• ঢাকা
  • বুধবার, ২০ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ; ০৫ অক্টোবর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image

রানির মৃত্যুর পর প্রথমবার জনসম্মুখে উইলিয়াম ও হ্যারি


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: রবিবার, ১১ সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ০৪:৩২ পিএম
রানির মৃত্যুর পর
প্রথমবার জনসম্মুখে উইলিয়াম ও হ্যারি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : প্রথমবার ব্রিটেনের রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের মৃত্যুর পর জনসম্মুখে এসেছেন তার দুই নাতি প্রিন্স উইলিয়াম ও হ্যারি। তাদের স্ত্রী কেট মিডলটন ও মেগান মার্কেল সঙ্গে ছিলেন।
শনিবার (১০ সেপ্টেম্বর) লন্ডনের উইন্ডসর ক্যাসেলের সামনে রানিকে শ্রদ্ধা জানাতে আসা সাধারণ মানুষের সঙ্গে হাত মেলান তারা।

স্কটল্যান্ডের বালমোরাল প্রাসাদে গত বৃহস্পতিবার মারা যান রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথ। তার বয়স হয়েছিল ৯৬ বছর। এখনো বালমোরাল প্রাসাদেই আছে রানির মরদেহ। তবে উইন্ডসরে রাজপরিবারের বাসভবন উইন্ডসর ক্যাসেলের গেটের সামনে ফুল দিয়ে রানির প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করে যাচ্ছেন শুভাকাঙ্ক্ষীরা।

গতকাল উইলিয়াম, হ্যারি এবং তাদের স্ত্রীরা সে জায়গাটিই পরিদর্শন করেছেন। এদিন তাদের সবাইকে কালো রঙের পোশাকে দেখা গেছে। তবে এ দুই দম্পতি একসঙ্গে হলেও উপস্থিত জনতার সঙ্গে তাদের আলাদা আলাদা করে কথা বলতে ও হাত মেলাতে দেখা গেছে।

এর আগে ২০২০ সালে ওয়েস্টমিনস্টার অ্যাবেতে কমনওয়েলথ ডে সার্ভিসে এ দুই দম্পতিকে সবশেষ একসঙ্গে দেখা গিয়েছিল। এর কিছুদিন পরই রাজ দায়িত্ব ছাড়ার ঘোষণা দেন হ্যারি।

২০১৮ সালে উইন্ডসরে ব্রিটিশ সেনাবাহিনীর সাবেক ক্যাপ্টেন প্রিন্স হ্যারির সঙ্গে আমেরিকান টেলিভিশন অভিনেত্রী মেগানের বিয়ে হয়। একসময় মনে করা হচ্ছিল উইলিয়াম, হ্যারি, কেট ও মেগান একসঙ্গে হয়ে তরুণ প্রজন্মের কাছে রাজতন্ত্রের আবেদন ধরে রাখবেন। তবে হ্যারির বিয়ের কিছুদিন পর থেকেই দুই ভাইয়ের মধ্যে সম্পর্কের তিক্ততার খবর সামনে আসতে থাকে।

৩৭ বছর বয়সী হ্যারি জনসমক্ষে বলেছেন তিনি এবং তার ভাইয়ের ‘পথ আলাদা’। ২০২০ সালের শুরুর দিকে হ্যারি রাজ দায়িত্ব ত্যাগ করার ঘোষণা দেন। তিনি এবং তার স্ত্রী মেগান যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়াতে বসবাস শুরু করেন। সেখানে থেকে বিভিন্ন সময়ে ব্রিটিশ রাজপরিবারের নানা সমালোচনা করতে দেখা গেছে তাদের।

রাজপরিবারের এক সদস্যের বিরুদ্ধে বর্ণবাদের অভিযোগও তোলেন প্রিন্স হ্যারি ও মেগান মার্কেল। তবে পরিবার ছেড়ে যাওয়া এ দম্পতির অভিযোগের প্রতিক্রিয়ায় ৪০ বছর বয়সী উইলিয়াম বলেছিলেন, ‘আমাদের পরিবার মোটেও বর্ণবাদী নয়।’

রানির মৃত্যুর পর গত শুক্রবার রাজা হিসেবে দেওয়া প্রথম ভাষণে ৭৩ বছর বয়সী চার্লস তার ছোট ছেলে হ্যারি ও পুত্রবধূ মেগানের প্রতি ভালোবাসা জানিয়েছেন।

চার্লস এবং তার প্রথম স্ত্রী ডায়ানার সন্তান উইলিয়াম ও হ্যারি। গত বছর মা ডায়ানার একটি ভাস্কর্য উন্মোচন অনুষ্ঠানেও তাদের দুই ভাইয়ের সম্পর্কে শীতলতা দেখা গেছে।

চলতি বছরের জুনে রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের সিংহাসনে অভিষেকের ৭০ বছর পূর্তি উদ্‌যাপন অনুষ্ঠানেও হ্যারি ও উইলিয়াম একে অপরের সঙ্গে দেখা করেননি।

ব্রিটেন ও জার্মানিতে দুটি দাতব্য অনুষ্ঠানে যোগ দেওয়ার অংশ হিসেবে সম্প্রতি সংক্ষিপ্ত সময়ের জন্য উইন্ডসর এস্টেটে ফ্রগমোর কটেজে থাকতে শুরু করেন হ্যারি ও মেগান। উইলিয়াম ও কেটের নতুন বাড়ি অ্যাডিলেড কটেজ থেকে ফ্রগমোর কটেজের অবস্থান একেবারেই স্বল্প দূরত্বে। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যমগুলো বলছে, এত কাছাকাছি অবস্থানের পরও বৃহস্পতিবার রানির মৃত্যুর আগপর্যন্ত তাঁদের একে অপরের সঙ্গে দেখা করার পরিকল্পনা ছিল না।

তবে ধারণা করা হচ্ছে, ১৯ সেপ্টেম্বর লন্ডনে ওয়েস্টমিনস্টার অ্যাবেতে রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া অনুষ্ঠানে হ্যারি ও মেগান উপস্থিত থাকবেন।

ঢাকানিউজ২৪.কম / কেএন

আর্ন্তজাতিক বিভাগের জনপ্রিয় সংবাদ

banner image
banner image