• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ২ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ; ১৮ জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image
website logo

আলোর মিছিলে গণহত্যার স্বীকৃতি দাবি


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: রবিবার, ২৬ মার্চ, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ, ১১:৫৮ এএম
কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার গণহত্যার কালরাত্রি সমাবেশ
গণহত্যার কালরাত্রি সমাবেশ

নিউজ ডেস্ক:   ১৯৭১ সালে এ রাতে ঢাকা শহরের আলো নিভিয়ে যে অপারেশন সার্চলাইটের অতর্কিত হত্যাযজ্ঞে মেতেছিল হানাদার বাহিনী, মর্মন্তুদ সেই রাতের গণহত্যার আন্তর্জাতিক স্বীকৃতির দাবি জানিয়েছে একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি।

শনিবার কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার থেকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জগন্নাথ হল পর্যন্ত ‘গণহত্যার কালরাত্রি সমাবেশ ও আলোর মিছিল’ থেকে এ দাবি জানানো হয়।

এ সময় অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি, ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন, সংসদ সদস্য আরমা দত্ত, বঙ্গবন্ধু গবেষক অধ্যাপক মুনতাসীর মামুন, কথা সাহিত্যিক জাফর ইকবাল, সাবেক রাষ্ট্রদূত অধ্যাপক ড. নিম চন্দ্র ভৌমিক, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি গোলাম কুদ্দুছ, প্রজন্ম একাত্তরের সাবেক সভাপতি সাইফুজ্জামান বাদশা।

প্রজন্ম একাত্তরের সভাপতি আসিফ মুনীর তন্ময় ঘোষণাপত্র পাঠ করেন। মুনীর চৌধুরীর পুত্র। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির সভাপতি শাহরিয়ার কবীর।

দীপু মনি বলেন, একটা অপশক্তি আমাদের স্বাধীনতার চর্চাকে রুখে দেয়ার চেষ্টা করে। তারা শহীদদের সংখ্যা নিয়ে বিতর্কিত করে। এদের বিরুদ্ধে আমাদের সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে রুখে দিতে হবে।

এরপর কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে ৫৩টি মোমবাতি জ্বালিয়ে আলোর মিছিল বের করা হয়। জাগরণ সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের শিল্পীদের কণ্ঠে আগুনের পরশমণি গানের সুরে আলোর মিছিলে অংশ নেন সকল স্তরের মানুষ।

রাত সাড়ে ১০টায় মশাল ও মোমবাতি হাতে ‘আলোর মিছিল’ নিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জগন্নাথ হলের গণকবরে উপস্থিত হন সবাই। এ সময় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন হল থেকে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরাও মোমবাতি নিয়ে তাদের সঙ্গে যোগ দেন। সেখানে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে পাকিস্তানি হানাদারদের হাতে নিহত শহীদদের প্রতি সম্মান জানিয়ে কিছু সময় নীরবতা পালন করা হয়।

এর আগে রাত সাড়ে নয়টায় এ আয়োজন শুরু হয়। এ সময় গান ও সাংস্কৃতিক পরিবেশনায় অংশ নেয় সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট, জাগরণ সাংস্কৃতিক কেন্দ্রসহ বিভিন্ন সংগঠন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ‘গণহত্যা দিবস’ পালিত: গণহত্যা দিবস উপলক্ষে সন্ধ্যা ৭টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের স্মৃতি চিরন্তন চত্বরে মোমবাতি প্রজ্বলন ও শহীদদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করা হয়। পরে উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত বিশ্ববিদ্যালয় পরিবারের সদস্যরা বক্তব্য রাখেন। সভার শুরুতে গণহত্যার ওপর একটি ডকুমেন্টারি প্রদর্শন করা হয়।

রাত সাড়ে দশটায় উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামানের নেতৃত্বে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা জগন্নাথ হল গণসমাধিতে মোমবাতি প্রজ্বলন ও শহীদদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেন। এ সময় অন্যান্যের মধ্যে জগন্নাথ হল প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. মিহির লাল সাহা উপস্থিত ছিলেন।

ঢাকানিউজ২৪.কম /

আরো পড়ুন

banner image
banner image