• ঢাকা
  • বুধবার, ২ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ; ১৭ জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image
website logo

সিরাজগঞ্জে স্বামীকে হত্যার দায়ে স্ত্রীর যাবজ্জীবন কারাদণ্ড


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: সোমবার, ২৪ জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ০২:১৪ পিএম
স্বামীকে হত্যার দায়ে
স্ত্রীর যাবজ্জীবন কারাদণ্ড

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি: সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ায় পরোকিয়া প্রেমের জেরে স্বামীকে হত্যার দায়ে স্ত্রী ময়না খাতুনকে (৩০) যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত। একই সঙ্গে ৫০ হাজার টাকা অর্থদন্ড অনাদায়ে আরো ৬ মাসের বিনাশ্রমে কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে।

রোববার বিকেল ৪টার দিকে সিরাজগঞ্জের অতিরিক্ত দায়রাজজ ২য় আদালতের বিচারক মো: আবুল বাশার মিঞা এই কারাদণ্ডের আদেশ দেন।

এই আদালতের অতিরিক্ত পিপি জেবু ন্নেছা জেবা রহমান এতথ্য নিশ্চিত করেছেন।

দন্ডপ্রাপ্ত ময়না খাতুন সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া উপজেলার চড়ুই মুরী গ্রামের মোজদার আলীর মেয়ে।

মামলার অভিযোগ পত্রে উল্লেখ করা হয়েছে, ২০১২ সালের জুলাই মাসে ময়না খাতুনের সঙ্গে পাশ্ববর্তী  শাহজাদপুর উপজেলার চক হরিপুর গ্রামের  জহর আলী সরকারের ছেলে বাবু সরকারের বিয়ে হয়। ময়মা খাতুন বিষয়ে আগেই পাশ্ববর্তী ভদ্রকোল চরপাড়া গ্রামের  আহম্মদ আলীর সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক ছিল।  যেকারণে ময়না শ্বশুর বাড়ি না থেকে বাবার বাড়িতে থাকতে পছন্দ করতো।

২০১২ সালের সেপ্টেম্বর মাসের প্রথম দিকে ময়না খাতুন স্বামীর বাড়ি থেকে বাবার বাড়িতে বেড়াতে আসেন। পরবর্তীতে ২১ সেপ্টেম্বর বাবু সরকার বাবার বাড়ি থেকে শ্বশুর বাড়িতে চলে আসে স্ত্রী কে নিতে।

দুপুরে বাবু সরকারকে শ্বাসরোধে হত্যা করে স্ত্রী আত্মহত্যা বলে প্রচারণা চালায়।  খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে মর্গে পাঠায়।

এঘটনায় নিহতের বাবা জহর আলী সরকার বাদী হয়ে ময়না খাতুন ও পরোকিয়া প্রেমিক আহম্মদ আলী সহ ৭ জনের নাম উল্লেখ করে উল্লাপাড়া মডেল থানার মামলা দায়ের করেন।

পরে পুলিশ ময়না খাতুন ও পরোকিয়া প্রেমিক আহম্মদ আলীকে অভিযুক্ত করে আদালতে অভিযোগ পত্র দাখিল করে।  মামলার স্বাক্ষ্য প্রমাণ শেষে আজ ময়না খাতুনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের আদেশ দেন।

অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় পরোকিয়া প্রেমিক আহম্মদ আলীকে বেকসুর খালাস প্রদান করেন আদালত।

ঢাকানিউজ২৪.কম / কেএন

আরো পড়ুন

banner image
banner image