• ঢাকা
  • শুক্রবার, ২১ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ; ০৩ ফেরুয়ারী, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image

সহকারী শিক্ষক পদে উত্তীর্ণ সাড়ে ৩৭ হাজার 


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: বুধবার, ১৪ ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ০৩:০৮ পিএম
সহকারী শিক্ষক পদে উত্তীর্ণ সাড়ে ৩৭ হাজার 
প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর

নিউজ ডেস্ক : সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষার চূড়ান্ত ফল প্রকাশ করা হয়েছে, এ পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছেন ৩৭ হাজার ৫৭৪ জন।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা মাহবুবুর রহমান তুহিন বুধবার সংবাদমাধ্যমে পাঠানো খুদেবার্তায় বিষয়টি জানিয়েছেন।

তিনি জানান, নির্বাচিত প্রার্থীদের মোবাইল নম্বরে খুদেবার্তার মাধ্যমে ফল জানিয়ে দেয়া হবে। এ ছাড়াও প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইট এবং প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের ওয়েবসাইটে ফল প্রকাশ করা হয়েছে।

নির্বাচিত প্রার্থীদের আগামী ৩১ ডিসেম্বরের মধ্যে সব সনদের মূল কপি ও জাতীয় পরিচয়পত্রের তিন কপি, যথাযথভাবে পূরণ করা পুলিশ ভেরিফিকেশন ফরম, সিভিল সার্জন প্রদত্ত স্বাস্থ্যগত উপযুক্ততার সনদ নিয়ে সংশ্লিষ্ট জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসে সশরীরে উপস্থিত হতে হবে।

গত ২৮ নভেম্বর প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে জানানো হয়েছিল, প্রকৃত শূন্য পদ যাচাই-বাছাই শেষে ১৪ ডিসেম্বর বিকেলের মধ্যে চূড়ান্ত ফল প্রকাশ হবে।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ে সচিব ফরিদ আহাম্মদ জানান, পাঁচ হাজারের মতো পদ বাড়ানো হবে।

বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী, পদের সংখ্যা ৩২ হাজার ৫৭৭। অনুমোদিত পদের সঙ্গে পাঁচ হাজার পদ বাড়ানো হলে মোট পদ হবে ৩৭ হাজারের কিছু বেশি।

এর আগে নভেম্বরে ফল প্রকাশের কথা থাকলেও সেটি হয়নি। করোনাভাইরাসের কারণে নিয়োগে পদসংখ্যা বাড়ানোর কথা বলেন প্রার্থীরা। তখন পদ বাড়ানোর আশ্বাস দেয়া হলেও পরে বলা হয় বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী ফল প্রকাশ হবে। এর ফলে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের সামনে আন্দোলনে নামেন চাকরিপ্রত্যাশীরা।

নিয়োগ প্রক্রিয়ায় সর্বোচ্চসংখ্যক শূন্য পদে নিয়োগ এবং পদসংখ্যা বৃদ্ধির দাবিতে ৬১ জেলায় জেলা প্রশাসকের কার্যালয় ও জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসে স্মারকলিপিও দেন চাকরিপ্রার্থীরা। এর পরিপ্রেক্ষিতে পদসংখ্যা বাড়ানোর কথা বলা হয়।

২০২০ সালের ২৫ অক্টোবর অনলাইনে এ নিয়োগের আবেদন শুরু হয়। আবেদন করেন ১৩ লাখ ৯ হাজার ৪৬১ প্রার্থী। নিয়োগে লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষা তিন ধাপে নেয়া হলেও চূড়ান্ত ফল একবারেই প্রকাশ করা হয়।

প্রথম ধাপের লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হন ৪০ হাজার ৮৬২। দ্বিতীয় ধাপে ৫৩ হাজার ৫৯৫ এবং তৃতীয় ধাপে ৫৭ হাজার ৩৬৮ জন উত্তীর্ণ হন।

ঢাকানিউজ২৪.কম / কেএন

শিক্ষা বিভাগের জনপ্রিয় সংবাদ

banner image
banner image