• ঢাকা
  • শুক্রবার, ২১ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ; ০৭ অক্টোবর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image

চালের দামে নিয়ন্ত্রণ আসবে : কৃষি মন্ত্রী


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: বুধবার, ৩১ আগষ্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ০৬:৪১ এএম
কৃষিমন্ত্রী
কৃষি মন্ত্রী ড. আবদুর রাজ্জাক, ফাইল ছবি

নিউজ ডেস্ক: ৫১ টাকা ২৩ পয়সা কেজি দরে ভিয়েতনাম থেকে দুই লাখ ৩০ হাজার টন চাল কিনছে সরকার। আগামী মাসে এ চাল দেশে পৌঁছাবে।  তখন চালের দাম নিয়ন্ত্রণে আসবে বলে জানিয়েছেন কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক। তিনি জানান, দেশে সারের কোন সংকট নেই। ডিসেম্বর পর্যন্ত সারের মজুদ আছে। 

কারসাজি করে সারের দাম বাড়তি নেয়া হচ্ছে উল্লেখ করে তিনি হুশিয়ারী দেন, সারের কৃত্রিম সংকট ও কারসাজি করলে জরিমানার পাশাপাশি ডিলারের লাইসেন্স বাতিল করা হবে। গেলো এক মাস ধরে অস্থির চালের বাজার। সব ধরণের চালের দামই কেজিতে ৫ থেকে ৮ টাকা বেড়েছে। বাজার নিয়ন্ত্রণে চালের আমদানি শুল্কও কমিয়েছে সরকার।  এবার এলো বড় অংকের আমদানির খবর। মঙ্গলবার বিকেলে সচিবালয়ে ভিয়েতনামের রাষ্ট্রদূত ফাম ভিয়েত চিয়েনের সঙ্গে বৈঠকে বসেন কৃষিমন্ত্রী। 

বৈঠক শেষে মন্ত্রী জানান, দেশটি থেকে দুই লাখ ৩০ হাজার টন চাল আমদানি হবে। যা খাদ্য বান্ধব কর্মসূচির আওতায় ১৫ টাকা কেজি দরে বিক্রি হবে।  আর টিসিবির মাধ্যমে ৩০ টাকা দরে ১ কোটি মানুষকে দেয়া হবে। এছাড়াও খোলা বাজারেও বিক্রি হবে। এসব পদক্ষেপের কারণে চালের দাম কমে আসবে।

দেশে সারের কোনো সংকট নেই জানিয়ে কৃষিমন্ত্রী বলেন, আগস্টে আজকে পর্যন্ত সরকারি- বেসরকারিভাবে আমদানি করা এক লাখ ৮০ হাজার টন এমওপি সার দেশে পৌঁছেছে। এরপরও কারসাজি করে সারের দাম বাড়তি নেওয়া হচ্ছে। সারের কৃত্রিম সংকট ও কারসাজি করলে জরিমানার পাশাপাশি ডিলারের লাইসেন্স বাতিল করা হবে বলে জানান কৃষিমন্ত্রী।

তিনি বলেন, লাইসেন্স দিয়েছে শিল্প মন্ত্রণালয়। আমরা তাদের কাছে সুপারিশ পাঠাচ্ছি, তারা এটা পরীক্ষা করবে এবং অনেক ডিলারের লাইসেন্স বাতিল হবে বলে আমরা মনে করছি। কৃষিমন্ত্রী বলেন, এখন চাষিরা ধান লাগানোর জন্য পাগল হয়ে গেছেন। তাদের সারও কিনতে হয়। হয়তো ডিলার বলছে গাড়ি আসেনি বা কোনো কারণে আজকে সার নেই, কাল আসেন। 

কৃষক হয়তো বলেন, না থাকলেও কিছু দাও। তখন চালাকি করে কারসাজি করে দাম বেশি নিচ্ছেন বলে অভিযোগ করেন ড. আব্দুর রাজ্জাক। তিনি আরও বলেন, ডিসি-এসপি, কৃষি কর্মকর্তাদের টেলিফোন করি, সবাই বলে আমাদের এখানে সারের কোনো সমস্যা নেই। 

আমাদের গুদামে সারের সংকট নেই, গত বছরের চেয়ে এবার বেশি সার দিচ্ছি। তারপরও কেন দাম বাড়বে? এখানে আমাদের প্রশাসনের কিছুটা ব্যর্থতা নিশ্চয়ই আছে।

চলতি মাসে ৩৮৩ জন সারের ডিলার ও খুচরা ব্যাবসায়ীকে জরিমানা করা হয়েছে। এই অভিযান আরো জোরদার করার কথা জানান কৃষিমন্ত্রী। 

ঢাকানিউজ২৪.কম / এসডি

কৃষি বিভাগের জনপ্রিয় সংবাদ

banner image
banner image