• ঢাকা
  • বুধবার, ১২ মাঘ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ; ২৬ জানুয়ারী, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image

জুড়ীতে একনজরে ইউপি নির্বাচন ফলাফলের চিত্র


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: শনিবার, ১৩ নভেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ০২:২২ পিএম
জুড়ীতে নির্বাচন ফলাফল
বিজয়ী প্রার্থীরা

মৌলভীবাজার জেলা প্রতিনিধি: দ্বিতীয় ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে মৌলভীবাজারের জুড়ী উপজেলার ৫ ইউনিয়নের ৪ টিতেই বিজয় পেয়ে চমক দেখিয়েছেন ঘোড়া মার্কার স্বতন্ত্র প্রার্থীরা। বাকি একজন বিজয় পেয়েছেন নৌকার প্রার্থী।

বেসরকারিভাবে প্রাপ্ত ফলাফল অনুযায়ী ৫টি ইউনিয়নে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থীদের (নৌকা) মধ্যে একটি ইউনিয়নে বিজয় লাভ করেছে। বাকি চারটি ইউনিয়নেই পাশ করেছেন আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী ও বিএনপি সমর্থক স্বতন্ত্র প্রার্থীরা।

বৃহস্পতিবার ১১ নভেম্বর সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত ৫ ইউনিয়নে ভোটগ্রহণ চলে।

জুড়ীর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে জিতলেন যারা-

জায়ফরনগর ইউনিয়ন: জুড়ীর জায়ফর নগর ইউনিয়নে বিএনপি ঘরনার স্বতন্ত্র প্রার্থী, বর্তমান চেয়ারম্যান মাসুম রেজা ঘোড়া প্রতীক নিয়ে ৯৪৭৯ ভোট পেয়ে আবারও বিজয়ী হয়ে চমক দেখিয়েছেন। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী হাবিবুর রহমান পেয়েছেন ৮০১০ ভোট। এই ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকার প্রার্থী মোহাম্মদ জায়েদ আনোয়ার চৌধুরী পেয়েছেন ৩০৭১ ভোট।

সাগরনাল ইউনিয়ন: জুড়ী উপজেলার সাগরনাল ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল নুর। তিনি নৌকা প্রতীক নিয়ে ৭১৪৫ ভোট পেয়েছেন। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্ধী উপজেলা বিএনপির সহ-সভাপতি, বর্তমান চেয়ারম্যান ঘোড়া প্রতীকের এমদাদুল ইসলাম চৌধুরী পেয়েছেন ৫২২৭।

গোয়ালবাড়ী ইউনিয়ন: গোয়ালবাড়ী ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে ঘোড়া প্রতীকে ৫৪৭১ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন বিএনপি সমর্থিত স্বতন্ত্র প্রার্থী আব্দুল কাইয়ূম। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দী আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী, ৪ বারের বর্তমান চেয়ারম্যান শাহাব উদ্দিন আহমদ লেমন পেয়েছেন ৩৫০৩ ভোট।

পশ্চিম জুড়ী: পশ্চিম জুড়ী ইউনিয়নে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী আনফর আলী। তিনি ঘোড়া প্রতীকে পেয়েছেন ৪৩৬৬ ভোট। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্ধী আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী, বর্তমান চেয়ারম্যান শ্রীকান্ত দাস পেয়েছেন ৩৯৩৮ ভোট।

পূর্ব জুড়ী: পূর্বজুড়ী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী ওবায়দুল ইসলাম রুহেল। তিনি ঘোড়া প্রতীকে পেয়েছেন ৪৭৫৬ ভোট। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্ধী আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী, বর্তমান চেয়ারম্যান সালেহ উদ্দিন আহমদ পেয়েছেন ৩০৮৮ ভোট। এই ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকার প্রার্থী আব্দুল কাদির পেয়েছেন ১৫৪১ ভোট।

