• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ১৫ আষাঢ় ১৪২৯ বঙ্গাব্দ; ৩০ জুন, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image

ঐতিহাসিক ৬ দফা দিবস


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: মঙ্গলবার, ০৭ জুন, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ০২:০৭ পিএম
ঐতিহাসিক ৬ দফা দিবস
ঐতিহাসিক ৬ দফা

ডেস্ক রিপোর্টার: বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, ৬ দফা দাবি উত্থাপনের মধ্য দিয়ে বাঙালি জাতিকে এক সুনির্দিষ্ট লক্ষ্যের অভিসারী করেছিলেন।

রাষ্ট্রবিজ্ঞানীদের মতে, ৬দফা কোনো রাজনৈতিক দর কষাকষির কর্মসূচি ছিলো না, ছিল বাঙালির মুক্তির সুদূর প্রসারী কর্মসূচি। আর এ পথ ধরেই বাঙালি ১৯৭১ সালে তার মুক্তি সংগ্রামে পৌঁছে।বৃটিশ দখলদায়িত্ব শেষে পাকিস্তান প্রতিষ্ঠিত হবার পর থেকেই নানাভাবে শোষিত হতে থাকে বাংলার মানুষ।

৫২'র ভাষা আন্দোলনের পর ৬২'র শিক্ষা আন্দোলন ও ১৯৬৫ সালের পাক-ভারত যুদ্ধ পাকিস্তান রাষ্ট্রে বাঙ্গালীদের অবস্থান নিয়ে ওঠে নানা প্রশ্ন। তারই ধারাবাহিকতায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ১৯৬৬ সালের ৫ই ফেব্রুয়ারি লাহোরে তুলে ধরেন ঐতিহাসিক ৬ দফা দাবি।

এই দাবির পক্ষে গড়ে উঠতে থাকে ব্যপক জনমত। সে বছরের ৭ই জুন ৬ দফা দাবির পক্ষে ডাকা হরতালে ঢাকা, টঙ্গি ও নারায়ণগঞ্জে পুলিশ ও ইপিআরের গুলিতে ১১জন শহীদ হন। শুরু হয় তীব্র গণ আন্দোলন। ৬দফার জনপ্রিয়তায় ভীত হয়ে পাকিস্তানি শাসকগোষ্ঠী গ্রেপ্তার করে শেখ মুজিবুর রহমানকে। আওয়ামী লীগ উপদেষ্টা মণ্ডলীর সদস্য আমির হোসেন আমু বলেন, ৬দফা দেয়ার সঙ্গে সঙ্গে যখন আইয়ুব খান, আবদুল মোনেম খান, এরা আক্রমণ শুরু করল, তখন বাঙালিদের আর বুঝতে অসুবিধা হলো না যে এই ৬দফাই আসল জাতির মুক্তির সনদ। আগরতলা মামলা দেয়ার পর থেকে একদিকে যেমন এই ৬দফার জনপ্রিয়তা, আবার অন্যদিকে বঙ্গবন্ধুর জনপ্রিয়তা প্রতিদিনই বাড়ছিল।

ঐতিহাসিক ৬ দফা ছিল-১. প্রদেশগুলোর পূর্ণ স্বায়ত্ত্বশাসনের অধিকার ২. প্রতিরক্ষা ও বৈদেশিক বাদে সব বিষয়ে প্রদেশগুলোর পূর্ণ ক্ষমতার অধিকার ৩. পূর্ব ও পশ্চিম পাকিস্তানের জন্য আলাদা মুদ্রা ব্যবস্থা চালু ৪. প্রদেশগুলোর সব প্রকার রাজস্ব ধার্য ও আদায়ের ক্ষমতা ৫. প্রদেশগুলোর বৈদেশিক বাণিজ্যের অধিকার এবং ৬. প্রদেশগুলোর নিজ কর্তৃত্বে আঞ্চলিক সেনাবাহিনী গঠনের ক্ষমতা রাষ্ট্রবিজ্ঞানীদের মতে, ৬ দফা ছিল ৫২ এর ভাষা আন্দোলনের পর প্রথম সংঘবদ্ধ আন্দোলন যাকে ভিত্তি করেই আমাদের স্বাধীনতা আন্দোলনের বীজ দানা বেঁধে ওঠে।

প্রফেসর ড. হারুন অর রশিদ বলেন, কোন মাইকিং করার প্রয়োজন হয়নি। জনগণ নিজের ইচ্ছায় রাস্তায় নেমে এসেছিল। প্রথম বারের মতো, টঙ্গির, আদমজির, তেজগাঁও-এর শ্রমিক সবাই ওই আন্দোলনে সামিল হয়েছিল। তাদের মতে, ৬ দফায় বাঙালিকে টেনে নিয়ে যায় মহান মুক্তি সংগ্রামের পথে, অর্জিত হয় বাঙালির লাল সবুজ পতাকা। ঐতিহাসিক ৬ দফা দিবস আজ। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, ৬ দফা দাবি উত্থাপনের মধ্য দিয়ে বাঙালি জাতিকে এক সুনির্দিষ্ট লক্ষ্যের অভিসারী করেছিলেন।

ঢাকানিউজ২৪.কম / কেএন

উৎসব / দিবস বিভাগের জনপ্রিয় সংবাদ

banner image
banner image