• ঢাকা
  • শনিবার, ২১ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ; ০৪ ফেরুয়ারী, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image

দেশের প্রথম পাতাল রেল নির্মাণ শুরু চলতি মাসেই


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: বৃহস্পতিবার, ০৫ জানুয়ারী, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ, ০৪:১৫ পিএম
পাতাল,রেল
দেশের দ্বিতীয় মেট্রোরেল নির্মিত হবে মাটির নিচ দিয়ে

নিউজ ডেস্ক

দেশের দ্বিতীয় মেট্রোরেল নির্মিত হবে মাটির নিচ দিয়ে অর্থাাৎ পাতাল রেল। এটি বাস্তবায়নের মধ্যদিয়ে পাতাল রেলের যুগে প্রবেশ করবে বাংলাদেশ। এ মেট্রোরেল এমআরটি-১ নামে পরিচিত। চলটি মাস থেকেই প্রথম পাতাল রেলের নির্মাণ শুরু হবে। ম্যাস র‌্যাপিড ট্রানজিট (এমআরটি-১) প্রকল্পের আওতায় এটি বাস্তবায়ন করবে ঢাকা ম্যাস ট্রানজিট কোম্পানি লিমিটেড (ডিএমটিসিএল)। এই প্রকল্পের আওতায় নারায়ণগঞ্জের পিতলগঞ্জে মেট্রোরেলের ডিপো নির্মাণে ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চুক্তি স্বাক্ষরও সম্পন্ন  করেছে ডিএমটিসিএল।

এমআরটি-১ নামে পরিচিত ও ৩১.২৪১ কিলোমিটার দীর্ঘ নতুন এই মেট্রোরেল দুটি অংশে বিভক্ত। অংশ দুটি হলো- বিমানবন্দর রুট (বিমানবন্দর থেকে কমলাপুর) ও পূর্বাচল রুট (নতুন বাজার থেকে পিতলগঞ্জ ডিপো)। এটির কাজ চলতি মাসেই শুরু হচ্ছে বলে জানিয়েছেন এমআরটি সংশ্লিষ্টরা।

এটির (এমআরটি-১) বিমানবন্দর রুট হবে দেশের প্রথম পাতাল বা আন্ডারগ্রাউন্ড মেট্রোরেল, যার মোট দৈর্ঘ্য ১৯.৮৭২ কিলোমিটার এবং মোট পাতাল স্টেশন ১২টি। আর পূর্বাচল রুটের মোট দৈর্ঘ্য ১১.৩৬৯ কিলোমিটার, যার সম্পূর্ণ অংশ উড়াল এবং মোট স্টেশন সংখ্যা ৯টি। এরমধ্যে ৭টি স্টেশন হবে উড়াল। তবে নদ্দা ও নতুন বাজার স্টেশন দুটি বিমানবন্দর রুটের অংশ হিসেবে পাতালে নির্মিত হবে। সেই সাথে নতুন বাজার স্টেশনের সাথে এমআরটি-৫-এর সঙ্গে আন্তঃলাইন সংযোগ থাকবে।

এমআরটি সূত্র জানায়, নন্দা ও নতুন বাজার স্টেশনের আন্তঃরুট সংযোগ ব্যবহার করে বিমানবন্দর রুট থেকে পূর্বাচল রুটে এবং পূর্বাচল রুট থেকে বিমানবন্দর রুটে যাওয়া যাবে।

এমআরটি লাইন-১ এর নির্মাণ কাজ তত্ত্বাবধানের জন্য ২০১২ সালের ২৩ অক্টোবর পরামর্শক প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চুক্তি হয়। এটির নির্মাণ কাজ মোট ১২টি প্যাকেজের মাধ্যমে বাস্তবায়ন করা হবে। ২০২২ সালের ২৩ নভেম্বর ডিপোর ভূমি উন্নয়ন সংক্রান্ত প্যাকেজ সিপি-১ এর ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চুক্তি হয়েছে।

এমআরটি-১-এর ডিপো ও ডিপো এক্সেস করিডোর নির্মাণের জন্য নারায়ণগঞ্জ জেলার রূপগঞ্জ উপজেলার পিতলগঞ্জ ও ব্রাহ্মণখালী মৌজার ১২.৯৭২৫ একর ভূমি অধিগ্রহণ করা হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্তদের ক্ষতিপূরণ বাবদ প্রায় ১৪০ কোটি টাকা দেওয়া হয়েছে। ইতিমধ্যে নামজারি সম্পন্ন হয়েছে। গত ২৮ নভেম্বর পিতলগঞ্জ মৌজায় ৩১ শতাংশ ভূমির দখল নেওয়া হয়েছে। শিগগিরই অবশিষ্ট ভূমির দখল নেওয়া হবে। এমআরটি-১ এর রিসিভিং সাব স্টেশন-২ এবং নদ্দা, নতুন বাজার ও উত্তর বাড্ডার ৩টি পাতাল স্টেশনের প্রবেশ ও বহির্গমন নির্মাণের জন্য ভূমি অধিগ্রহণের কাজ চলমান আছে।

এ বিষয়ে ঢাকা ম্যাস ট্রানজিট ডেভেলপমেন্ট উপ-প্রকল্প পরিচালক (লাইন-১) নাজমুর ইসলাম ভূইয়া গণমাধ্যমকে বলেন, ৩১.২৪১ কিলোমিটার দীর্ঘ এমআরটি-১ দুটি অংশে বিভক্ত। এটি কাজের জন্য প্রায় প্রস্তুত। এমআরটি-১ এর ডিপো ও ডিপো এক্সেস করিডোর নির্মাণের জন্য নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলার পিতলগঞ্জ ও ব্রাহ্মণখালী মৌজার ১২.৯৭২৫ একর ভূমি অধিগ্রহণের গেজেট প্রকাশিত হয়েছে আগেই। ক্ষতিগ্রস্তদের ক্ষতিপূরণ দেওয়া হয়েছে।

কবে নাগাদ এ কাজ শুরু হবে এমন প্রশ্নের উত্তরে নাজমুর ইসলাম ভূইয়া বলেন, এ মাসেই কাজ শুরু করার পরিকল্পনা রয়েছে। কাজ শুরু করার আগের প্রায় সব প্রস্তুতি শেষ। মাসের শেষ নাগাদ কাজ শুরু হবে।

 

 

ঢাকানিউজ২৪.কম / এম আর

জাতীয় বিভাগের জনপ্রিয় সংবাদ

banner image
banner image