• ঢাকা
  • সোমবার, ৩০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ; ১৫ জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image
website logo

নোট-গাইডের ব্যবসা চলবে না, নতুন শিক্ষাক্রমে বিরোধিতা: শিক্ষামন্ত্রী


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: শুক্রবার, ২৪ মার্চ, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ, ০৩:০২ পিএম
নোট-গাইডের ব্যবসা চলবে না, নতুন শিক্ষাক্রমের বিরোধিতা
শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি

ডেস্ক রিপোর্টার : শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, কারো কোচিং ব্যবসা ক্ষতিগ্রস্ত হবে, কেউ কেউ ভাবছেন তাদের নোট-গাইডের ব্যবসা চলবে না। এজন্য নতুন শিক্ষাক্রমের বিরোধিতা করা হচ্ছে।

শিক্ষামন্ত্রী ২৩ মার্চ রাজধানীর শেরে বাংলা বালিকা মহাবিদ্যালয়ে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ম্যুরালের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে  প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন ঢাকা-৬ আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা কাজী ফিরোজ রশীদ, ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান তপন কুমার সরকার। বক্তব্য দেন প্রতিষ্ঠানের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মোঃ তোফায়েল আহমেদ ভূইয়া। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন মহাবিদ্যালয়ের গভর্নিং বডির সভাপতি মোঃ রিয়াজ উদ্দীন রিয়াজ।

ডা. দীপু মনি বলেন, আমাদের নতুন শিক্ষাক্রম শুরু হয়েছে, একটা নতুন শিক্ষাক্রম চালু করতে হলে অনেক রকমের কিছু করতে হয়। সেখানে অনেক ঘাটতি থাকতে পারে, অনেক সমস্যা থাকতে পারে। কিন্তু এই শিক্ষাক্রম চালু হয়েছে, এটি চলবে। কেউ কেউ কোথাও কোথাও মনে করছেন তাদের কোচিং ব্যবসা ক্ষতিগ্রস্ত হবে, কোচিং ব্যবসা চলবে না। কেউ কেউ ভাবছেন তাদের নোট-গাইডের ব্যবসা চলবে না। সেই কারণে অনেকে বিরোধিতা করছেন। মন্ত্রী বলেন, নতুন কারিকুলাম থাকবে, নতুন শিক্ষাক্রম অনুযায়ী আমাদের শিক্ষার্থীরা জেনে বুঝে শিখে দক্ষ-যোগ্য মানুষ হবে। আমরা অনেক বেশি বিজ্ঞান-প্রযুক্তির উপর যেমন জোর দিচ্ছি, একই সঙ্গে মানবিক সৃজনশীল মানুষ হওয়া জরুরি।

মন্ত্রী বলেন, আওয়ামী লীগ তার জন্মলগ্ন থেকে আজ পর্যন্ত ইসলাম বিরোধী বা ইসলামের সাথে সাংঘর্ষিক কোনো কিছু করেনি, কোনো দিন করবেও না। কাজেই এই নতুন শিক্ষাক্রম নিয়ে যে সব মিথ্যাচার, অপপ্রচার হচ্ছে সেগুলো মিথ্যাচার, সেগুলো অপপ্রচার। সেগুলো প্রতিহত করতে

মন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের এই দেশটা বঙ্গবন্ধু স্বাধীন করে দিয়েছিলেন, আমরা সেই দেশটাকে এগিয়ে নিয়ে যাবার চেষ্টা করছি বঙ্গবন্ধু কন্যার নেতৃত্বে। এই দেশ আজকে ডিজিটাল বাংলাদেশ হয়েছে, আগামী দিনে স্মার্ট বাংলাদেশ হবে। যেখানে থাকবে স্মার্ট নাগরিক, স্মার্ট সরকার, স্মার্ট অর্থনীতি, স্মার্ট সমাজ। আর এর কেন্দ্রে রয়েছে স্মার্ট নাগরিক। আর সেই স্মার্ট নাগরিক কিন্তু আপনারাই, আমাদের শিক্ষার্থীরাই। আপনারা স্মার্ট নাগরিক হবেন স্মার্ট শিক্ষার মাধ্যমে। সেই স্মার্ট শিক্ষার ব্যবস্থা করবার জন্য সরকার নিরলসভাবে কাজ করে চলেছে।’

ঢাকানিউজ২৪.কম / কেএন

আরো পড়ুন

banner image
banner image