তব্য করেন বাইডেন। সম্প্রতি বাফলোতেও বন্দুক হামলার কথা উল্লেখ করেন তিনি।  

এ সময় উভয় ঘটনার জন্য দুঃখ প্রকাশ করে মার্কিন প্রেসিডেন্ট বলেন, ঘটনা দুটি আলাদা। তবে টেক্সাস এবং বাফেলো ‍দুই জায়গাতেই ১৮ বছর বয়সী দুই তরুণ হামলা চালিয়েছে। এ সংক্রান্ত আইনের দুর্বলতার কারণেই তারা অস্ত্র কিনতে পেরেছে এবং এ ধরনের জঘন্য অপরাধ ঘটাতে সক্ষম হয়েছে।  

বাইডেন আরও বলেন, ‘আমরা কেন এসবের বিরুদ্ধে দাঁড়াচ্ছি না? কেন আমরা এই হত্যাকাণ্ডের সাথে বাঁচতে চাই? কেন আমরা এ ধরনের ঘটনা ঘটতে দিচ্ছি?’  

সন্তান হারানোর শোককে শক্তিতে পরিণত করার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, ‘দেশের প্রত্যেক নির্বাচিত প্রতিনিধির কাছে আমাদের এটা পরিষ্কার করতে হবে যে এখনই কাজ করার (অস্ত্র আইন নিয়ে) সময়। যারা অস্ত্র আইন বাস্তবায়নে বাধা দেয় তাদের বলতে চাই- মনে রাখবেন, আমরা এসব ভুলব না।’  

এশিয়া সফর শেষে হোয়াইট হাউসে ফেরার পরপরই জাতির উদ্দেশে ভাষণে এসব কথা বলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন।  

স্থানীয় সময় মঙ্গলবার (২৪ মে) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে টেক্সাসের উভালদে শহরের রব এলিমেন্টারি স্কুলে বন্দুক হামলা চালানো হয়। এ ঘটনায় পুলিশের গুলিতে মারা গেছেন হামলাকারী। তিনি ওই স্কুলটির সাবেক শিক্ষার্থী। ঘটনাস্থলে আসার আগে ১৮ বছর বয়সী ওই তরুণ তার দাদিকেও গুলি করে এবং তার অবস্থাও আশঙ্কাজনক বলে জানা গেছে।  

এ ঘটনায় গভীর শোক প্রকাশ করে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন নিহতদের স্মরণে তিনদিন জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত রাখার ঘোষণা দিয়েছেন।  

পুলিশ জানায়, সান আন্তোনিও শহর থেকে প্রায় ৮৫ মাইল দূরে অবস্থিত উভালদে শহরের রব এলিমেন্টারি স্কুলে প্রবেশ করে এক বন্দুকধারী। এ সময় রাইফেল হাতে স্কুল ভবনটির ভেতরে শিক্ষার্থী এবং শিক্ষকদের লক্ষ্য করে কয়েক রাউন্ড গুলি ছোড়ে ওই হামলাকারী। এতে ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় বেশ কয়েকজনের, যাদের মধ্যে অধিকাংশই শিশু। আহত হন আরও বেশ কয়েকজন।  

খবর পেয়ে নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা ঘটনাস্থলে যায়। পরে পুলিশের গুলিতে হামলাকারী নিহত হন।    

এ ঘটনার পর হাতহতের বিষয়টি নিশ্চিত করেন টেক্সাসের গভর্নর গ্রেগ অ্যাবট। একইসঙ্গে প্রকাশ করা হয় হামলাকারীর নামও। ১৮ বছর বয়সী ওই বন্দুকধারীর নাম সালভাদর রামোস বলে জানা গেছে। তিনি ওই স্কুলের সাবেক শিক্ষার্থী বলেও জানানো হয়।

ঢাকানিউজ২৪.কম / কেএন

আর্ন্তজাতিক বিভাগের জনপ্রিয় সংবাদ

banner image
banner image