• ঢাকা
  • শনিবার, ২ আশ্বিন ১৪২৮ বঙ্গাব্দ; ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image

ফুলবাড়ীতে চলাচল অযোগ্য রাস্তা স্বেচ্ছাশ্রমে সংস্কার করছে গ্রামবাসী


ঢাকানিউজ২৪ ; প্রকাশিত: সোমবার, ১৩ সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ০২:৫৪ পিএম
ভোগান্তি পোহাতে হয় যাতায়াতকfরীদের
স্বেচ্ছাশ্রমে রাস্তা সংস্কার করছে

জাকারিয়া মিঞা, ফুলবাড়ী কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি: কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী উপজেলার ভাঙ্গামোড় ইউনিয়নের ভাঙ্গামোড় হতে রাঙ্গামাটি পর্যন্ত প্রায় তিন কিলোমিটার দীর্ঘ কাঁচা রাস্তাটির বেহালদশা। প্রতিবছর বর্ষায় চরম ভোগান্তি পোহাতে হয় যাতায়াতকারীদের। সবশেষ বন্যায় পানিতে তলিয়ে সম্পূর্ণ রাস্তাটিতে সৃষ্টি হয়েছে খানাখন্দ।.

প্রায় ২৫ মিটার অংশ স্রোতের তোড়ে ভেঙ্গে গেছে। বর্তমানে রাস্তাটি চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়েছে। আশপাশের গ্রামগুলির ১৫ হাজারেরও বেশি মানুষকে চিকিৎসা, শিক্ষা, ব্যবসা-বাণিজ্য, কৃষি, পরিবহন ও যোগাযোগের ক্ষেত্রে পুরোপুরি নির্ভর করতে হয় এ রাস্তার ওপর। দীর্ঘদিন ধরে চলাচলে চরম ভোগান্তির শিকার এলাকাবাসী অবশেষে নিজেদের উদ্যোগে স্বেচ্ছাশ্রমে রাস্তাটির সংস্কার কাজ শুরু করেছে।.

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, চরম ভোগান্তি নিয়ে এ রাস্তা দিয়ে যাতায়ত করছে রাঙ্গামাটি  উচ্চ বিদ্যালয়, রাঙ্গামাটি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, রাঙ্গামাটি কাছিমুল উলুম হাফেজিয়া  মাদ্রাসা, কাগজীপাড়া সিদ্দিকিয়া নুরানি হাফেজিয়া কওমি মাদ্রাসা, সাইফুর রহমান সরকারী মহাবিদ্যালয় সহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছাত্রছাত্রীরা। এছাড়াও রাঙ্গামাটিতে অবস্থিত আবাসনে (গুচ্ছ গ্রাম) এবং রাঙ্গামাটি কমিউনিটি ক্লিনিকে সেবা নিতে আসা গর্ভবতী মা ও শিশুদের এ রাস্তাদিয়ে যাতায়ত করতে হয়। রাস্তার বেহালদশায় সকল প্রকার যানবাহন চলাচলের অযোগ্য হওয়ায় তাদেরকে পায়ে হেটেই ক্লিনিকে যেতে হয়। গুরুতর অসুস্থ রোগীকে হাসপাতালে নিতে ভোগান্তিতে পড়তে হয় অনেককেই। উৎপাদিত কৃষিপণ্য বিক্রয় ও দৈনন্দিন চাহিদা পূরণে অত্র এলাকাবাসীকে এ রাস্তা দিয়েই পার্শ্ববর্তী খোলার হাট বাজার, খোঁচাবাড়ী বাজার, নেওয়াশী বাজার, পাখির হাট বাজার, রাঙ্গামাটি বাজার, খড়িবাড়ি বাজার ও উপজেলা সদরে যেতে হয়।.

রাস্তাটি সেচ্ছাশ্রমে সংস্কার করতে এসে রাঙ্গামাটি গ্রামের জলিল সরদার, ছাইয়েদুল হক, রাঙ্গামাটি গ্রামের হারুন পাটোয়ারী, আব্দুল কাদের এবং হলোখানা গ্রামের বাসিন্দা আবু বকর সিদ্দিক ও আলমগীর হোসেন বলেন, আমরা প্রতি বছর বর্ষায় এ রাস্তাটির কারণে চরম ভোগান্তির শিকার হই।.

বর্তমানে রাস্তাটি চলাচলের একেবারে অযোগ্য হয়ে পড়লেও এটি সংস্কারে কারও কোন আগ্রহ দেখিনি। তাই বাধ্য হয়ে গ্রামবাসীরা মিলে রাস্তার মেরামত কাজ শুরু করেছি। তিন গ্রামের ১৫ হাজারেরও বেশি মানুষের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ রাস্তাটির দ্রুত সংস্কারের উদ্যোগ নিতে সংশ্লিষ্ট সকলের নিকট দাবিও জানান তারা।
 .

.

ঢাকানিউজ২৪ / জাকারিয়া মিঞা

সারাদেশ বিভাগের জনপ্রিয় সংবাদ

banner image
banner image