• ঢাকা
  • শুক্রবার, ১৭ আষাঢ় ১৪২৯ বঙ্গাব্দ; ০১ জুলাই, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image

ইটনায় যাএীবাহী ট্রলার ডুবিতে ১জনের লাশ উদ্ধার


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: মঙ্গলবার, ৩১ মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ০১:২৯ পিএম
ট্রলার ডুবিতে ১জনের লাশ উদ্ধার
লাশ উদ্ধার

মিঠামইন প্রতিনিধি, কিশোরগঞ্জ:  মিঠামইন উপজেলার ঢাকী বাজার থেকে ঐশী পরিবহন নামে একটি যাএীবাহী ট্রলার অর্ধশতাধিক যাএী নিয়ে চামড়া নৌ বন্দরে যাওয়ার পথে গতকাল ৩১ মে মঙ্গলবার সকালে এলংজুরি ঘাটের নিকটে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ডুবে যায়।ঘটনার পর স্হানীয়রা ডুবে যাওয়া ট্রলার থেকে মিঠামইনের ঢাকীর মুন্সি হাটির ফেরদৌসের মা বকুলা (৬৫) নামে এক মহিলার লাশ উদ্ধার করা হয়।

উদ্ধার কর্মীরা জানান,রবিন (৯মাস) নামে এক শিশু নিখোঁজ রয়েছে। তার বাড়ি ইটনা উপজেলার এলংজুরি ইউনিয়নে।উদ্ধার কৃত মহিলা ঢাকী মুন্সি হাটী গ্রামের মৃত সালেক মিয়ার স্ত্রী।

স্হানীয় উদ্ধার কর্মীরা ডুবে যাওয়া ট্রলার খানীকে  তীরে নিয়ে আসার চেষ্টা করছে।ঘটনার পর পর ইটনা থানা পুলিশ ও এলংজুির নৌ-পাড়ির পুলিশ সহ ফায়ার সার্ভিসের উদ্ধার কর্মীরা ঘটনার স্হলে চলে আসে।জানা যায়, ঘটনার দিন সকালে ঢাকী ইউনিয়নের বাজার থেকে ঐশী পরিবহন নামে একটি ট্রলার ৪০ জন যাএী নিয়ে চামড়া বন্দরের উদ্দেশ্যে রওয়ানা দেয়। পথে ইটনা উপজেলার এলংজুরির বাজারের জেটির নিকটে ট্রলার খানি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে নদীতে তলিয়ে যায়। তাৎক্ষণিক এলংজুরির চেয়ারম্যান রুবেল মিয়া ও মিঠামইনের ঢাকী ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মুজিবর রহমানের সহায়তায়  স্হানীয়রা উদ্ধার তৎপরতা শুরু করেন।অন্যরা সাঁতরিয়ে তীরে উঠলেও ঢাকী মুন্সি হাটী ফেরদৌসের মা ট্রলার থেকে বাহিরে আসতে পারেনি।তাকে মৃত অবস্থায় ট্রলারের ভিতর থেকে বাহির করা হয়। এ রিপোর্ট লিখা পযন্ত রবিন নামের ৯ মাসের এক শিশু নিখোঁজ রয়েছে বলে জানান।

এলংজুরি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান রুবেল মিয়া জানান, এলংজুরি বাজারের পাশে জেটি ঘাটের নিকটে ট্রলার খানি মোড় দিতে গিয়ে ডুবে যায়। এক মহিলার লাশ উদ্ধার করা হয়। এখন পর্যন্ত একজন শিশু নিখোঁজ রয়েছে। এর সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে তিনি আশংকা করছেন।ঢাকী ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মুজিবর রহমান জানান, তিনি সংবাদ পাওয়ার পর ঢাকী থেকে লোকজন নিয়ে ঘটনা স্হলে যান।সেখানে স্হানীয়দের সাথে উদ্ধার কাজে অংশ নেন।এখন পর্যন্ত একটি শিশু নিখোঁজের খবর পাওয়া গিয়াছে।নিখোঁজের সংখ্যা সঠিক ভাবে বলা যাচ্ছে না।

ইটনা থানার ওসি মোল্লা কামরুল ইসলাম জানান, ঘটনার পর পর এই তিনি থানা থেকে পুলিশ পাঠান এবং এলংজুরি নৌ-পাড়ির পুলিশদের উদ্ধার কাজে সহযোগিতার নির্দেশ দেন। এখন পর্যন্ত এক জনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। একটি শিশু নিখোঁজ রয়েছে। উদ্ধার কাজ শেষ না হওয়া পর্যন্ত কিছু বলা যাচ্ছে না।

ঢাকানিউজ২৪.কম / বিজয়কর রতন/কেএন

দুর্ঘটনা বিভাগের জনপ্রিয় সংবাদ

banner image
banner image