• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ৭ মাঘ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ; ২০ জানুয়ারী, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image

৪৬টি পেশাজীবী সংগঠনের সাথে মতবিনিময় করল বিএনপি নেতৃবৃন্দ


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: রবিবার, ১০ অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ১০:৩১ এএম
আমাদের দলের নেতারা মতামত দিয়েছেন
mirza fokrul islam alomgir

নিউজ ডেস্ক:   শুক্রবার ও শনিবার পেশাজীবীদের সঙ্গে এই সভা হয়। এ দু'দিনে ৪৬টি পেশাজীবী সংগঠনের নেতারা এতে অংশ নেন। বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান লন্ডন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে যুক্ত ছিলেন।

শনিবার সভার শুরুতে উপস্থিত সবার উদ্দেশ বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, এর আগে আমাদের দলের নেতারা মতামত দিয়েছেন। শুক্রবার বিভিন্ন পেশাজীবী নেতারা মতামত দিয়েছেন। এখন আপনাদের কাছে দেশের সার্বিক রাজনৈতিক দিক বিবেচনা করে সুনির্দিষ্ট মতামত রাখার আহ্বান জানাচ্ছি।

সভা শেষে পেশাজীবী সংগঠনের প্রতিনিধি ড. মাহাবুবউল্লাহ সাংবাদিকদের বলেন, আমি বলার চেষ্টা করেছি- মানুষের মধ্যে ক্ষোভ, হতাশা, দুঃখ আছে। রাজনৈতিক কর্মীদের মধ্যেও আছে। কিন্তু আপনারা (বিএনপি) সাংগঠনিকভাবে কতটা প্রস্তুত। এখন তো আন্দোলন করার অধিকার যে কোনো সময়ের চেয়ে বেশি কঠিন। কাজেই সে দিকটাও মনে রাখতে হবে। কোনো রকম হঠকারি সুযোগের অবকাশ নেই। তিনি বলেন, যারা আন্দোলন করবেন তারা মনে রাখবেন- আন্দোলন যেন সহিংস না হয়। সাধারণ জনগণ অংশগ্রহণ করতে যেন ভয় না পায়।

সূত্র জানায়, সভায় নির্বাচনকালীন নির্দলীয় সরকারের একদফা দাবিতে আন্দোলনের পরামর্শ দেন পেশাজীবী নেতারা। তারা বলেন, গণতান্ত্রিক আন্দোলনে যেমন বিভিন্ন রাজনৈতিক দলকে সম্পৃক্ত করতে হবে তেমনি বিভিন্ন পেশাজীবীদেরকেও সমন্বয় করতে হবে। বিএনপির উচিত এসব পেশাজীবীর সঙ্গে আরও বেশি যোগাযোগ বৃদ্ধি করা। এসব শ্রেণি-পেশার মানুষের মধ্যে আস্থা তৈরি হবে।

সভায় পেশাজীবী সংগঠনগুলোর মধ্যে সম্মিলিত পেশাজীবী পরিষদ, জাতীয় প্রেস ক্লাব, ইউট্যাব, বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিএফইউজে) একাংশ, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের (ডিইউজে) একাংশ, ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি (ডিআরইউ), জিয়া পরিষদ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সাদা দল, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়, জাতীয়তাবাদী শিক্ষক ফোরাম, জি-৯, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়, বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়, ময়মনসিংহ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, রাজশাহী প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় কুষ্টিয়া, কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়, হাজী দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, সিলেট শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, উম্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়, পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালসহ আরও কয়েকটি প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধি দল উপস্থিত ছিল।

বিএনপি নেতাদের মধ্যে দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ইকবাল মাহমুদ টুকু, সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স, প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী, তথ্য গবেষণা সম্পাদক রিয়াজুদ্দিন নসু, সহদফতর সম্পাদক তাইফুল ইসলাম টিপু, মনির হোসেন, বেলাল আহমেদ ছাড়াও বিএনপি চেয়ারপারসনের একান্ত সচিব এ বি এম আব্দুস সাত্তার উপস্থিত ছিলেন।

পেশাজীবী সংগঠনগুলোর প্রতিনিধিদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ড. মাহবুবউল্লাহ, শওকত মাহমুদ, ডা. এজেডএম জাহিদ হোসেন, কামাল উদ্দিন সবুজ, সৈয়দ আবদাল আহমেদ, ইউসুফ হায়দার, আব্দুল লতিফ মাসুম, ওবায়দুল হক, ছবিরুল হওলাদার, অ্যাডভোকেট আসাদুজামান আসাদ, কাদের গনি চৌধুরী, খোরশেদ আলম, বাছির জামাল, মাহমুদা হাবিবা, মাহমুদ হাসান, ড. ফাইজুল ইসলাম ফারুকী, গাজি আব্দুল হক, রাশেদুল হক, দিদারুল আলম, আল-আমিন, অধ্যাপক লুতফর রহমান, সিদ্দিকুর রহমান, এসএম ফজলুল হক, শামসুল আলম, এমজে আবেদীন, অধ্যাপক তোফাজ্জেল হোসেন, অধ্যাপক একেএম মতিনুর রহমন, মাসুদা কামাল, সুলাইমান, ইদ্রিস আলী, মোজাম্মেল হোসেন, শফিউল আলম দোলন প্রমুখ।

সেপ্টেম্বরে ভবিষ্যৎ করণীয় নির্ধারণে দলের ভাইস চেয়ারম্যান, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা, যুগ্ম মহাসচিব, সম্পাদকমণ্ডলী, নির্বাহী কমিটির সদস্য ও সাংগঠনিক জেলার শীর্ষ নেতার সঙ্গে দুই দফায় ছয়দিন রুদ্ধদ্বার বৈঠক করে বিএনপির হাইকমান্ড। এরপর আইনজীবীদের সঙ্গেও ভার্চুয়াল বৈঠক করেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান।

ঢাকানিউজ২৪.কম /

রাজনীতি বিভাগের জনপ্রিয় সংবাদ

banner image
banner image