• ঢাকা
  • শনিবার, ১৫ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ; ২৮ জানুয়ারী, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image

সংযোগ সড়ক না থাকায় বিপাকে শিক্ষার্থীসহ দুই গ্রামের মানুষ


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: বৃহস্পতিবার, ১৫ ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ০৪:৪২ পিএম
বিপাকে শিক্ষার্থীসহ দুই গ্রামের মানুষ
সংযোগ সড়ক

বিজয় কর রতন, মিঠামইন (কিশোরগঞ্জ) প্রতিনিধিঃ ব্রিজ দাঁড়িয়ে আছে দুইপাশে সংযোগ সড়ক না থাকায় আসছে না কোন কাজে তার বদলে দুর্ভোগে পড়তে হচ্ছে দুই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রায় ১১শ শিক্ষার্থী সহ দুই গ্রামের কয়েক হাজার লোকজন। 

কিশোরগঞ্জের হাওর উপজেলা অষ্টগ্রামের কলমা ইউনিয়নের সাপান্ত বাজুরী ও চৌদন্ত বাজুরী দুই গ্রামের মাঝখানে ত্রান ও দুর্যোগ মন্ত্রণালয়ের একটি ব্রিজ এখন যেন শিক্ষার্থী ও দুই গ্রামবাসীর গলার কাঁটা হয়ে দাড়িয়ে থাকলেও এই বিষয়ে দেখার যে কেউ নেই। এলাকাবাসীরা জানান, বেশ কয়েক বছর আগে ত্রান ও দুর্যোগ মন্ত্রণালয়ের অধিনে এই ব্রিজটি করা হলেও সংযোগ সড়ক না করার কারনে দুই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ১১ শতাধিক শিক্ষার্থীসহ এলাকাবাসীর কোন কাজে আসছে না। 

বুধবার ১৪ই ডিসেম্বর সরেজমিনে গিয়ে দেখা গিয়ে দেখা যায়, কয়েক লক্ষাধিক টাকা ব্যয়ে ব্রিজটির একপাশে  মোহনতলা উচ্চ বিদ্যালয় আরেক পাশে সাপাপ্ত বাজুরী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মধ্যেখানে এই ব্রিজটি দাঁড়িয়ে আছে নেই ব্রিজের দুই পাশে কোন সংযোগ সড়ক। 

সাপান্ত গ্রামের রাখেস দাস নামে একজন বলেন, এই ব্রিজটি বেশ কয়েক বছর বছর আগে ত্রান ও দুর্যোগ অধিদপ্তরের মাধ্যমে হয়েছিল কিন্তু ব্রিজ করার পর থেকে সংযোগ সড়ক নেই, গত বছর পিআইও অফিস থেকে লোকজন এসে মাপ যোগ করে গেলেও সংযোগ সড়কের কোন ব্যবস্থা দেখা যায় না। মোহনতলা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক গিরেন্দ্র দাস জানান,বর্ষা মৌসুমে শিক্ষার্থীরা এই ব্রিজ ব্যবহার করতে গেলে মাঝেমধ্যে ব্রিজ থেকে পড়ে গিয়ে দুর্ঘটনার কবলে পড়তে হয় এমন কি শিক্ষার্থীদের বই খাতা পানিতে পড়তে দেখা যায়। 

মোহনতলা উচ্চ বিদ্যালয়ে সভাপতি রামচরন দাস বলেন, এই ব্রিজটির দুই পাশে কোন সংযোগ সড়ক না থাকার কারণে প্রায়ই দুর্ঘটনায় পড়তে হচ্ছে দুই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রায় এগারো শতাধিক শিক্ষার্থীসহ এলাকার লোকজন। 

এই বিষয়ে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তার কার্যালয়ে গিয়ে এই সম্পর্কিত তথ্য চাইলে প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (পিআইও) মোঃ আলমাস উদ্দিন ব্রিজটি তাদের দপ্তরের জানালেও এই বিষয়ে তথ্য দিতে তালবাহানা করেন। 

এই বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএন"র) সরকারি মোবাইল ফোনে একাধিক কল দিলেও রিসিভ না করায় তার বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

ঢাকানিউজ২৪.কম / কেএন

সারাদেশ বিভাগের জনপ্রিয় সংবাদ

banner image
banner image