• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ১২ মাঘ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ; ২৫ জানুয়ারী, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image

নাসিরনগরে চ্যাপা শুটকী তৈরীর ধুম


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: সোমবার, ২২ নভেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ০৯:৫৬ পিএম
নদী থেকে কাচা  পুঁটি মাছ ধরা ও শুকানোর সময়
কাচা পুঁটি মাছ ধরা ও শুকানো হচ্ছে

মনিরুজ্জামান মনির, ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা প্রতিনিধি:   ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জেলার নাসিরনগর উপজেলার জেলে পল্লীতে এখন শুটকী তৈরীর ধুম পড়েছে। উপজেলার খাদ্য গুদামের পূর্ব ও পশ্চিম পাশে গড়ে উঠেছে বেশ কয়েকটি শুটকী তৈরীর মাঁচা। আশ্বিন, কার্তিক, অগ্রহায়ন ও পৌষ এই চার মাস নদী থেকে কাচা  পুঁটি মাছ ধরা ও শুকানোর সময়।

প্রতিবছর এ সময় নাসিরনগরে ৪ থেকে ৫ কোটি টাকার পুঁটি মাছের শুটকী বিক্রি করা হয় বলে জানান স্থানীয় ব্যবসায়ীরা। এ বছর নাসিরনগরে শুটকী শুকানোর প্রায় ১৩টি বাঁশের মাঁচা তৈরী করা হয়েছে। খোলা আকাশের নীচে নদী থেকে ধরে পুঁটি মাছ শুকিয়ে প্রস্তুত করা হচ্ছে চ্যাপা শুটকী।

ব্যবসায়ীরা জানান চলতি শুটকী তৈরীর মৌসুমে প্রায় দুই শতাধিক নারী পুরুষ শ্রমিক মিলে শুটকী তৈরীর কাজ করছে।  উপজেলার বিভিন্ন জায়গা মেদীর হাওড়, উত্তরবাল্লা, আটওয়ারী, বালিঙ্গা ও লঙ্গন নদীতে জালের মত ছড়িয়ে ছিটিয়ে রয়েছে। এ সমস্ত মিঠা পানির বিল থেকে পুঁটি মাছ ধরে সুস্বাদু চ্যাপা শুটকী তৈরী করা হয়। কোন প্রকার রং বা ক্যামিকেল ব্যবহার করা হয়নি। সম্পূর্ণ প্রাকৃতিক ভাবে তৈরী হয় বলে এ শুটকীর যথেষ্ট সুনাম ও সুখ্যাতি রয়েছে।

নাসিরনগর ভিটাডুবী ডিঘর মৎস্যজীবি সমবায় সমিতির সাধারণ সম্পাদক পরিমল দাসের সাথে কথা বললে তিনি জানান, এই ব্যবসায় অনেকেই স্বাবলম্বী হয়েছে। নাসিরনগরে উৎপাদিত চ্যাপা শুটকী কিশোরগঞ্জ, হবিগঞ্জ, সিলেট, নরসিংদী, সুনামগঞ্জ ও রাজধানী ঢাকা সহ বিভিন্ন দেশেও রপ্তানি হচ্ছে।

উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা শুভ্র সরকারের সাথে কথা বললে তিনি বলেন, স্বাস্থ্য সম্মত উপায়ে কিভাবে শুটকী তৈরী করা যায় সে বিষয়ে প্রশিক্ষণের জন্য আমরা একটি তালিকা প্রণয়ন করেছি।

ঢাকানিউজ২৪.কম /

সারাদেশ বিভাগের জনপ্রিয় সংবাদ

banner image
banner image