• ঢাকা
  • সোমবার, ৩ মাঘ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ; ১৭ জানুয়ারী, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image

চরের মানুষের স্বাস্হ্যসেবার অধিকারঃ অভিজ্ঞতা এবং করণীয় শীর্ষক সংলাপ


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: বৃহস্পতিবার, ১৩ জানুয়ারী, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ১০:৫২ এএম
তবে এগুলো পর্যাপ্ত নয়, আরো উদ্যোগ নিতে
দশমিনায় আঞ্চলিক সংলাপ

নিউজ ডেস্ক:    দশমিনা, পটুয়াখালীতে ন্যাশনাল চার অ্যালায়েন্স, সমুন্নয় ও দশমিনা চর অ্যালায়েন্সের উদ্যোগে মানুষের জন্য ফাউন্ডেশনের সহযোগিতায় ১২ জানুয়ারি ২০২২ দশমিনা উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে চরের মানুষের স্বাস্হ্যসেবার অধিকারঃ অভিজ্ঞতা এবং করণীয় র্শীষক এক আঞ্চলিক সংলাপ উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা জনাব ডাঃ মোঃ মোস্তাফিজুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়।

সংলাপে প্রধান অতিথি ছিলেন দশমিনা উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ভারপ্রাপ্ত) মোঃ আবদুল কাইয়ুম। বিশেষ অতিথি ছিলেন দশমিনা উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান দ্বয় মোঃ নাসির উদ্দিন পালোয়ান ও বেগম শামছুন্নাহার খান ডলি। দশমিনা চর অ্যালায়েন্সের আহবায়ক পিএম রায়হান বাদল অনুষ্ঠানটি সঞ্চলনা করেন। অনুষ্ঠানেমুল নিবন্ধ উপস্থাপন করেন সমুন্নয়ের সিনিয়র রিসার্চ অ্যাসোসিয়েটড. মাহবুব হাসান।

তিনি বলেন, দেশের দুর্গম চরাঞ্চল যে বরাবরই  উন্নয়ন বঞ্চিত এটি নতুন করে বলা অপ্রয়োজন। চরে প্রায় ১ কোটি মানুষের বসবাস এরা স্বাস্থ্যসেবা থেকেও বঞ্চিত।  যাতায়াতের সুবিধাদি কম এবং তুলনামূলক খরচ বেশি। তাছাড়া তাদের নিয়ে পরিকল্পনারও বেশ অভাব রয়েছে। চরের নারী ও শিশু  স্বাস্হ্যসেবা থেকে বঞ্চিত।  তারা এখনও অসচেতন ঝাঁর-ফুকের উপর নির্ভরশীল। এই কভিড-১৯ সময়ে টিকা গ্রহণের হার কম এবং তাদের টিকা গ্রহণে খরচ তুলনামূলকভাবে বেশি। তাই তাদর জন্য আলাদাভাবে চিন্তা করতে হবে। চরের মানুষের কাছে স্বাস্থ্যসেবা নিয়ে যেতে হবে। প্রয়োজনে চরফার্মাসী করা যেতে পারে। চরে টিকার সচেতনতা বাড়াতে হবে এবং কভিড-১৯ টিকা দেয়ার আলাদা ব্যবস্হা করতে হবে।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে ইউএনও বলেন, দশমিনায় চরগুলোতে স্হানীয়ভাবে টিকা দেয়ার ব্যবস্হা করা হয়েছে। তবে এগুলো পর্যাপ্ত নয়, আরো উদ্যোগ নিতে হবে। কারণ আবার করোনা বাড়ছে। টিকার কোন বিকল্প নেই। সাথাসাথে মাস্ক ব্যবহার বাধ্যতামূক, এবিষয়ে সরকারের নির্দেশনা রয়েছে। আগামীতে পটুয়াখালীতে ভূমি সার্ভে হবে। এটা হলে চরের ভূমি বিষয়ে অনেক সমস্যার সমাধান হবে।  

সভাপতির বক্তব্যে ডাঃ মো মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, ইপিআই সরকারের সবচেয়ে সফল প্রোগ্রাম। চরে এক্ষেত্রে কোন সমস্যা নেই। এক্ষেত্রে কোন ভুল বুঝাবুঝির সুযোগ নেই। স্হানীয় জনগণকে উদ্বুদ্ধ করে ফার্মেসীর ব্যবস্হা করা যেতে পারে। জটিল সেবাসমূহ অনলাইনে প্রাথমিক সেবা আপনারা নিতে পারেন। আর নৌ এ্যাম্বুলেন্স আছে। কিন্তু কোন খরচের নীতিমালা না থাকায় ব্যবহার করতে পারছি না। এতে ঘন্টা ২০ লিটার তেল খরচ হয়। তাতে ৮০০০/= টাকা খরচ হয়। তাই এটা ব্যবহার করা যাচ্ছে না। নিজের টাকা খরচ করে মাঝে মাঝে ব্যবহার করা হয়।

ঢাকানিউজ২৪.কম /

সারাদেশ বিভাগের জনপ্রিয় সংবাদ

banner image
banner image