• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ১৪ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ; ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image

চাঁদের উদ্দেশে পরীক্ষামূলক যাত্রা শুরু করতে যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: সোমবার, ২৯ আগষ্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ১১:০৩ এএম
যুক্তরাষ্ট্র চাঁদের উদ্দেশে
চাঁদের বুকে ফিরতে চাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রের মহাকাশ গবেষণা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক :  অ্যাপোলো যুগের ৫০ বছর পরে আবারও চাঁদের বুকে ফিরতে চাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রের মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসা। এ জন্য প্রস্তুত করা বিশাল স্পেস লঞ্চ সিস্টেম (এসএলএস) রকেট আর্টিমেস-১ আজ চাঁদের উদ্দেশে পরীক্ষামূলক যাত্রা শুরু করতে যাচ্ছে। স্নায়ুযুদ্ধের পরে চাঁদকে কেন্দ্র করে আর্টিমেস প্রজেক্টই হতে যাচ্ছে সবচেয়ে বড় বৈজ্ঞানিক কর্মকাণ্ড।

যুক্তরাষ্ট্রের স্থানীয় সময় সকাল ৮টা ৩৩ মিনিটে ফ্লোরিডার কেনেডি স্পেস সেন্টার থেকে যাত্রা শুরু করবে আর্টিমেস-১। নাসার ইউটিউব চ্যানেলে এই উৎক্ষেপণ সরাসরি দেখা যাবে।

আর্টিমেস-১ উৎক্ষেপণ সরাসরি দেখতে যুক্তরাষ্ট্রের ভাইস প্রেসিডেন্ট কামালা হ্যারিস কেনেডি স্পেস সেন্টারে উপস্থিত থাকবেন। এই বিশালাকৃতির রকেটটি ওরিয়ন নামের একটি মনুষ্যবিহীন ক্যাপসুলকে পরীক্ষামূলকভাবে চাঁদের চারপাশে চালিত করবে।

২০২৫ সালের মধ্যে চাঁদে ফিরতে চায় নাসা। এই লক্ষ্যকে সামনে রেখেই এসএলএসের পরীক্ষামূলক কার্যক্রম জোরদার করতে এটি উৎক্ষেপণ করতে যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রের এই মহাকাশ গবেষণা সংস্থা।

নাসার পক্ষ থেকে জানিয়ে দেয়া হয়েছে, যদি আবহাওয়াগত ও প্রযুক্তিগত কারণে আজ রকেটটি উৎক্ষেপণ করা না হয়, তবে ২ সেপ্টেম্বর অথবা ৫ সেপ্টেম্বর এটি মহাকাশে পাড়ি জমাবে।

শনিবার ফ্লোরিডায় হওয়া এক ঝড়ে কেনেডি স্পেস সেন্টারের রকেট উৎক্ষেপণ সাইটে বাজ পড়েছিল। তবে নাসা জানিয়েছে, স্পেসক্র্যাফট বা লাঞ্চিং সিস্টেমের কোনো ক্ষতি হয়নি।

যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, এবার সেখানে ঘুরে আসতে নয়, স্থায়ীভাবে থাকতে চায় তারা। প্রথমবারের মতো এই মিশনে চাঁদের বুকে পা রাখবেন একজন নারী নভোচারী। এর আগে অ্যাপোলো মিশনগুলোতে কোনো নারীকে পাঠানো হয়নি।

আগের চন্দ্রাভিযানের নামকরণ করা হয়েছিল গ্রীক চন্দ্রদেবতা অ্যাপোলোর নামানুসারে। এবার যেহেতু চাঁদে প্রথম নারীর পদচিহ্ন পড়তে যাচ্ছে, তাই অ্যাপোলোরই যমজ বোন আর্টিমেসের নামেই এই মিশনের নামকরণ করা হয়েছে।

১৯৬৯ সালে অ্যাপোলো-১১ দিয়ে শুরু হওয়া পাঁচটি মিশনে মোট ১০ জন নভোচারী চাঁদের বুকে হেঁটেছেন।

তবে এই আর্টিমেস এসএলএস রকেট দিয়ে নাসা শুধু চাঁদেই যেতে চায়- এমন নয়। এই রকেটেই ২০৩০ সালের মধ্যে মঙ্গলে পাড়ি জমাতে চায় তারা। ৩২২ ফুট লম্বা এই রকেটই হতে যাচ্ছে মহাকাশে যাওয়া এখন পর্যন্ত বিশ্বের সবচেয়ে বড় রকেট।

এ বছরই পরীক্ষামূলকভাবে অরবিটালে পাড়ি জমাবে ইলন মাস্কের মহাকাশ গবেষণা প্রতিষ্ঠান স্পেসএক্সের রকেট স্টারশিপ। তখন স্পেসএক্সই হবে সবচেয়ে বড় রকেট, যার উচ্চতা ৩৯০ ফিট।

ঢাকানিউজ২৪.কম / কেএন

আর্ন্তজাতিক বিভাগের জনপ্রিয় সংবাদ

banner image
banner image