• ঢাকা
  • শনিবার, ২৮ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ; ১৩ জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image
website logo

শ্রীমঙ্গলের সাবেক চেয়ারম্যান ও মুক্তিযোদ্ধা এম এ রহিম আর নেই 


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: শুক্রবার, ২১ এপ্রিল, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ, ০১:০১ পিএম
শ্রীমঙ্গলের
সাবেক চেয়ারম্যান ও মুক্তিযোদ্ধা এম এ রহিম

মো: জহিরুল ইসলাম, স্টাফ রিপোর্টার : মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলের মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক,  মুক্তিযোদ্ধা শ্রীমঙ্গল পৌরসভার দুই বারের  সাবেক চেয়ারম্যান সাপ্তাহিক শ্রীভূমি পত্রিকার সম্পাদক ও প্রকাশ  এম এ রহিম আর নেই।

তিনি গত ১৯ শে এপ্রিল বুধবার রাত ১১ টা  ৪০ মিনিটে সময় সিলেট মাউন্ড এড্রোরা হসপিটালে চিকিৎসাধী অবস্থায় শেষ নি:শ্বাস ত্যাগ করেন।  

তিনি ছিলেন শ্রীমঙ্গল থানা ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাকালীন সভাপতি, শ্রীমঙ্গল উদয়ন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও হাজী রাশিদ  আলী মেহেরজান উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি, বাংলাদেশ উদীচী শিল্পী গোষ্ঠী' শ্রীমঙ্গল শাখার সাবেক সভাপতি, বিশিষ্ট শিক্ষানুরাগী, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব ছিলেন। দীর্ঘ বর্ণাঢ্য রাজনৈতিক জীবনে অনেক সমাজ সেবামূলক কর্মকান্ডে নিজেকে বিলিয়ে শ্রীমঙ্গলে এক মানবিক কিংবদন্তী নেতা হিসাবে তিনি নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে পেরেছেন।

 ১৯৬৮ সালে তার নেতৃত্বে শ্রীমঙ্গলের থানা ছাত্রলীগের কমিটি গঠিত হয়।  ১৯৭০ সালে ৬ এপ্রিল পাকিস্তান সরকার সামরিক আইনে জয় বাংলা তথা পাকিস্তান ভাঙ্গার  অভিযোগে তাকে সহ অপর তিনজনকে গ্রেফতার করে মৌলভীবাজার জেলে প্রেরণ করে। কিন্তু জনগণের স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণ ও আন্দোলনের মুখে পাক সরকার পরদিন তাদের মুক্তি দিতে বাধ্য হয়।

তিনি ‘৬৯ এর গণঅভ্যুত্থান ৭০ এর নির্বাচন সর্বোপরি ১৯৭১'র মহান মুক্তিযুদ্ধ পরবর্তীতে মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক হিসেবে কাজ করেন। তিনি ১৯৮৩ ও ১৯৮৮ পরপর দুবার  শ্রীমঙ্গল পৌরসভার চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছিলেন। 

১৯৭৫ সাল থেকে শুরু করে ১৯৯০ এর গণঅভ্যত্থান পর্যন্ত প্রতিটি গণতান্ত্রিক আন্দোলনে তার অবদান ছিল অপরিসীম। ১৯৭১ সালে ভারতের বিএলে ব্যস্ততা মুজিব বাহিনীর সদস্য হিসেবে ভারতের ট্রেনিং নিয়েছিলেন। কিন্তু বর্তমান সমাজ ব্যবস্থার ধারক বাহকদের সংকীর্ণমনা মনোভাব ও  রাজনীতির কারণে তাঁর মুক্তিযোদ্ধা তালিকার আবেদন শ্রীমঙ্গল থানা যাচাই-বাছাই কমিটি মুক্তিযোদ্ধা সংক্রান্ত তথ্য মেনেনি বলে দ্বিধা বিভক্ত অভিমত ব্যক্ত করা হয়েছিল। আজও পাননি মুক্তিযুদ্ধের স্বীকৃতি স্বরুপ বীর মুক্তিযোদ্ধার খেতাফ।  

তাঁর মৃত্যুতে শ্রীমঙ্গলবাসী শোকাহত। ওনার মৃত্যুতে শোক জানিয়েছেন মৌলভীবাজার ৪  আসনের এমপি বীর মুক্তিযোদ্ধা  ডা: মো: আব্দুস শহীদ মৌলভীবাজার জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মিছবাহুর রহমান, শ্রীমঙ্গল উপজেলা আওয়ামীলীগ ও বিভিন্ন অঙ্গ সংঘঠন , শ্রীমঙ্গল বিএনপি, জাতীয় পাটি, শ্রীমঙ্গল উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ভানুলাল রায় , শ্রীমঙ্গল উপজেলা প্রেসক্লাব, শ্রীমঙ্গল প্রেসক্লাব,  শ্রীমঙ্গল মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতি, বাংলাদেশ  উদিচী শিল্পী গোষ্ঠী শ্রীমঙ্গল শাখা, শ্রীমঙ্গল ব্যবসায়ী সমিতি  সহ বিভিন্ন সামাজিক সংঘঠনের পক্ষ থেকে শোক প্রকাশ করা হয়।  

২০ এপ্রিল (বৃহস্পতিবার) বিকাল ৩ টায় মরহুমের প্রথম  জানাজার নামাজ শ্রীমঙ্গল ভিক্টোরিয়া উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে ও ২য় জানাজার নামাজ ওনার গ্রামের বাড়ি রামনগর ঈদগাহ মাঠে বিকাল ৪ ঘটিকায় অনুষ্ঠিত হয়। নিজ গ্রামের বাড়ির পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়। 

ঢাকানিউজ২৪.কম / কেএন

আরো পড়ুন

banner image
banner image