• ঢাকা
  • শুক্রবার, ২২ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ; ০৭ অক্টোবর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image

ফুলবাড়ীতে দীর্ঘদিনেও দখলমুক্ত হয়নি রাস্তা দূর্ভোগে এলাকাবাসী


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: মঙ্গলবার, ১৩ সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ০১:২১ পিএম
দখলমুক্ত হয়নি
রাস্তা দূর্ভোগে এলাকাবাসী

জাকারিয়া মিঞা, ফুলবাড়ী প্রতিনিধি, কুড়িগ্রাম : কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী উপজেলার বড়ভিটা ইউনিয়নের বড়লই আমসা বাজার এলাকার একটি রেকর্ডভূক্ত রাস্তা দখল করে নিয়েছে স্থানীয় প্রভাবশালীরা। দীর্ঘদিনেও দখলমুক্ত না হওয়ায় চরম দূর্ভোগে পড়েছে ওই এলাকার কয়েক হাজার মানুষ। এ বিষয়ে এলাকাবাসী জেলা প্রশাসক, উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও সহকারী কমিশনার (ভূমি)-র দপ্তরে লিখিত অভিযোগ দাখিল করার এক বছর পেরিয়ে গেলেও রাস্তাটি দখলমুক্ত হয়নি।

অভিযোগ সূত্রে এবং সরেজমিন ঘুরে দেখা গেছে, ওই ইউনিয়নের বালাতারী গ্রামের আমসা বাজার হতে নাজির উদ্দিনের বাড়ির পাশ দিয়ে  নজরমামুদ পর্যন্ত কাঁচা রাস্তাটি সরকারি রেকর্ডভূক্ত। দুই পাশের জমির মালিকেরা অবৈধ ভাবে রাস্তা কেটে, বাঁশ ও টিনেরবেড়া এবং গাছ লাগিয়ে দখল করায় রাস্তাটি অপ্রশস্ত হয়ে চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। রাস্তার পাশের ৫ জন বাড়িওয়ালা পরস্পরের সাথে বিবাদে জড়িয়ে রাস্তাটি দখল করে রেখেছে বলে অভিযোগ স্থানীয়দের। এরা হলেন, বালাতারী গ্রামের জনদ্দি মুন্সির ছেলে ওহাব আলী, মৃত হবিবরের ছেলে আঃ বাকি, মৃত নবনিয়ার ছেলে নূর ইসলাম, মৃত নইমূদ্দির ছেলে বাবুল মিয়া এবং ওহাব আলীর ছেলে আশরাফুল।

এ ব‍্যাপারে নজর মামুদ গ্রামের বাসিন্দা আঃ হাকিম, জহুর আলী, বড়লই গ্রামের প্রাক্তন ইউপি সদস‍্য আফজাল হোসেন, নজির হোসেনসহ এলাকাবাসী বলেন, স্থানীয় তিন গ্রামের লোককে কৃষিকাজ, স্কুল কলেজ, হাসপাতাল,  হাটবাজার যাতায়াতের জন‍্য সব সময় এ রাস্তা দিয়ে যাতায়াত করতে হয়। কিছু লোক রাস্তাটি দখল করে আছে, মাঝে মাঝে খুঁটি গেড়ে বন্ধ করে দেয়। যে কারণে ছেলে মেয়েদের স্কুলে যাওয়ার সমস‍্যা হয়। গাড়ি চলার সুযোগ না থাকায় দূরের জমি থেকে ফসল আনা যায়না। দূর দিয়ে ঘুরে আসতে হয়। অটো, রিক্সা চলাচল করতে না পারায় আমাদের খুবই কষ্ট করে হাট বাজারে মালপত্র নিয়ে যেতে হয়। বিবাদের কারণে রাস্তা দখল হওয়ায় মেম্বার চেয়ারম‍্যান রাস্তায় মাটি কাটার সাহস পায় না। চলাচলের অনূপযোগী হওয়ায় আমরা রাস্তাটির ওপরে বাশেঁর চাটাই দিয়েছি।

জানাগেছে, ২০২১ সালের ২৮ ফেব্রুয়ারি উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নির্দেশনা মোতাবেক তৎকালীন ইউনিয়ন চেয়ারম‍্যান খয়বর আলী সালিশ বৈঠক করে রাস্তাটি দখলমুক্ত করতে যায়। সালিশের জুড়িবোর্ড রায় প্রকাশের আগেই ওহাব আলীর লোকজন তাদেরকে গালিগালাজ, মারপিঠ ও প্রাণনাশের হুমকি প্রদান করলে বৈঠকটি ভেঙ্গে যায়।  এরপর দীর্ঘদিনেও রাস্তাটি দখলমুক্ত করার কোন উদ‍্যোগ নেয়া হয়নি। এলাকাবাসীর দাবি অতি দ্রুত রাস্তাটি দখলমুক্ত করে জনগণের চলাচলের দূর্ভোগ দূর করবে প্রশাসন। 

এ ব‍্যাপারে বড়ভিটা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম‍্যান আতাউর রহমান মিন্টু বলেন, ওই এলাকার অনেকে রাস্তা দখল করে বাড়ি নির্মাণ করেছে। এলাকাটি কৃষি প্রধান হওয়ায় কৃষিপণ‍্য আনা নেওয়া এমনকি কেউ অসুস্থ হলে ওই রাস্তাটি দিয়ে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া  প্রায় অসম্ভব হয়ে পড়েছে। উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ রাস্তাটি দখলমুক্ত করলে জনদূর্ভোগ দূর হবে।
ফুলবাড়ী উপজেলা নির্বাহী অফিসার সুমন দাস বলেন, সরেজমিন পরিদর্শন করে রাস্তাটি দখলমুক্ত করার প্রয়োজনীয় ব‍্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

ঢাকানিউজ২৪.কম / কেএন

সারাদেশ বিভাগের জনপ্রিয় সংবাদ

banner image
banner image