• ঢাকা
  • শুক্রবার, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ; ২০ মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image

দুর্গাপুরে সম্পত্তি দখলের চেষ্টা ও চাঁদার অভিযোগ


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: রবিবার, ২৩ জানুয়ারী, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ০৫:৪৭ পিএম
সম্পত্তি দখলের চেষ্টা ও চাঁদার অভিযোগ
সম্পত্তি

দুর্গাপুর প্রতিনিধি, নেত্রকোনা: নেত্রকোনার দুর্গাপুরে ভিপি মোকদ্দমা ভূক্ত সম্পত্তি দখল চেষ্টা ও চাঁদা দাবীর অভিযোগ উঠেছে দুর্গাপুর পৌরসভাধীন চকলেংগুরা গ্রামের মৃত জমির মড়ল এর পুত্র মোঃ নয়ন মিয়া ও তার স্ত্রী মোছাঃ মানছুরা বেগম এর বিরুদ্ধে।

একই গ্রামের মৃত আমছর আলীর পুত্র মোঃ আহাম্মদ আলী গত ২৯/১২/২১ ইং তারিখে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক(রাজস্ব)বরাবর এই লিখিত অভিযোগ করেন। এর অনুলিপি দেন নির্বাহী কর্মকর্তা দুর্গাপুর,সহকারী কমিশনার(ভূমি)দুর্গাপুর ও ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা দুর্গাপুর সদর।

অভিযোগে জানাযায় মৃত আমছর আলীর পুত্র মোঃ আহাম্মদ আলী(৮৫) ১৯৮০ ইং সনের ডিসেম্বর মাসের ১৮ তারিখ ১৩৬৯ স্মারকের আদেশমূলে এস.এ খতিয়ান ৬৬৩,১৮৯২ দাগে ৩২ শতাংশ। এস.এ খতিয়ান ৪৪৭,১৮৬৯ দাগে ৬ শতাংশ। ১৮৮৫ দাগে ১২ শতাংশ ও ১৮৯১ দাগে ১৫ শতাংশ মোট ৬৫ শতাংশ ভূমি সরকার বাহাদুরের কাছথেকে লিজ প্রাপ্ত  হয়, যার মোকদ্দমা নং ২৮১/৬৮-৬৯। উক্ত ভূমি লিজ প্রাপ্তি হওয়ার পরথেকেই অর্থাৎ ৪২ বছর যাবত বছর বছর ডিসিআর প্রাপ্ত হয়ে আসছেন আহাম্মদ আলী।

এই জমি দখলে নেয়ার জন্যে অপর একটি মহল উঠে পরে লেগেছে। তিনি জানান অভিযুক্ত ব্যক্তিরা ওয়ারিশান দাবী করে ঐ জমি দখলের চেষ্টা চালায় এবং আমার নিকট টাকা দাবী করে। আমি অপারকতা স্বীকার করলে তারা আমার লিজ নেওয়া সম্পতির বেড়া ভাঙ্গিয়া ও সিমানা খুটি উপরাইয়া নিয়াযায়।

এই অবস্থায় ঐ দম্পত্তির ইন্দনে ও প্রত্যক্ষ সহায়তায় ঐ জমিতে এই গ্রামের মৃত ওয়াহেদ আলীর পুত্রদ্বয় আলমগীর মীর্ধা(৪৫),ফরহাদ মীর্ধ(৫০)ও খলিল মীর্ধা(৫২) এর মাধ্যমে রাতের অন্ধকারে সরকারী সম্পত্তিতে চালাঘর উত্তোলন করে দখল প্রচেষ্টা অব্যাহত রেখেছে। চাঁদা দাবীর বিষয়ে নয়ন দম্পত্তি বলেন এ অভিযোগ আদৌ সত্য নয় এটি মিথ্যা ও অযৌক্তিক দাবী।

এ বিষয়ে গত ২০ জানুয়ারী ২২ বৃহস্পতিবার দুর্গাপুর থানা অফিসার ইন-চার্জ বরাবর একটি অভিযোগ দায়ের করেন আহাম্মদ আলী। রাতেই ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে পুলিশ।
এ বিষয়ে সহকারী কমিশনার(ভূমি)মোঃ আরিফুল ইসলাম প্রতিবেদককে বলেন সরকারের জমি যাকে লিজ দেওয়া হয়েছে সন সন খাজনাদি পরিশোধ থাকলে তিনিই জমির অস্থায়ী মালিক, এখানে অন্যের দখল চেষ্টা বা মালিকানা বা ওয়ারিশান দাবী করার কোন সুযোগ নাই। ঘর সরিয়ে নেওয়ার লোক পাঠিয়ে খবর দিয়েছি, তাছাড়া গতকাল শনিবার সারে ১২টার দিকে আমি নিজে ঘটনাস্থলে গিয়ে চালাঘর সরিয়ে নেওয়ার জন্য মৌখিকভাবে চুরান্ত বার্তা দিয়ে এসেছি।  
অপরদিকে নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ রাজীব-উল আহসান বলেন বিষয়টি আমি অবগত আছি, যেহেতু এটি সরকারের সম্মত্তি সেইহেতু লিজগ্রহীতার পক্ষে অবস্থান নিয়ে আমরা প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিব।
সাহাদাত হোসেন কাজল

 

ঢাকানিউজ২৪.কম / সাহাদাত হোসেন কাজল/কেএন

অপরাধ বিভাগের জনপ্রিয় সংবাদ

banner image
banner image