একনজরে জুড়ীর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন: জুড়ীতে দ্বিতীয় ধাপে ৫টি ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে ২১ জন, সাধারণ সদস্য ২০২ জন এবং সংরক্ষিত মহিলা সদস্য ৫২ জন সহ মোট ২৭৫ জন প্রার্থী প্রতিদন্ধিতা করেন। উপজেলার ৫টি ইউনিয়নে মোট ভোটার ছিলেন ৯২ হাজার ৮ শত ৮১ জন। ভোট কেন্দ্র ছিল ৪৯টি। আইন শৃঙ্খলা রক্ষায় পুলিশ, বিজিবি, র্যাব, স্ট্রাইকিং ফোর্স ও আনসার বাহিনীর সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

সাগরনাল ইউনিয়নে ভোট জালিয়াতি: জুড়ী উপজেলার সাগরনাল ইউনিয়নের ২ নং ওয়ার্ডের পাতিলাসাঙ্গন কেন্দ্রে ভোট গ্রহণের আগে ভোর বেলা প্রিসাইডিং অফিসারকে জিম্মি করে ৩৫০টি ব্যালটে সিল মারার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ভোটগ্রহণ শুরুর আগে ব্যালট পেপার চেক করার সময় প্রায় ৩৫০টি জাল ভোট ধরা পড়ে। এ কারণে সঠিক সময়ে ভোটগ্রহণ শুরু হয়নি। পরে প্রার্থীদের সমঝোতায় ২০ মিনিট পর ভোটগ্রহণ শুরু হয়।

পাতিলাসাঙ্গন কেন্দ্রের প্রিসাইডিং অফিসার পিনাল কান্তি ঘোষ গণমাধ্যমকে জানান, ভোট গ্রহণের পূর্বে ১১ নভেম্বর বৃহস্পতিবার ভোরে আনুমানিক ৫টায় ১০-১৫ জনের মুখোশ পড়া একটি দুষ্কৃতিকারী দল আমাকে জিম্মি (অবচেতন) করে ৩৫০টি ব্যালটে সিল মারে। পরে বিষয়টি জানাজানি হলে ভোটগ্রহণের পূর্বে জাল ভোট দেয়া ব্যালটগুলো বাতিল করে প্রার্থীদের মধ্যে সমঝোতা হওয়ায় ২০ মিনিট পর ভোটগ্রহণ শুরু হয়।

উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও রিটার্নিং অফিসার হাফিজুর রহমান বলেন, বিষয়টি জানতে পেরে আমি বার বার কেন্দ্রের প্রিসাইডিং অফিসারকে জিজ্ঞেস করেছি, ৩৫০ জাল ভোটের বিষয়টি তিনি অস্বীকার করেছেন। তিনি আমাকে জানান, স্যার কেন্দ্রে একটু ঝামেলা হয়েছে। জাল ভোটগুলো বাতিল করে ভোটগ্রহণ শুরু করা হয়।

এ ব্যাপারে জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মোঃ আলমগীর হোসেন বলেন, ব্যালটে সিল মারার বিষয়টি সঠিক নয়, এটা গুজব।

এদিকে কয়েকটি কেন্দ্রে জাল ভোট দেওয়ার চেষ্টা করা হলে প্রিসাইডিং কর্মকর্তা তাদের আটক করে রাখেন। ভোট শেষ হওয়ার পর তাদের ছেড়ে দেয়া হয়।

ভোট শেষে জায়ফর নগর ইউনিয়নের জায়ফর নগর উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে সদস্য প্রার্থী আব্দুল খালিকের লোকজন ভোট ভূল গণণা হয়েছে দাবি করে নির্বাচনী ব্যালট পেপারের গাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখেন। পরে পুলিশের সাথে সংঘর্ষ ঘটে।পরবর্তীতে কুলাউড়া -বড়লেখা আঞ্চলিক মহাসড়কের মানিক সিংহ নামক স্থানে তারা সড়ক অবরোধ করে আগুন জালিয়ে দেয়।
উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও রিটার্নিং কর্মকর্তা হাফিজুর রহমান বলেন, নির্বাচন সুষ্ঠু এবং নিরপেক্ষ হয়েছে।

ঢাকানিউজ২৪.কম / মো জহিরুল ইসলাম/কেএন

সারাদেশ বিভাগের জনপ্রিয় সংবাদ

banner image
banner image