• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ১১ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ; ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image

বিরামপুরে আদিবাসী (শাঁওতাল) নারী-পুরুষ সমন্বিত দলে মানববন্ধন


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: রবিবার, ২৮ আগষ্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ০৩:১৪ পিএম
আদিবাসী (শাঁওতাল) নারী-পুরুষ মানববন্ধন
দিনাজপুর

রেজোওয়ান আলী বিরামপুর প্রতিনিধি, দিনাজপুর:  দিনাজপুর বিরামপুরে গির্জার নামে দখলকৃত জায়গা নিয়ে বিরোধের নিষ্পত্তি ও নিজেরা গির্জা ভেঙ্গে নিয়ে গ্রামবাসীর নামে হয়রানী মূলক মামলা প্রত্যাহারের দাবীতে গ্রামের আদিবাসী (শাঁওতাল) নারী-পুরুষদের মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

২৭ আগষ্ট, শনিবার দুপুর ১২ টার সময় দিনাজপুর গোবিন্দগঞ্জ মহাসড়ক সংলগ্ন হাসপাতাল রোড বিরামপুর প্রেসক্লাব মোড়ে এই মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। উক্ত মানববন্ধনে দিঘলচাঁদ গ্রামের মুচিয়া মার্ডির ছেলে বিশাল মারান্ডি জানান,জনৈক ইলিয়াস সরেন চাকুরি ও বিভিন্ন সুযোগ সুবিধার আশ্বাস দিয়ে ২০১০ সালে মুচিয়া মার্ডির নিকট থেকে গির্জা নির্মানের জন্য ৩৩ শতক জমি লিখে নেয়।

পরবর্তীতে সেখানে ইউনাইটেড বেথেলিক চার্চ নির্মাণ করা হলেও জমি দাতার পরিবার ও গ্রামের ৩০জন শাঁওতালকে খৃষ্ট ধর্মে দিক্ষিত করার পরও কোন সুযোগ সুবিধা না দিয়ে দানের শর্ত ভংগ করে স্বেচ্ছাচারিতার মাধ্যমে চার্চ চালানো হত। খৃষ্টধর্মে দিক্ষিতরা পরবর্তীতে শাঁওতাল ধর্মে ফিরে গিয়ে ঐ স্থানে মন্দির করে সেখানে নিজেদের ধর্ম পালন করতে শুরু করেছে।

অবস্থা বেগতিক দেখে গির্জার পালক সুরাই পাওরিয়া গির্জার দরজা-জানালা ও আসবাবপত্র খুলে নিয়ে যায়। ঝামেলা এড়াতে মুচিয়া মার্ডির ছেলে বিশাল মারান্ডি ঘটনার উল্লেখ করে ২০২১ সালের ১১ আগষ্ট বিরামপুর থানায় একটি জিডি ও প্রশাসনের বিভিন্ন দপ্তরকে লিখিত ভাবে অবহিত করেন। কিন্তু গির্জার পরিচালক ইলিয়াস সরেন বিশাল মারান্ডিসহ ১০/১২ জনের নামে গির্জা ভাঙ্গা ও জিনিসপত্র লুটপাটের অভিযোগ এনে আদালতে মামলা করেন। মামলাটি বর্তমানে বিপিআই তদন্তাধিন রয়েছে। মানববন্ধনে উল্লেখিত হয়রানী মূলক মামলা প্রত্যাহার ও শর্ত ভঙ্গের কারণে দানকৃত জায়গা দাতার পরিবারকে ফেরত দেওয়ার দাবী উঠেছে।।

ঢাকানিউজ২৪.কম / কেএন

সারাদেশ বিভাগের জনপ্রিয় সংবাদ

banner image
banner image