• ঢাকা
  • রবিবার, ২২ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ; ০৫ ফেরুয়ারী, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image

চালক নয় মালিকদের কাছে জিম্মি যাত্রীরা


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: রবিবার, ০৪ ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ০৩:২১ পিএম
মালিকদের কাছে জিম্মি যাত্রীরা
চালক ও শ্রমিক ইউনিয়নের আয়োজনে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত

মোহাম্মদ রুবেল: সিএনজি মালিকরা চালকদের থেকে দৈনিক হাজিরার টাকা বেশি নেয়ার কারনে যাত্রীদের কাছে অতিরিক্ত ভাড়া দাবি করে সিএনজি চালকরা। এতে চালক নয় মালিকদের কাছেই যাত্রীরা জিম্মি। এমন অভিযোগ সিএনজি অটোরিকশার চালকদের।

তারা বলেছেন, বিআরটিএ কর্তৃপক্ষের একতরফা নির্দেশ অনুযায়ী এ ক্ষুদ্র যানটির দৈনিক জমা ৯০০ টাকা করা হয়েছে। বাস্তবে মালিকরা এর চেয়েও অধিক হারে জমা নিয়ে থাকেন। শুধু তাই নয়,অনেক ক্ষেত্রে গাড়ির গ্যারেজ ভাড়া দিতে হয় চালককেই।

রোববার জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে ঢাকা জেলা সিএনজি, অটোরিকশা, মিশুক, চালক ও শ্রমিক ইউনিয়নের আয়োজনে অনুষ্ঠিত এক মানববন্ধনে এসব অভিযোগ করেন ক্ষুদ্ধ সিএনজি অটোরিকশা চালকরা। 

এ অবস্থার পরিত্রানে মানববন্ধন থেকে ৯ দফা দাবিও জানানিয়েছে ক্ষুদ্ধ সি এনজি চালকরা। 
দাবিগুলোর মধ্যে রয়েছে-

ঢাকা জেলা সিএনজি, অটোরিকশা,মিশুক, চালক ও শ্রমিক ইউনিয়নের দাবিগুলো হচ্ছে— ঢাকা মহানগরীতে বসবাসরত চালকদের নামে পাঁচ হাজার সিএনজি, অটোরিকশার নতুন নিবন্ধন প্রক্রিয়া অবিলম্বে কার্যকর করতে হবে; মিটারের ভাড়া প্রথম ২ কিলো ১৫০ টাকা, পরবর্তী প্রতি কিলো ৬০ টাকা এবং ওয়েটিং প্রতি মিনিট ০৫ টাকা নির্ধারণ করতে হবে; মিটারে ভাড়া পুনর্নির্ধারণ না হওয়া পর্যন্ত মালিকদের দৈনিক জমা সরকার কর্তৃক নির্ধারিত ৯০০ টাকার বেশি আদায় করা যাবে না; মিটারের সঙ্গে ‘হায়ার ফর হায়ার’ ডিভাইস দৃশ্যমান স্থানে লাগাতে হবে; চালকদের নিয়োগপত্র দ্রুত বাস্তবায়ন করতে হবে; সিএনজি, অটোরিকশার জন্য প্রতিটি গ্যাস পাম্পে আলাদা নজেল ব্যবস্থা করতে হবে; পার্কিংয়ের ব্যবস্থা না করা পর্যন্ত নো পার্কিং মামলা দেওয়া যাবে না; ডোপ টেস্টের নামে পেশাদার অপেশাদার বৈষম্য দূর করে সবার জন্য ডোপ টেস্ট বাধ্যতামূলক করতে হবে এবং পেশাদার চালকদের ডোপ টোস্ট সরকারি হাসপাতালে বিনামূল্যে করতে হবে।

এছাড়া সিএনজি, অটোরিকশা রাইড শেয়ারিংয়ের আওতাধীন নয়। অথচ ‘ওভাই’ নামে একটি কোম্পানি সিএনজি, অটোরিকশা মালিকদের কাছ থেকে অতিরিক্ত ভাড়ায় নিয়ে রাইড শেয়ারিংয়ে চালাচ্ছে। এটা সম্পূর্ণ বেআইনি এবং অবশ্যই বন্ধ করতে হবে; সিটি কর্পোরেশনের টোলের নামে সিএনজি, অটোরিকশা থেকে চাঁদাবাজি বন্ধ করতে হবে; আটোরিকশাসহ সব চালকের জন্য প্রতিটি সরকারি হাসপাতালে আলাদা ওয়ার্ড বরাদ্দ দিতে হবে এবং সব চালকের জন্য স্থায়ী বাসস্থানের ব্যবস্থা করতে হবে।

ঢাকা জেলা সিএনজি, অটোরিকশা, মিশুক, চালক ও শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক সাখাওয়াত হোসেন দুলাল বলেছেন, মালিকরা শিক্ষিত সচেতন হওয়ার পরও ৯০০ টাকার জমা ১১০০ থেকে ১২০০ টাকা নিচ্ছেন।এই যানজটের শহরে সারাদিনে ১০০ কিলোমিটারের বেশি গাড়ি চালানো যায় না।মালিকের ভাড়ার টাকা,পুলিশ ও সিটি টোলের টাকা তুলতে গিয়ে চালকরা যাত্রীদের কাছ থেকে অতিরিক্ত ভাড়া দাবি করতে বাধ্য হচ্ছে।এতে যাত্রীরা চালকের প্রতি অসন্তুষ্টি প্রকাশ করছেন।

বর্তমান অবস্থায় উন্নত যাত্রীসেবার জন্য বাজার পরিস্থিতির ওপর নির্ভর করে মিটার রিডিং পুনর্নির্ধারণ করার বিকল্প নেই।

মানববন্ধনে আরও বক্তব্য রাখেন ঢাকা জেলা সিএনজি, অটোরিকশা, মিশুক, চালক ও শ্রমিক ইউনিয়নের সহ সভাপতি মোহাম্মদ বাদল আহাম্মেদ। এছাড়া ইউনিয়নের অন্যান্য সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

ঢাকানিউজ২৪.কম / কেএন

সারাদেশ বিভাগের জনপ্রিয় সংবাদ

banner image
banner image