• ঢাকা
  • বুধবার, ২০ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ; ০৫ অক্টোবর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image

গুইমারার ওয়াকছড়িতে কুঁড়ে ঘর আর ঝিরির পানিই একমাত্র ভরসা


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: রবিবার, ১১ সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ১২:৩০ পিএম
ঝিরির পানিই ভরসা
ওয়াকছড়ি কুঁড়ে ঘর

রিপন সরকার, খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি: খাগড়াছড়ি জেলার গুইমারা উপজেলার অনগ্রসর একটি জনপদ আগা ওয়াকছড়ি।  হাফছড়ি ইউপির দুই নম্বর ওয়ার্ডের এই গ্রামটিতে অর্ধশত মারমা জনগোষ্ঠী পরিবারের দুর্বিসহ জীবন-যাপন। নেই কোন বিশুদ্ধ পানিয় জলের ব্যাবস্থা  একমাত্র ঝিরির ময়লাক্ত পানিতে খাওয়া, গোসল, রান্নাবান্না। আর অধীকাংশ পরিবারই  ছন ও বেড়ার ছাপরার নিচে দুর্বিসহ জীবন-যাপন করছে। 

মানিকছড়ি উপজেলার জামতলা থেকে পূর্বদিকে ৮/৯ কিলোমিটার  দুর্গম রাস্তা পেরিয়ে আগা ওয়াকছড়ি।  সেখানে এক, একটি টিলায় একটি মারমা পরিবার ছোট্ট, ছোট্ট, ছনের ঘরে বসবাস। কোন, কোন ঘরের চারপাশ খোলা।

আর এই বিশাল এলাকায় অর্ধশত পরিবার বসবাস করলে কোথাও টিউবওয়েল বা কূয়া বা ছড়াও নেই। একটি মাত্র ঝিরি থেকে মগ,থাল দিয়ে পানি তুলে কলসি বা পাতিলে ভরতে হয়। এক কলস পানিতে ভরতে ৫/৭ মিনিট সময় লাগে। এক জনের পর একজন অপেক্ষা করে পানি সংগ্রহ করতে হয়। 

এমন দুর্বিসহ পরিবেশে মানবেতর জীবনযাপন করছে মারমা পরিবারগুলো। গত কয়েকদিন আগে কয়েকজন সংবাদকর্মী এলাকাটিতে ঘুরতে গিয়ে এসব দৃশ্য চোখে পরে। কথা হয় এলাকার রাম্প্রু 
মারমা ও তার স্ত্রীর সাথে,  বাংলায় তেমন কথা বলতে না পারলেও খাদ্য, বস্ত্র, পানি ও খোলা ঘরে রাত্রি যাপনসহ দুর্বিসহ কষ্টের কথা সহজেই বুঝে নেওয়া যায়। তারা বললেন, এই এলাকায় কাজ-কর্ম নেই, স্বামীর একটি চোখ অন্ধ। বাচ্চাদের মুখে ঠিকমত ভাত দিতে পারি না। আর ভাত দিলেও পানি খেতে চাইলে মরে যেতে ইচ্ছা করে। কারণ পানির একমাত্র উৎস ওই দূরের ঝিরি। জঙ্গলে ঢাকা ঢালুতে গিয়ে ঘণ্টার পর ঘণ্টা দাঁড়িয়ে থেকে পানি তোলা খুব কষ্টদায়ক।

গ্রামের যুবক অংহ্লাপ্রু মারমা জানালেন, বাড়িতে মেহমান আসলে ভাত,তরকারী কম-বেশি খাওয়াতে পারি। কিন্তু পানি দিতে পারি না। নির্বাচন এলে মেম্বার, চেয়ারম্যান প্রার্থীরা আসে। ভোট শেষে, সব শেষ। আর কেউ আসে না। জঙ্গল মঙ্গল হয় না।

জনপদ অনগ্রসর ও পিছিয়ে থাকা মারমা জনগোষ্ঠীর দুর্ভোগের বিষয়টি স্বীকার করে ইউপি সদস্য উগ্য মারমা বলেন, এই দুর্গম এলাকায় বরাদ্দ আনার চেষ্টা করছি। গুইমারা উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক ও উপজেলা চেয়ারম্যান মেমং মারমা বলেন অতি সত্বর গ্রামটিতে বিশুদ্ধ পানিয় জলের চাহিদা পুরনসহ  উন্নয়ন মুলক কাজ শুরু করা হবে। 

ঢাকানিউজ২৪.কম / কেএন

সারাদেশ বিভাগের জনপ্রিয় সংবাদ

banner image
banner image