• ঢাকা
  • শুক্রবার, ৩ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ; ১৯ জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image
website logo

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি ৭ দিন কমানোর পরিকল্পনা


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: বৃহস্পতিবার, ২০ জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ১২:৫৭ এএম
শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের, ছুটি, ৭ দিন, কমানোর, পরিকল্পনা

নিউজ ডেস্ক : বর্তমানে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো ঈদুল আজহা এবং গ্রীষ্মকালীন ছুটি মিলিয়ে মোট ২০ দিনের ছুটিতে রয়েছে। এই ছুটি শুরু হয়েছিল ১৩ জুন এবং শেষ হওয়ার কথা ২ জুলাই। তবে, এই ছুটি কমানোর সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। শিক্ষা প্রশাসনের ইঙ্গিত অনুযায়ী, গ্রীষ্মকালীন ছুটি বাতিল হতে পারে, শুধুমাত্র ঈদুল আজহার ছুটি থাকবে। এর ফলে, ছুটি এক সপ্তাহ আগেই শেষ হয়ে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা হতে পারে। 

শিক্ষা মন্ত্রণালয় বৃহস্পতিবার একটি বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত নেবে। বৈঠকটি শিক্ষামন্ত্রীর সভাপতিত্বে হবে এবং সেখানে ছুটি কমানোর বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের একজন অতিরিক্ত সচিব জানিয়েছেন, বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় শিক্ষামন্ত্রীর সভাপতিত্বে বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে। বৈঠক শেষে মন্ত্রী আনুষ্ঠানিকভাবে সিদ্ধান্তের কথা জানাবেন।

ছুটি সংক্ষিপ্ত করার পেছনে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের যুক্তি হলো, নতুন কারিকুলামে এ বছর বেশ ঘাটতি রয়েছে। শীত ও অতি গরমের কারণে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো প্রায় ১৫ দিন বন্ধ ছিল। এই ক্ষতি পূরণের জন্য গ্রীষ্মকালীন ছুটি কমানো হতে পারে। শীতকালীন ছুটি কিছুটা বাড়ানো হতে পারে। এছাড়া, শনিবারের ছুটি পুনর্বহাল রাখার ফলে কর্মদিবস কমে যাবে। তাই গ্রীষ্মের ছুটি এক সপ্তাহ কমানোর পরিকল্পনা রয়েছে।

মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের পরিচালক (মাধ্যমিক) অধ্যাপক সৈয়দ জাফর আলী বলেছেন, গ্রীষ্মের ছুটি কমানোর বিষয়ে একটি প্রস্তাব রয়েছে। শিক্ষামন্ত্রণালয়ই এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবে। 

তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশে আবহাওয়ার পরিবর্তন হয়েছে। গ্রীষ্মকালীন ছুটির সময় জুন-জুলাই মাসে অতি গরম থাকে। এই সময়ে ছুটি থাকা না থাকার মধ্যে তেমন পার্থক্য নেই। তাই গ্রীষ্মকালীন ছুটি বাতিল করে তা শীতের ছুটির সঙ্গে সমন্বয় করার প্রস্তাব দিয়েছেন তিনি।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের একজন অতিরিক্ত সচিব আরও জানিয়েছেন, এ বছরের শুরুতে তীব্র শীত এবং মাঝামাঝি সময়ে প্রচণ্ড গরমের কারণে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখা হয়। এর ফলে শিক্ষার্থীদের শিখন ঘাটতি তৈরি হয়েছে। নতুন শিক্ষাক্রম অনুযায়ী যেসব শ্রেণিতে পাঠদান হচ্ছে, সেসব শ্রেণিতে জুলাই মাসে ষান্মাসিক মূল্যায়নের প্রস্তুতি ভালো হয়নি। অনেক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান নির্ধারিত সিলেবাস শেষ করতে পারেনি। তাই, সভার মাধ্যমে বিষয়টি চূড়ান্ত করা হবে।

 

ঢাকানিউজ২৪.কম / কেএন

আরো পড়ুন

banner image
banner image