• ঢাকা
  • রবিবার, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ; ২২ মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image

তীব্র রাজনৈতিক সংকটের মুখে পাকিস্তান


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: সোমবার, ২১ মার্চ, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ০৪:৫৩ পিএম
আসন্ন ভোটাভুটি নিয়ে সেনাপ্রধান জাভ
প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান

নিউজ ডেস্ক:    তীব্র রাজনৈতিক সংকটের মুখে পাকিস্তানের ক্ষমতাসীন রাজনৈতিক দল তেহরিক-ই-ইনসাফ। দলটির প্রতিষ্ঠাতা সদস্য নাজিব হারুন বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের পদত্যাগই দেশের চলমান সংকট অবসানের একমাত্র উপায়। এদিকে, ইমরান খানের বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রস্তাবের তারিখ ঘনিয়ে আসছে। পিটিআইয়ের একজন এমপি জানিয়েছেন, ইতোমধ্যে তিনজন ফেডারেল মন্ত্রী পিটিআই থেকে পদত্যাগও করেছেন।

পায়ের নীচে চোরাবালি, দলের নেতাদের সমর্থন হারাচ্ছেন ইমরান খান। ক্ষমতাসীন দল তেহরিক-ই-ইনসাফের বেশ কয়েকজন শীর্ষ নেতা ইতিমধ্যেই সমর্থন তুলে নিয়েছেন। এমন পরিস্থিতিতে জোট সরকার চালাচ্ছে দলটি।

এ অবস্থায় পাকিস্তানের সেনাপ্রধান জাভেদ বাজওয়ার সাথে দেখা করেছেন ইমরান খান। ওআইসির সম্মেলন, বেলুচিস্তানের চলমান অস্থিরতা ও অনাস্থা প্রস্তাবে আসন্ন ভোটাভুটি নিয়ে সেনাপ্রধান জাভেদ বাজওয়ার সঙ্গে ইমরান খানের আলোচনা হয়েছে বলে ধারনা করা হচ্ছে।

এদিকে এ বৈঠকের পর এক টুইটবার্তায় পাকিস্তান মুসলিম লীগের ভাইস প্রেসিডেন্ট মরিয়ম নওয়াজ লিখেছেন: ‘ইমরান খান সরকার টিকিয়ে রাখতে পারবেন না।

বিরোধীরা দেশ, অর্থনীতি ও বিদেশনীতির ব্যর্থতার জন্য ইমরান খানকেই দায়ী করছে। গত সপ্তাহে পার্লামেন্টে অনাস্থা প্রস্তাব আনার পর ভোট হতে পারে এই মাসেই।

শুক্রবার জেনারেল বাজওয়ার সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন ইমরান। বৈঠকে অনাস্থা প্রস্তাব থেকে শুরু করে বেলুচিস্তানে বিদ্রোহীদের কার্যকলাপ নিয়েও আলোচনা হয়েছে। পাকিস্তানে অনুষ্ঠিত হতে চলা ‘ওআইসি’ বা ইসলামিক দেশগুলির বৈঠকে কাশ্মীর প্রসঙ্গ উত্থাপনের বিষয় নিয়েও আলোচনা করেছেন তাঁরা। পাকিস্তান সংবাদমাধ্যম ক্যাপিট্যাল টিভির দাবি, পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফ অর্থাৎ দেশের শাসকদলের বহু নেতা অধীর আগ্রহে ইমরান খান ও সেনাপ্রধান বাজওয়ার আলোচনার দিকে তাকিয়ে রয়েছেন। কারণ, এই আলোচনার মধ্যমেই ফের সেনার নেকনজরে আসার চেষ্টা করছেন ইমরান। আর সর্বশক্তিমান পাকিস্তান সেনাবাহিনীর হাত মাথায় না থাকলে সরকার বাঁচাতে পারবেন না ইমরান।

ইমরান খানকে প্রধানমন্ত্রী পদে বসানোর নেপথ্যে যে পাকিস্তান সেনা তা কারণ অজানা নেই। দুর্নীতি দমন ও নতুন পাকিস্তান গড়ার প্রতিশ্রুতিতে মসনদে বসলেও ইমরানের শাসনকালে অর্থনৈতিক বিপর্যয়ের মুখোমুখি হয় দেশ। করোনা পরিস্থিতিতে দেশের অর্থনৈতিক অবস্থায় শোচনীয় হয়ে যাওয়ার জন্য সাধারণ পাকিস্তানি নাগরিক তাঁর দিকেই আঙুল তুলেছেন।

ঢাকানিউজ২৪.কম /

আর্ন্তজাতিক বিভাগের জনপ্রিয় সংবাদ

banner image
banner image