• ঢাকা
  • রবিবার, ১৯ আষাঢ় ১৪২৯ বঙ্গাব্দ; ০৩ জুলাই, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image

সামনের দিন হচ্ছে ডিজিটাল যুগের: মোস্তাফা জব্বার


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: শুক্রবার, ১৭ জুন, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ০২:২৯ পিএম
সামনের দিন হচ্ছে ডিজিটাল যুগের
ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার

নিউজ ডেস্ক: ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেছেন, প্রথম, দ্বিতীয় কিংবা চতুর্থ শিল্পবিপ্লব যুগের অবসান হয়ে গেছে, সামনের দিন হচ্ছে ডিজিটাল যুগের। এরই ধারাবাহিকতায় নতুন প্রজন্মের জন্য ডিজিটাল যুগের উপযোগী শিক্ষায় শিক্ষিত করা অপরিহার্য।

বৃস্পতিবার (১৬ জুন) রাতে রাজধানীর একটি হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টালে  কানাডিয়ান ইন্টারন্যাশনাল স্কুল, বাংলাদেশের সমাবর্তন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।

বাংলাদেশের ছেলেমেয়েদের তৈরি করা সফটওয়্যার ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানসহ প্রায় সর্বক্ষেত্রে সফলতার সঙ্গে ব্যবহৃত হচ্ছে। বিশ্বে ৮০টি দেশে আমরা সফটওয়্যার রফতানি করছি বলে মন্ত্রী উল্লেখ করেন।

অনুষ্ঠানে শিরিন আক্তার এমপি, কানাডা বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির প্রেসিডেন্ট মাসুদ রহমান এবং কানাডিয়ান ইন্টারন্যাশনাল স্কুল, বাংলাদেশের অধ্যক্ষ জেনিস স্মেলস বক্তব্য দেন।

শিক্ষার্থীরা এখন ইন্টারনেট সভ্যতার যুগ অতিক্রম করছে উল্লেখ করে ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী বলেন, পৃথিবীতে বাংলাদেশ প্রথম ডিজিটাল দেশ হিসেবে ঘোষিত হয়। আমরাই পৃথিবীতে ডিজিটাল বিপ্লবের পথ প্রদর্শক হিসেবে অনুকরণীয়। ডিজিটাইজেশনের ফলে অভাবনীয় অগ্রগতি অর্জনের মাধ্যমে উন্নত বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার দ্বারপ্রান্তে আমরা উপনীত হয়েছি। সামনের দিন হচ্ছে নতুন প্রজন্মের। ছাত্র-ছাত্রীদের মুখের দিকে তাকিয়ে আমরা আগামীর সুন্দর বাংলাদেশ দেখতে পাই।

ছাত্র-ছাত্রীদের উপযুক্ত শিক্ষার মাধ্যমে ডিজিটাল দক্ষতাসম্পন্ন মানবসম্পদ হিসেবে গড়ে তোলার জন্য দেশের শিক্ষক সমাজের অপরিসীম দায়িত্ব রয়েছে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, আমার সন্তান হচ্ছে আমার বড় সম্পদ।

তিনি বলেন, বিশ্বের অনেক উন্নত দেশ তাদের জনসম্পদের ঘাটতি মিটাতে রোবট, কৃত্রিমবুদ্ধিমত্তা কিংবা আইওটি প্রযুক্তিকে তাদের অবলম্বন হিসেবে মনে করেছে। ফলে তারা ডিজিটাল যান্ত্রিক সভ্যতার দিকে ঝুঁকছে। কিন্তু প্রযুক্তির কারণে আমার দেশের জনশক্তিকে কখনো চ্যালেঞ্জের মুখে আমরা দাঁড় করাতে দিতে পারি না।

আমরা প্রযুক্তিকে কোনো অবস্থাতেই মানুষের বিকল্প হিসেবে দেখতে চাই না। যাতে উন্নত দেশের জন্য রোবট কিংবা ডিজিটাল যন্ত্র রফতানি করতে পারি সে বিষয়ে  আমাদের প্রস্তুতি গ্রহণের এখনই সময় বলে উল্লেখ করেন কম্পিউটারে বাংলা ভাষার এই উদ্ভাবক।

শিরিন আক্তার এমপি ছাত্র-ছাত্রীদের ভিশনারি হওয়ার আহ্বান জানিয়ে বলেন, জীবনের স্বপ্নটা বড় করে দেখতে হবে এবং স্বপ্ন বাস্তবায়নে অদম্য হতে হবে। কোনো অবস্থাতেই পেছনে তাকানো যাবে না। এগোতে হবে স্বপ্নপূরণের অদম্য আগ্রহ নিয়ে।

বক্তব্য শেষে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশিত হয়।

ঢাকানিউজ২৪.কম / কেএন

শিক্ষা বিভাগের জনপ্রিয় সংবাদ

banner image
banner image