• ঢাকা
  • বুধবার, ৮ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ; ২৪ জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image
website logo

স্টারমারের দুঃখ প্রকাশের পরও বাংলাদেশি কমিউনিটিতে ক্ষোভ


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: রবিবার, ৩০ জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ০৩:৫৯ পিএম
বাংলাদেশি কমিউনিটির মধ্যে ক্ষোভ থামছে না
লেবার পার্টির নেতা স্যার কেইর স্টারমার

নিউজ ডেস্ক:  ব্রিটেনের বিরোধী দল লেবার পার্টির নেতা স্যার কেইর স্টারমার দেশটিতে অবৈধ বাংলাদেশি অভিবাসীদের নিয়ে যে মন্তব্য করেছেন, তার জেরে তুমুল বিতর্ক চলছে দেশটির রাজনীতিতে। ব্রিটেনে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের অবৈধ অভিবাসী থাকার পরও বাংলাদেশ নিয়ে আলাদা বক্তব্যে স্টারমার নিজ দল ও বাংলাদেশি কমিউনিটির তীব্র সমালোচনার মুখে পড়েছেন। লেবার পার্টি এবং স্টারমারের দুঃখ প্রকাশের পরও বাংলাদেশি কমিউনিটির মধ্যে ক্ষোভ থামছে না। 

আগামী ৪ জুলাই যুক্তরাজ্যের সাধারণ নির্বাচন সামনে রেখে গত সোমবার ডেইলি সান আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে স্টারমার অবৈধ অভিবাসী হিসেবে উদাহরণ টানতে গিয়ে বাংলাদেশ প্রসঙ্গ টানেন। তার এ বক্তব্যে বিপাকে পড়েছেন লেবার পার্টির মনোনয়ন পাওয়া বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত প্রার্থীরা। নির্বাচনের আগে ঐ বক্তব্যে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন, ব্রিটেনে বসবাসরত বাংলাদেশিরা।

ব্রিটেনের সংবাদমাধ্যম দ্য টেলিগ্রাফের খবরে বলা হয়েছে, অবৈধ অভিবাসী নিয়ে স্টারমারের এ বক্তব্য তীব্র ক্ষোভ-সমালোচনা তৈরি করেছে বাংলাদেশ কমিউনিটিতে। এমনকি এ বক্তব্য দেওয়ার পর নিজ দলের সদস্যদেরও তোপের মুখে পড়েছেন এ নেতা। দলীয় নেতার এ বক্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় লেবার পার্টির টাওয়ার হ্যামলেটসের ডেপুটি লিডার ও কাউন্সিলর বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত সাবিনা আখতার লেবার পার্টি থেকে পদত্যাগ করেছেন।

লেবার পার্টির বিবৃতি ও স্টারমারের দুঃখ প্রকাশ:  টেলিগ্রাফের খবরে বলা হয়, বাংলাদেশি কমিউনিটিতে তীব্র ক্ষোভের মুখে এর ব্যাখ্যা দিয়েছে লেবার পার্টি। বাংলাদেশের সঙ্গে লেবার পার্টির সম্পর্ক তুলে ধরে দলটি জানায়, স্টারমার কোনো উদ্দেশ্য নিয়ে এমন মন্তব্য করেননি। বিবৃতিতে বলা হয়, তাদের দলের সঙ্গে বাংলাদেশ ও বাংলাদেশ কমিউনিটির সম্পর্ক অত্যন্ত গভীর ও বন্ধুত্বপূর্ণ। স্টারমার নিজেও কয়েক বার বাংলাদেশ ভ্রমণ করেছেন উল্লেখ করেছেন। এ বক্তব্যের পর বাংলাদেশের একটি বেসরকারি টেলিভিশনের কাছে একটি সাক্ষাত্কার দেন স্টারমার। সেই সাক্ষাত্কারেটি নিয়ে রিপোর্ট করেছে ব্রিটেনের দ্য টেলিগ্রাফ। সাক্ষাত্কারে স্টারমার বলেন, এ বক্তব্যের প্রতিক্রিয়া নিয়ে আমি উদ্বিগ্ন। এ ধরনের বক্তব্য দেওয়া আমার উদ্দেশ্য ছিল না। আমি কাউকে আঘাত করে বক্তব্য দেইনি। যেখানে তিনি আরো বলেন, ‘লেবার পার্টি ও বাংলাদেশিদের সম্পর্ক ঐতিহাসিকভাবে অনেক সুদৃঢ়। এখানকার বাংলাদেশি সম্প্রদায়ের সঙ্গেও আমার সুসম্পর্ক রয়েছে।

ঢাকানিউজ২৪.কম / এইচ

আরো পড়ুন

banner image
banner image