• ঢাকা
  • বুধবার, ২ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ; ১৭ জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image
website logo

ময়মনসিংহে গ্যাসলাইন ফেটে গেছে, বিদ্যুৎ উৎপাদন বন্ধ 


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: মঙ্গলবার, ২৫ জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ০৫:০০ পিএম
ময়মনসিংহে
গ্যাসলাইন ফেটে গেছে

ময়মনসিংহ প্রতিনিধি : তিতাস গ্যাসের ক্রয়কৃত নিজস্ব জমির উপর দিয়ে গ্যাসের পাইপলাইন বিদ্যমান থাকলেও অন্যায় ও অবৈধ উপায়ে গ্যাসের জায়গায় জবরদখল করে একটি কোম্পানির পাইলিং করতে গিয়ে ঢাকা- ময়মনসিংহ তিতাস গ্যাস সঞ্চালন পাইপ লাইনটিতে আঘাত করে ফুটো করে দিয়েছে। ওই ছিদ্র দিয়ে লাখ লাখ টাকার গ্যাস আকাশে উড়ে গিয়েছে। এতে ময়মনসিংহ ও নেত্রকোনা জেলার ৪০ হাজার আবাসিক গ্রাহক, ১৪ টি সিএনজি পাম্প শতাধিক শিল্পকারখানা সহ শম্ভুগঞ্জ আরপিসি'র বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্র বন্ধ রয়েছে। বলে গ্যাস না পেয়ে  মানুষ নানা দুর্ভাগ্যের শিকার হচ্ছেন।

বাসা বাড়িতে সরবরাহ বন্ধ থাকায় শহরের হোটেল গুলোতে দুপুরের খাবার সংগ্রহ করতে ভীড় দেখা যায়। 

সোমবার সকালে ময়মনসিংহের ত্রিশালে ঢাকা-ময়মনসিংহ তিতাস গ্যাস সঞ্চালন লাইনটির উপরে বেকু  চীনের একটি কোম্পানি পাইলিংয়ের কাজ করার সময় গ্যাসের লাইন ক্ষতিগ্রস্ত হয়।

১২ ইঞ্চি ব্যাসার্ধের গ্যাস সরবরাহের পাইপলাইনটিতে আঘাতে ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় মেরামতের লক্ষ্যে গত সোমবার রাত ১১টা থেকে ময়মনসিংহ অঞ্চলে গ্যাস সরবরাহ বন্ধ করে দেয়া হয়। মঙ্গলবার বিকেল নাগাদ মেরামত শেষে সরবরাহ চালুর আশা করছে কর্তৃপক্ষ। 

ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে ত্রিশাল উপজেলার আমিরাবাড়ী ইউনিয়নের নারায়ণপুর গ্রামে মিনিস্টার হাইটেক পার্কের পাশে একটি চায়না কোম্পানির পাইলিং করতে গিয়ে সঞ্চালন লাইনে আঘাত লেগে ফেটে গেছে। গত সোমবার  সকাল সাড়ে আটটার দিকে এ ঘটনা ঘটে। দিনভর গ্যাস সরবরাহ স্বাভাবিক রাখলেও মেরামতকাজের জন্য রাত ১১টার পর গ্যাসলাইনে সরবরাহ বন্ধ করা হয় বলে জানান তিতাস গ্যাস কোম্পানি ময়মনসিংহের উপব্যবস্থাপনা পরিচালক (ডিএমডি) প্রকৌশলী কাজী মোহাম্মদ সাইদুল হাসান।

মঙ্গলবার দুপুর সোয়া তিনটায়  কাজী মোহাম্মদ সাইদুল হাসান  বলেন, ‘গ্যাস সঞ্চালন লাইনটি মেরামতের কাজ শুরু হয়েছে। বিকেল নাগাদ মেরামতকাজ শেষ হতে পারে। আমাদেরকে না জানিয়ে কোম্পানিটি আমাদের জায়গায় খোঁড়াখুঁড়ি করে গ্যাসলাইন ক্ষতিগ্রস্ত করেছে। গ্রাহকসেবা চালু হওয়ার পর ক্ষতিপূরণ আদায়ের কোম্পানির বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হবে।’

সোমবার রাত থেকে গ্যাসলাইনে সরবরাহ বন্ধ থাকায় ময়মনসিংহ, মুক্তাগাছা ও নেত্রকোনার গ্রাহকেরা বিপাকে পড়েছেন। নগরীর ভাটিকাশর এলাকার বাসিন্দা আব্দুল হক বলেন, গ্যাস না থাকায় বাসায় রান্না বন্ধ। বাইরে থেকে খাবার এনে সকালের নাশতা চালানো হয়েছে।

ময়মনসিংহ অঞ্চলে  ১৪টি গ্যাসভিত্তিক সিএনজি পাম্পে গ্যাস সরবরাহ বন্ধ থাকায় গাড়ি চালকেরা বিপাকে পড়েছেন। একটি বেসরকারি কোম্পানির গাড়ি চালান আবুল হোসেন। তিনি বলেন, গ্যাস না থাকায় বিকল্প উপায় হিসেবে তেল দিয়ে চালাতে হচ্ছে। অনেক গাড়ি গ্যাসের জন্য পাম্পগুলোতে অবস্থান করছে।

তিতাসের ময়মনসিংহের আঞ্চলিক বিক্রয় বিভাগের উপমহাব্যবস্থাপক প্রকৌশলী সুরঞ্জিত কুমার দে বলেন, গ্যাস সঞ্চালন লাইনে ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় ভালুকা, ময়মনসিংহ নগরী, মুক্তাগাছা, শম্ভুগঞ্জ, নেত্রকোনা এলাকায় গ্যাস সরবরাহ বন্ধ রয়েছে। এখানে আবাসিক গ্রাহক ৪০ হাজার, বাণিজ্যিক গ্রাহক ২৫০ ও সিএনজি পাম্প ১৪টি। গ্যাস সরবরাহ বন্ধ থাকায় রুরাল পাওয়ার কোম্পানি লিমিটেড (আরপিসিএল) শম্ভুগঞ্জ বিদ্যুৎ উৎপাদনকেন্দ্রটিও গ্যাস পাচ্ছে না।

 উচ্চক্ষমতাসম্পন্ন সরবরাহ লাইনটি মেরামত শেষ করতে সন্ধ্যা হয়ে যেতে পারে। পরে পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষে সরবরাহ লাইন চালু হবে। লাইনটি ফেটে কী পরিমাণ ক্ষতি হয়েছে, তা এখনো নিরূপণ করা সম্ভব হয়নি বলে সংশ্লিষ্টরা জানান।

ঢাকানিউজ২৪.কম / কেএন

আরো পড়ুন

banner image
banner image