• ঢাকা
  • বুধবার, ২ ভাদ্র ১৪২৯ বঙ্গাব্দ; ১৭ আগষ্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image

আদালতের ১৪৪ ধারা বাস্তবায়নে বাঁধা,  এক পুলিশ আহত


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: মঙ্গলবার, ২৮ সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ০৫:৩৬ পিএম
আহত পুলিশ কর্মকর্তাকে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেয়া হয়

 

মো. আবু জাফর সিদ্দিকী, নাটোর প্রতিনিধি: নাটোরের সিংড়ায় আদালতের ১৪৪ ধারা বাস্তবায়নে গিয়ে বাধা ও মারপিটে আহত হয়েছে এক পুলিশ কর্মকর্তা। গত রোববার সকালে উপজেলার বিলদহরে এ ঘটনা ঘটে। পরে আহত পুলিশ কর্মকর্তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেয়া হয়।

স্থানীয় ও থানা সূত্রে জানা যায়, সিংড়া উপজেলার চামারী ইউনিয়নের বিলদহর বাজারে মার্কেট নির্মাণ করে ওসমান গনি ফরদু ও শাহাবুদ্দিন নামের দুই সহোদর। তাঁরা মহিষমারী গ্রামের মৃত আছির উদ্দিন ওরফে তুলাই মোল্লার ছেলে। সীমানা সংক্রান্ত বিরোধে ২০২০ সালে নাটোর আদালতে মামলা করেন শাহাবুদ্দিন এর ছেলে রফিকুল ইসলাম। মামলার নম্বর ২৭৫পি/২০২০।

আদালত মামলার পরিপ্রেক্ষিতে ১৪৪ ধারা জারি করে। চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে ওসমান গনি ফরদুকে কাজ করতে নিষেধ করা হয়। সে নির্মাণ কাজ বন্ধ রাখে। এ দিকে ১০ রা সেপ্টেম্বর পুনরায় আদালত উভয় পক্ষের উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করে। আদালতের আদেশ অমান্য করে ২৪ সেপ্টেম্বর কাজ শুরু করলে নিষেধ করা হয়। পরবর্তীতে ২৬ সেপ্টেম্বর ভোর হতে পুনরায় কাজ শুরু করে ওসমান গনি।

পরে সিংড়া থানা পুলিশের এএসআই সানোয়ার হোসেন এর নেতৃত্বে এসআই শিবলী জামান, এসআই মাহবুব কবির, এসআই তবিবর রহমান ও এএসআই আনোয়ার হোসেন ঘটনাস্থলে গিয়ে কাজ করতে নিষেধ করলে ওসমান গনি পুলিশ কর্মকর্তাদের উপর চড়াও হয়। এক পর্যায়ে এএসআই সানোয়ার হোসেনের শার্টের কলার ধরে ধস্তাধস্তি করে এবং লোহার রড দিয়ে বাম পায়ে আঘাত করে ওসমান গনি। এসময় তাঁকে আটক করে পুলিশ। আটক ওসমান গনির বিরুদ্ধে সরকারি কাজে বাধা প্রদান, আক্রমণ ও মারপিট জখম করার অপরাধে সিংড়া থানায় ১৮৮, ৩৫৩, ৩৩২ ও ৩৩৩ ধারায় মামলা দায়ের করেন এসআই মাহবুব কবির। মামলা নং ৩৮, তাং ২৬.০৯.২১।
গ্রেফতার ওসমান গনিকে আদালতে প্রেরণ করলে আদালত তাঁকে কারাগারে পাঠায়।

সোমবার সকাল ১১টায় বিলদহর বাজারে এএসআই সানোয়ার হোসেনের বিরুদ্ধে বিভাগীয় তদন্তের দাবিতে মানববন্ধন করেন গ্রেফতার ওসমান গনির পরিবারের সদস্য ও এলাকাবাসী।

ওসমান গনির স্ত্রী আর্জিনা বেগম বলেন, আদালত ১৪৪ ধারা জারি করলেও ইউপি চেয়ারম্যান রশিদুল ইসলাম মৃধার নির্দেশে কাজ করি। পুলিশ কাজ বন্ধ করতে বললে না শুনায় আমার স্বামীকে মারধর করে। এএসআই সানোয়ার হোসেন টাকা দাবি করলে ৪০ হাজার টাকা দেয়া হয়েছে, আরো এক লক্ষ টাকা দাবি করেছে সে।

এএসআই সানোয়ার হোসেন বলেন, আদালতের আদেশ বাস্তবায়ন করতে গিয়ে ওসমান গনির আঘাতে আহত হয়েছি। পরে সরকারি কাজে বাধা প্রদান করায় তাঁর বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। তাঁকে কোনো প্রকার মারধর করা হয়নি। আমার বিরুদ্ধে ঘুষ দাবির আনিত অভিযোগ মিথ্যা। তাঁরা কোনো প্রমাণ দিতে পারবে না।

এ বিষয়ে সিংড়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নূর-এ-আলম সিদ্দিকী বলেন, বিজ্ঞ আদালতের নির্দেশনা বাস্তবায়ন করতে গেলে পুলিশ কর্মকর্তাদের লাঞ্চিত করে ওসমান গনি। পরে তাঁকে আটক করা হয়। আদালতের ১৪৪ ধারা অমান্য করে কাজ করা ও পুলিশ কর্মর্কতাদের লাঞ্চিত করার বিষয়টি আঁড়াল করতে তাঁরা একটি বানোয়াট ও মিথ্যা মানববন্ধন করেছে।


সিংড়ায় ১০ হাজার তালের চারা রোপন করবে উপজেলা পরিষদ

নাটোর সংবাদদাতা
মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে, বজ্রপাত রোধে নাটোরের সিংড়ায় ১০ হাজার তালের চারা রোপন করবে উপজেলা পরিষদ। দুই হাজার চারা পরিষদের তত্ত¡াবধায়নে রোপন করা হবে আর বাঁকি আট হাজার বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, সামাজিক সংগঠন ও এনজিও'র মাঝে বিতরণ করা হবে।

মঙ্গলবার সকালে উপজেলা পরিষদ চত্বরে চারা রোপনের উদ্বোধন করেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. শফিকুল ইসলাম শফিক। এসময় উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এম এম সামিরুল ইসলাম, উপজেলা বন কর্মকর্তা মিজানুর রহমান, বিয়াম ল্যাবরেটরি স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ আজিজুর রহমান, উপজেলা পরিষদের সিএ মাহাবুব হাসান প্রমুখ।

উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম বলেন, তালগাছে অপেক্ষাকৃত বেশি বজ্র আঘাত করে। তালগাছের মাধ্যমে বজ্রপাত প্রতিরোধ করা যায়। মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে উপজেলা ব্যাপী ১০ হাজার তালের চারা রোপন করা হবে।




 

ঢাকানিউজ২৪.কম / মো. আবু জাফর সিদ্দিকী

অপরাধ বিভাগের জনপ্রিয় সংবাদ

banner image
banner image