• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ৭ মাঘ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ; ২০ জানুয়ারী, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image

বিশ্ব ডায়াবেটিস দিবসে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর বাণী


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: শনিবার, ১৩ নভেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ০৫:৪৪ পিএম
রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর বাণী
রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী

ডেস্ক রিপোর্টার: রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদ ১৪ নভেম্বর ‘বিশ্ব ডায়াবেটিস দিবস’ উপলক্ষ্যে নিম্নোক্ত বাণী প্রদান করেছেন :
বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশেও ১৪ নভেম্বর ‘বিশ্ব ডায়াবেটিস দিবস’ পালিত হচ্ছে জেনে আমি অত্যন্ত আনন্দিত। আমাদের জন্য দিনটি বিশেষভাবে গর্বের, কারণ বাংলাদেশের উদ্যোগেই দিবসটি ‘জাতিসংঘ দিবস’ এর মর্যাদা লাভ করে।

সারা পৃথিবীতেই ডায়াবেটিস বাড়ছে। বাংলাদেশেও এখন রোগটির ব্যাপকতা অনেক বেশি। নগরায়ণের কারণে জীবনযাপন ও খাদ্যাভ্যাসে ব্যাপক পরিবর্তন এবং কায়িক পরিশ্রমের অভাবে ডায়াবেটিসের প্রকোপ দিনদিন বাড়ছেই। বর্তমানে সারা পৃথিবীতে ডায়াবেটিক রোগীর সংখ্যা প্রায় ৪৬ কোটি, যা ২০৩০ সালে ৫৮ কোটিতে পৌঁছাবে বলে বিশেষজ্ঞরা আশংকা করছেন। এ রোগের কারণে বাড়ছে হৃদরোগ, স্ট্রোক, কিডনি, চোখ, মাড়ির রোগ এবং পঙ্গুত্বসহ মৃত্যুর ঝুঁকিও।

এ অবস্থায়, ডায়াবেটিস রোগ প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণে সময়মতো চিকিৎসাসেবা নিতে হবে। যে কারণে এবার ‘‘বিশ্ব ডায়াবেটিস দিবস’ এর প্রতিপাদ্য স্থির করা হয়েছে ‘ডায়াবেটিস সেবা নিতে আর দেরি নয়’ (Access to diabetes care. If not now, when?)'  প্রতিপাদ্যটি যথার্থ হয়েছে বলে আমি মনে করি। ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণের লক্ষ্যে এখনই আমাদের প্রয়োজনীয় সেবা নিতে হবে। অন্যদেরকেও এ ব্যাপারে সচেতন করে তুলতে হবে। ডায়াবেটিস সম্পর্কে গণসচেতনতা সৃষ্টির জন্য কাজ করতে বাংলাদেশ ডায়াবেটিক সমিতির পাশাপাশি গণমাধ্যম, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনসহ বেসরকারি অন্যান্য সংস্থাকেও এগিয়ে আসার জন্য আমি আহ্বান জানাই।

আমি ‘বিশ্ব ডায়াবেটিস দিবস’ উপলক্ষ্যে গৃহীত সকল কর্মসূচির সাফল্য কামনা করি।
        জয় বাংলা।
    খোদা হাফেজ, বাংলাদেশ চিরজীবী হোক।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ১৪ নভেম্বর ‘বিশ্ব ডায়াবেটিস দিবস’ উপলক্ষ্যে নিম্নোক্ত বাণী প্রদান করেছেন :   
প্রতিবছরের মতো এবারও বাংলাদেশ ডায়াবেটিক সমিতির উদ্যোগে ‘বিশ্ব ডায়াবেটিস দিবস’ পালিত হচ্ছে জেনে আমি আনন্দিত। দিবসটির এবারের প্রতিপাদ্য- ‘ডায়াবেটিস সেবা নিতে আর দেরি নয় (Access to diabetes care. If not now, when?)' যথার্থ হয়েছে বলে আমি মনে করি।

ডায়াবেটিস সারা জীবনের রোগ। কিন্তু একে সুনিয়ন্ত্রিত রাখতে পারলে সুস্থ ও স্বাভাবিক জীবন যাপন করা সম্ভব। কাজেই ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে রাখতে হলে আমাদের ডায়াবেটিসের ঝুঁকিসমূহ সম্পর্কে জানতে হবে, অন্যদেরকেও অবহিত করতে হবে। কারণ, ডায়াবেটিস সম্পর্কে সচেতনতার অভাবে এ দেশে প্রতিবছর অসংখ্য ডায়াবেটিক রোগী হৃদরোগ, স্ট্রোক, কিডনি রোগ, চোখের রোগ ও মাড়ির রোগে আক্রান্ত হন। অনেকে পঙ্গুত্ববরণ করা ছাড়াও নানা শারীরিক জটিলতার শিকার হন, এমনকি অনেকে মৃত্যুবরণ করেন। কাজেই, এ রোগ সম্পর্কে জনগণকে ব্যাপকভাবে সচেতন করে তুলতে হবে।

আওয়ামী লীগ সরকার সব সময়েই জনগণের সুস্বাস্থ্য রক্ষায় নানা কর্মসূচি গ্রহণ করে আসছে। আমরা জনগণের দোরগোড়ায় স্বাস্থ্যসেবা পৌঁছে দিতে নিরলস কাজ করে যাচ্ছি। একটি গণমুখী স্বাস্থ্যনীতি প্রণয়ন করে তা বাস্তবায়নে আমরা কাজ করছি। সারাদেশে সকল হাসপাতালে শয্যা সংখ্যা বৃদ্ধির পাশাপাশি নতুন নতুন মেডিকেল কলেজ, নার্সিং কলেজ ও নার্সিং ইনস্টিটিউট এবং মেডিকেল এসিস্ট্যান্ট ট্রেনিং স্কুল প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে। এরই মধ্যে তৃণমূল পর্যায়ে স্বাস্থ্যসেবা বিস্তৃত করতে দেশব্যাপী সকল উপজেলায় এবং ইউনিয়ন পর্যায়ে কমিউনিটি ক্লিনিক ও স্বাস্থ্যকেন্দ্র প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে। ডায়াবেটিস প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণে আামাদের সরকারের সহায়তা অব্যাহত থাকবে।

আমি ‘বিশ্ব ডায়াবেটিস দিবস ২০২১’ উপলক্ষ্যে গৃহীত সকল কর্মসূচি’র সার্বিক সাফল্য কামনা করি।
জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু
বাংলাদেশ চিরজীবী হোক।

ঢাকানিউজ২৪.কম / কেএন

জাতীয় বিভাগের জনপ্রিয় সংবাদ

banner image
banner image