• ঢাকা
  • শুক্রবার, ২৭ শ্রাবণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ; ১২ আগষ্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image

রাষ্ট্রপতির রাজনৈতিক সংলাপ জাতির সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা: রিজভী


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: সোমবার, ২০ ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ০৩:১৪ পিএম
রাষ্ট্রপতির রাজনৈতিক সংলাপ
বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী

 ডেস্ক রিপোর্টার: রাষ্ট্রপতির নির্বাচন কমিশন গঠনে রাজনৈতিক সংলাপকে জাতির সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা বলে অভিযোগ বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

সোমবার (২০ ডিসেম্বর) বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের সমাধিতে ফুল দেওয়ার পর তিনি এ কথা বলেন।
 
এর আগে নবগঠিত খুলনা মহানগর ও জেলা আহ্বায়ক কমিটির নেতারা ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান। এ সময় জিয়াউর রহমানের আত্মার মাগফিরাত কামনা ও খালেদা জিয়ার রোগমুক্তির জন্য দোয়া করা হয়। রিজভী অভিযোগ করে বলেন, আরেকটি প্রহসনের নির্বাচন করার ষড়যন্ত্র চলছে।
 
সোমবার (২০ ডিসেম্বর) বিকেল ৪টা থেকে শুরু  হচ্ছে নির্বাচন কমিশন গঠনের লক্ষ্যে রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে রাষ্ট্রপতির সংলাপ। সার্চ কমিটির মাধ্যমে গঠিত কমিশন নিরপেক্ষ হতে পারে না দাবি করে বিএনপি বলছে, এই সংলাপে অংশ নেবে না তারা।
 
সংলাপে নির্বাচন কমিশন গঠনে আইন প্রণয়নের পরামর্শ দেবে সংসদে বিরোধী দল জাতীয় পার্টি। আস্থার সংকট কাটাতে কমিশন গঠনে সংবিধানের আলোকে আইন প্রণয়নের পরামর্শ বিশ্লেষকের। সংবিধানের ১১৮ নম্বর অনুচ্ছেদে বলা হয়েছে, বাংলাদেশের একটি নির্বাচন কমিশন থাকবে এবং উক্ত বিষয়ে প্রণীত আইনের বিধানাবলিসাপেক্ষে রাষ্ট্রপতি প্রধান নির্বাচন কমিশনারকে ও অন্যান্য নির্বাচন কমিশনারকে নিয়োগ করবেন।
 
কিন্তু গত ৫০ বছরেও হয়নি নির্বাচন কমিশন গঠনের সেই আইন। আগামী ফেব্রুয়ারিতে শেষ হচ্ছে বর্তমান কমিশনের মেয়াদ। তাই নতুন কমিশন গঠনে রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে সংলাপ শুরু করছেন রাষ্ট্রপতি।
 
সোমবার (২০ ডিসেম্বর) প্রথম দিন সংলাপে অংশ নেবে সংসদের বিরোধী দল-জাতীয় পার্টি। নির্বাচন কমিশন গঠনে আইন প্রণয়নের পরামর্শ দেবে দলটি। জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম মেম্বার মশিউর রহমান রাঙ্গা বলেন, বসে আলোচনা করে এটার সঠিক একটা আইনে পরিণত করা উচিত। বাংলাদেশের অনেক সংস্থা রয়েছে- যেগুলোর আইন থাকা উচিত।

আর সার্চ কমিটির মাধ্যমে গঠিত কমিশন নিরপেক্ষ ভূমিকা রাখতে পারছে না দাবি করে সংলাপে অংশ না নেওয়ার কথা বলছে বিএনপি।
 
বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেন, যারা সুষ্ঠু নির্বাচন বিশ্বাস করে না, যারা অবাধ নিরপেক্ষ নির্বাচন বিশ্বাস করে না; তারা সংলাপের মধ্য দিয়ে একটা স্বাধীন নির্বাচন কমিশন গঠন করবে এটা কেউ বিশ্বাস করে না, তো সেই সংলাপে গিয়ে কী লাভ।
 
আর কমিশন গঠন নিয়ে রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে আস্থার সংকট কাটাতে স্থায়ী আইন প্রণয়নের পরামর্শ বিশ্লেষকের।
 
রাজনীতি বিশ্লেষক ড. জোবাইদা নাসরিন বলেন, নির্বাচন কমিশন কেন্দ্র করে এ আইন যদি তৈরি হয় তাহলে বাংলাদেশের রাজনীতিতে একটি স্বচ্ছতার জায়গা এবং গত দুই বছরে নির্বাচনকে কেন্দ্র করে অস্বচ্ছতার যে জায়গা তৈরি হয়েছে, সেগুলো আমার কাছে মনে হয় কমে যাবে।
 
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. সাব্বীর আহমেদ বলেন, জাতীয় সংসদ রয়েছে, সেই সংসদেও যদি আলোচনা করা হয় বা এ বিষয়ে একটি বিল আনা হয়, তা হলে একটা ঐকমত্যের ভিত্তিতে আইন তৈরি করা যেতে পারে।
 
এ পর্যন্ত গঠিত ১২টি নির্বাচন কমিশনের মধ্যে গত দুটি কমিশন রাষ্ট্রপতি সার্চ কমিটির মাধ্যমে গঠন করেন।

ঢাকানিউজ২৪.কম / কেএন

রাজনীতি বিভাগের জনপ্রিয় সংবাদ

banner image
banner image