• ঢাকা
  • রবিবার, ২১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩০ বঙ্গাব্দ; ০৪ জুন, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image
website logo

নাটোরে বিএনপির কর্মসূচিতে আ.লীগের হামলার অভিযোগ


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: রবিবার, ০২ এপ্রিল, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ, ১১:৪২ এএম
নাটোরে বিএনপির কর্মসূচিতে
আ.লীগের হামলার অভিযোগ

মো. আবু জাফর সিদ্দিকী, নাটোর প্রতিনিধি: ১০ দফা দাবিতে নাটোরে বিএনপির অবস্থান কর্মসূচিতে পুলিশি ব্যারিকেড ভেঙে হামলা করেছে বলে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে অভিযোগ ‍উঠেছে। 

শনিবার দুপুরে শহরের আলাইপুরে জেলা বিএনপি কার্যালয়ের সামনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলুর বক্তব্য চলাকালে তাদের ওপর হামলা চালানো হয়। পরে উভয়পক্ষের মধ্যে ইট-পাটকেল নিক্ষেপ ও মারপিটের ঘটনা ঘটে।

ঘটনার সময় মারপিট ও ইটের আঘাতে কাফুরিয়া ইউনিয়ন যুবদলের সহ-সভাপতি শরিফুল ইসলাম শরিফ, যুবদল নেতা রনি ব্যাপারি গুরুতর আহত হয়। এ ছাড়াও জেলা বিএনপির আহবায়ক শহিদুল ইসলাম বাচ্চুসহ বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের ১০ নেতাকর্মী আহত হয়েছে বলে দাবি করা হয়েছে। আহতদের মধ্যে শরিফুল ইসলাম শরিফ ও রনি ব্যাপারিকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক রুহুল আমিন বিপ্লব ও শহর যুবলীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট সায়েম হোসেন উজ্বল আহত হয়েছেন বলে জানানো হয়। রুহুল আমিন বিপ্লব ও সায়েম হোসেন উজ্জল সদর হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন। প্রায় আধা ঘণ্টাব্যাপী ব্যাপক ইটপাটকেল নিক্ষেপ ও মারপিটের পর দলীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে জেলা বিএনপি।

বিএনপি’র পক্ষ থেকে বলা হয়, তাদের পূর্বঘোষিত কর্মসূচি অনুযায়ী নাটোর উপশহর মাঠে ইফতার মাহফিল ও অবস্থান কর্মসূচির মঞ্চ বৃহস্পতিবার রাতে আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীরা ভাঙচুর করে অগ্নিসংযোগ করে। শান্তি রক্ষার জন্য তারা উপশহর মাঠ ছেড়ে দিয়ে দলীয় কার্যালয়ের সামনে ফুটপাতে খুব সংক্ষিপ্ত পরিসরে অবস্থান ধর্মঘট করেন। শনিবার দুপুর আড়াইটার দিকে তাদের অবস্থান ধর্মঘটে বক্তব্য রাখছিলেন প্রধান অতিথি বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু। এ সময় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা তাদের দলীয় কার্যালয় থেকে একটি বড় মিছিলসহ বিএনপি অফিসের দিকে আসতে থাকে। নাটোর বিদ্যুৎ অফিসের সামনে পুলিশ আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের বাধা দিলে তারা পুলিশি ব্যারিকেট ভেঙে বিএনপির অবস্থান কর্মসূচিতে আক্রমন করে। পরে উভয়পক্ষের মধ্যে ইট-পাটকেল নিক্ষেপের ঘটনা ঘটে।

সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন, জেলা বিএনপির আহ্বায়ক (ভারপ্রাপ্ত) শহিদুল ইসলাম বাচ্চু, সদস্য সচিব রহিম নেওয়াজ, জাতীয় নির্বাহী পরিষদের সদস্য সাবেক সংসদ সদস্য অধ্যাপক কাজী গোলাম মোর্শেদ, জেলা বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক কাজী শাহ আলম, সদস্য ফরহাদ আলী দেওয়ান শাহিন, জেলা যুবদল সভাপতি এ হাই তালুকদার ডালিম ও স্বেচ্ছাসেবক দল সভাপতি আসাদুজ্জামান আসাদ। ঘটনার সময় জেলা বিএনপির আহ্বায়ক শহিদুল ইসলাম বাচ্চু নিজের লাইসেন্স করা অস্ত্র দিয়ে গুলি করেছেন বলে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক দাবি করলেও তিনি তা অস্বীকার করেছেন।

জেলা বিএনপির আহ্বায়ক শহিদুল ইসলাম বাচ্চু বলেছেন, আগামী সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পাওয়ার দৌড়ে এগিয়ে থাকার জন্য জেলা আওয়ামী লীগের বর্তমান ও সাবেক সাধারণ সম্পাদক নিজের অবস্থান ও ক্ষমতা জানান দিতে বিএনপির ওপর একের পর এক হামলা করছে। মত প্রকাশের নাগরিক অধিকার টুকুও আওয়ামী লীগ কেড়ে নিয়েছে।

জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শরিফুল ইসলাম রমজান জানান, তাদের পূর্ব নির্ধারিত নাটোর উপশহর মাঠের শান্তি সমাবেশ করার জন্য তারা মিছিলসহ যাওয়ার সময় নাটোর সরকারি বালিকা বিদ্যালয়ের সামনে পুলিশ তাদের বাধা দেয়। পুলিশি বাধার কারণে সেখানেই তারা শান্তি সমাবেশ করছিলেন। বিএনপি নেতাকর্মীরা এসময় শান্তি সমাবেশে ইটপাটকেল ছুড়ে হামলা করে। জেলা বিএনপির আহ্বায়ক শহিদুল ইসলাম বাচ্চু ও সদস্য দেওয়ান শাহীন এসময় অস্ত্র দিয়ে গুলি করে। তিনি শহিদুল ইসলাম বাচ্চু ও দেওয়ান শাহীনকে গ্রেফতারের দাবি জানান।

ঘটনার পর থেকে সদর সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার মাহমুদা শারমিন নেলি, ডিবির ওসি আবু সাদাত ও সদর থানার পুলিশ পরিদর্শক তদন্ত আবুল কালাম আজাদের নেতৃত্বে বিপুল সংখ্যক পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। আওয়ামী লীগ নেতারা জানান, বিএনপি’র সন্ত্রাসীরা তাদের লক্ষ্য করে গুলি ছুড়েছে। তবে পুলিশ গুলির কথা স্বীকার করেনি।

এদিকে পরিস্থিতি কিছুটা শান্ত হওয়ার পর বিএনপি’র কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু নাটোরের বাসা ছেড়ে চলে যান। এসময় তিনি এসব ঘটনার জন্য সরাসরি সরকার দলীয় নেতা-কর্মীদের দায়ী করেছেন। এলাকায় থমথমে পরিস্থিতি বিরাজ করছে।

এ ঘটনায় নাটোরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এ টি এম মাইনুল ইসলাম বলেন, শহরের আলাইপুর এলাকায় বিএনপি ও আওয়ামী লীগ দু'দলের পক্ষ থেকে সমাবেশ ডাকা হয়েছিল। সমাবেশে চলাকালে দু'পক্ষই ইট পাটকেল নিক্ষেপ করে। পরে অতিরিক্ত পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

ঢাকানিউজ২৪.কম / কেএন

আরো পড়ুন

banner image
banner image