• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ১৪ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ; ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image

জন্মাষ্টমীর বক্তব্যে হিন্দু নেতাদের দুষেছেন প্রধানমন্ত্রী: ফখরুল


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: রবিবার, ২১ আগষ্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ১২:০৪ পিএম
হিন্দু নেতাদের দুষেছেন প্রধানমন্ত্রী
বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর

নিউজ ডেস্ক :  হিন্দু সম্প্রদায়ের নেতৃবৃন্দকে উদ্দেশ করে বিএনপি মহাসচিব বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, আপনাদের ওপর যখন আঘাত করা হয়, মন্দির-বাড়িঘর ভাঙচুর করা হয়, তখন আপনারা যে প্রতিবাদ করেন, সেই প্রতিবাদটাকে তিনি (প্রধানমন্ত্রী) মনে করছেন আপনারা ভুল করছেন, বাড়িয়ে বলছেন, অন্যায় করছেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী চট্টগ্রামে জন্মাষ্টমীর অনুষ্ঠানে বক্তব্য দিয়েছেন। আরেকটি বক্তব্য সম্ভবত আপনারা মনে করতে পারেননি; স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী জন্মাষ্টমীর দিনে বক্তব্যে আপনাদেরকে দোষারোপ করেছেন। তিনি বলেছেন- একটা কিছু ঘটলেই আপনারা ঝাঁপিয়ে পড়েন। এমন মনে হয় যে, আপনারা হিন্দু সম্প্রদায়ের সবাই অত্যাচারিত হচ্ছেন।

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর জন্মাষ্টমীর শুভেচ্ছা বিনিময় অনুষ্ঠানে হিন্দু সম্প্রদায়ের নেতৃবৃন্দকে উদ্দেশ করে এসব কথা বলেন।

শনিবার গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত এই শুভেচ্ছা বিনিময় অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেছেন বিজন কান্তি সরকার। পরিচালনা করেন অমলেন্দু দাস অপু। এই আয়োজনে প্রধান অতিথি হিসেবে ভার্চুয়ালি যুক্ত ছিলেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান।

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর হিন্দু সম্প্রদায়ের নেতৃবৃন্দকে উদ্দেশ করে বলেন, আপনাদের ওপর যখন আঘাত করা হয়, মন্দির-বাড়িঘর ভাঙচুর করা হয়, তখন আপনারা যে প্রতিবাদ করেন, সেই প্রতিবাদটাকে তিনি (প্রধানমন্ত্রী) মনে করছেন আপনারা ভুল করছেন, অন্যায় করছেন। বাড়িয়ে বলছেন, অতিরঞ্জিত করছেন।

তিনি বলেন, ‘বিগত বছরগুলোতে আমরা সবাই অত্যন্ত দুঃখ ও ঘৃণার সঙ্গে লক্ষ করেছি যে, আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর থেকেই আমাদের ভাই, যাদেরকে আমাদের নিজস্ব ভাই মনে করি তাদের ওপর অত্যাচার হয়েছে, তাদের মন্দির-উপসানালয়ে আক্রমণ হয়েছে।

‘শুধু হিন্দু নয়, বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান সবার ওপর সমানভাবে আক্রমণ করা হচ্ছে। এটাই হচ্ছে বাস্তবতা। সবচেয়ে বড় কথা হচ্ছে, যে দেশে কোনো সম্প্রদায়ের মানুষ নিরাপদে থাকবে না, গণতন্ত্র থাকবে না, সে দেশে কখনই শান্তি আসবে না। আজকে সেই গণতন্ত্রই এখানে অনুপস্থিত।’

 বলেন, ‘আজ বাংলাদেশে যে অবস্থা বিরাজ করছে, এই অবস্থার সঙ্গে শ্রীকৃষ্ণের আবির্ভাবের সময়ের বহুলাংশে মিল আছে। একইভাবে আজ মানুষের অধিকারগুলো কেড়ে নেয়া হয়েছে। দেশনেত্রী খালেদা জিয়া যিনি সারাটা জীবন গণতন্ত্রের জন্য সংগ্রাম করেছেন, তাকে অন্যায়ভাবে মিথ্যা মামলা দিয়ে আটকে রাখা হয়েছে। আমাদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে মিথ্যা মামলায় সাজা দিয়ে বিদেশে নির্বাসিত করে রাখা হয়েছে।

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘মানুষের অধিকার ক্ষুণ্ন করা হয়েছে, ভোটের অধিকার কেড়ে নেয়া হয়েছে। এই অবস্থার পরিপ্রেক্ষিতে আজ জন্মাষ্টমীতে শ্রীকৃষ্ণের যে কাজ ছিল তা স্মরণ করতে চাই। অর্থাৎ ’৭১ সালে আমরা হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান-মুসলিম কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে একসঙ্গে যুদ্ধ করেছিলাম। লক্ষ্য ছিল সুস্থ-মুক্ত সমাজ গড়ে তুলব, গণতান্ত্রিক সমাজ গড়ে তুলব। বর্তমান সরকার সেই লক্ষ্য থেকে দেশকে সম্পূর্ণভাবে দূরে সরিয়ে নিয়ে গেছে।’

তিনি বলেন, ‘এখন আমাদের প্রয়োজন অটুট ঐক্য। হিন্দু-মুসলিম-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান সব রাজনৈতিক দল ঐক্যবদ্ধ হয়ে আমাদের সেই অধিকার যে অধিকারের জন্য ’৭১ সালে যুদ্ধ করেছিলাম, সে অধিকারগুলো প্রতিষ্ঠা করা।

অনুষ্ঠানে ফুলের তোড়া দিয়ে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের মাধ্যমে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে জন্মাষ্টমীর শুভেচ্ছা জানান সাবেক মন্ত্রী ও হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান ঐক্যফ্রন্টের প্রতিষ্ঠাতা গৌতম চক্রবর্তীর স্ত্রী দীপালি চক্রবর্তী।

শুভেচ্ছা বিনিময় অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, মির্জা আব্বাস, ড. আব্দুল মঈন খান, আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী, নিতাই রায় চৌধুরী, সুকোমল বড়ুয়া, সুব্রত চৌধুরী, সুশীল বড়ুয়া, জয়ন্ত কুমার কুণ্ডু, রামকৃষ্ণ মিশনের পূর্ণধানন্দ, ইসকন ঢাকার দ্বিজননি, বিশ্বনাথ সরকার, গৌরাঙ্গ দাস, পুরোহিত বিজয় পান্ডে, স্বাধীন কুণ্ডু, সুকৃতি মণ্ডল, মিলটন বৈদ্য, তরুণ দে, কামাক্ষা চন্দ্র দাস, দেবাশীষ রায় মধু, রমেশ দত্ত, বিশ্বনাথ সরকার, সুরঞ্জন ঘোষ প্রমুখ।

ঢাকানিউজ২৪.কম / কেএন

রাজনীতি বিভাগের জনপ্রিয় সংবাদ

banner image
banner image