• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ৩ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ; ১৮ জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image
website logo

ফ্রান্সের দ্বিতীয় পর্যায়ের ভোটে মধ্য ও বামপন্থী দলগুলো ঐক্যবদ্ধ হচ্ছে


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: মঙ্গলবার, ০২ জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ০৪:০০ পিএম
দ্বিতীয় পর্যায়েও জোরালো সমর্থনের আহ্বান
ফ্রান্সের নির্বাচনে মধ্য ও বামপন্থীরা ঐক্যবদ্ধ হচ্ছে

নিউজ ডেস্ক:  প্রেসিডেন্ট মাখোঁর মধ্যপন্থী জোট ও বাম দলগুলোর জোট সোমবার পার্লামেন্ট নির্বাচনের আগামী ৭ জুলাই দ্বিতীয় পর্যায়ের ভোটের জন্য রণকৌশল স্থির করার উদ্যোগ শুরু করেছে ৷

ফ্রান্সে রোববারের নির্বাচনে কট্টর ডানপন্থী ন্যাশনাল র‍্যালি (আরএন) দলের সাফল্যের পর দ্বিতীয় পর্যায়ের ভোটের আগে একতাবদ্ধ হওয়ার চেষ্টা করছে মধ্য ও বামপন্থী জোট ৷

প্রথম দফা নির্বাচনের প্রাথমিক ফল অনুযায়ী, মেরিন লা পেনের আরএন ৩৩ শতাংশ ভোট পেয়েছে। বামপন্থী নিউ পপুলার ফ্রন্ট জোট ২৮ শতাংশ ভোট পেয়েছে। আর মাখোঁর মধ্যপন্থী জোট পেয়েছে ২০ শতাংশ ভোট।

কিন্তু ৭ জুলাই দ্বিতীয় দফা ভোটের আগে দেখার বিষয় থাকছে, আরএন জাতীয় পরিষদে নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জন করতে পারে কি না। আরএন সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেলে সরকার গঠন করতে পারবে এবং লা পেনের মনোনীত জর্ডান বারদেলাকে (২৮) প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নিয়োগ করতে পারবে।

কোনো জোট সরাসরি একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা না পাওয়ায় দ্বিতীয় পর্যায়ে আবার ভোটগ্রহণ হবে ৷

কট্টর ডানপন্থী শক্তির উত্থান রুখতে তারা মতবিরোধ ভুলে ঐক্যবদ্ধ হয়ে ভোটারদের সামনে উপস্থিত হয়েছে ৷ 

প্রেসিডেন্ট মাখোঁর মধ্যপন্থী জোট ও বাম দলগুলোর জোট আগামী ৭ জুলাই দ্বিতীয় পর্যায়ের ভোটের জন্য রণকৌশল স্থির করার উদ্যোগ শুরু করেছে ৷

একাধিক জনমত সমীক্ষা অনুযায়ী বিরোধী ঐক্য সম্ভব হলে আরএন দল ২৮৯ আসনে জয়লাভ করে পার্লামেন্টে নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাবে না ৷ রোববার ফল প্রকাশের পর মাখোঁ কট্টর ডানপন্থীদের বিরুদ্ধে ব্যাপক গণতান্ত্রিক জোট গড়ার আহ্বান জানিয়েছিলেন৷ এএফপির সূত্র অনুযায়ী ইতোমধ্যেই মধ্যপন্থী ও বাম জোটের দেড়শোরও বেশি প্রার্থী সেই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন ৷

আরএন দল ভোটারদের উদ্দেশ্যে দ্বিতীয় পর্যায়েও জোরালো সমর্থনের আহ্বান জানিয়েছে ৷

প্রথম পর্যায়ে পার্লামেন্টে ৭৬টি আসনে চূড়ান্ত ফল স্থির হয়ে গেছে ৷ বাকি আসনগুলো দখলের জন্য মরিয়া হয়ে উঠেছে সেই দল ৷ কাঙ্ক্ষিত ফল পেলে ফ্রান্সের আধুনিক ইতিহাসে এই প্রথম কোনো কট্টর ডানপন্থী দল ক্ষমতায় আসবে ৷

ফ্রান্সে এমন পরিস্থিতির পরিপ্রেক্ষিতে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে দুশ্চিন্তা দেখা দিচ্ছে৷ জার্মান পররাষ্ট্রমন্ত্রী আনালেনা বেয়ারবক বলেন, 'ফ্রান্সে কট্টর ডানপন্থীদের সাফল্য উদ্বেগের কারণ ৷'

পোল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী ডোনাল্ড টুস্ক এই ফলকে ফ্রান্স ও ইউরোপের জন্য 'অত্যন্ত বিপজ্জনক' হিসেবে বর্ণনা করেছেন ৷ তবে ইতালির কট্টর ডানপন্থী প্রধানমন্ত্রী জর্জিয়া মেলোনি ও হাঙ্গেরির কট্টর জাতীয়তাবাদী প্রধানমন্ত্রী ফ্রান্সের নির্বাচনের ফলকে স্বাগত জানিয়েছেন ৷

ঢাকানিউজ২৪.কম / এইচ

আরো পড়ুন

banner image
banner image