• ঢাকা
  • শনিবার, ২ আশ্বিন ১৪২৮ বঙ্গাব্দ; ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image

ঠাকুরগাঁওয়ে দুই মিনিটের ব্যবধানে দুইবার টিকা পুশ, হাসপাতালে গৃহবধূ


ঢাকানিউজ২৪ ; প্রকাশিত: বৃহস্পতিবার, ০৯ সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ১২:২৮ পিএম
দুই মিনিটের ব্যবধানে দুইবার টিকা পুশ
হাসপাতালে গৃহবধূ

গৌতম চন্দ্র বর্মন, ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি: দেশে চলছে মহামারি করোনাভাইরাসের টিকাকরণ কার্যক্রম। এরই অংশ হিসেবে ঠাকুরগাঁওয়ের বালিয়াডাঙ্গী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সেও দেওয়া হচ্ছে করোনার টিকা। যথারীতি মুঠোফোনে ক্ষুদেবার্তা পেয়ে করোনা টিকার দ্বিতীয় ডোজ গ্রহণ করতে যান এক গৃহবধূ।.

কিছুক্ষণ অপেক্ষার পর তিনি দ্বিতীয় ডোজ টিকা গ্রহণ করেন। এরপর হঠাৎ করেই দৃশ্যপটে আসেন আরেক নার্স। কিছু শোনার আগেই তিনিও ওই গৃহবধূকে টিকা পুশ করে দেন। ওই গৃহবধূ জানান, তিনি মাত্রই টিকার দ্বিতীয় ডোজ নিয়েছেন। ততক্ষণে ওই নার্স তার ভুল বুঝতে পারেন।.

নিজের ভুল বোঝার পরও ওই নার্স নিজের সাফাই গেয়ে তাকে কোনো সমস্যা হবে না মর্মে আশ্বস্ত করেন। আর যদি কোনো সমস্যা হয় তবে তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করতে বলে বাড়ি চলে যেতে বলেন। তবে একসেঙ্গ দুই ডোজ টিকা গ্রহণ করার পর ওই গৃহবধূ অসুস্থ হয়ে পড়ায় তিনি হাসপাতালে ভর্তি হন।.

গতকাল মঙ্গলবার ৭ সেপ্টেম্বর বিকেলে চাঞ্চল্যকর এ ঘটনা ঘটেছে ঠাকুরগাঁওয়ের বালিয়াডাঙ্গী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে। ভুক্তভোগী ওই গৃহবধুর নাম ফেন্সী আকতার (৩৯)। তিনি উপজেলার চাড়োল ইউনিয়নের ছোট সিঙ্গীয়া গ্রামের তাজিম উদ্দীনের স্ত্রী। বর্তমানে তিনি বালিয়াডাঙ্গী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।.

গৃহবধু ফেন্সী আকতার জানান, টিকার দ্বিতীয় ডোজ নিতে তিনি স্বামীর সঙ্গে হাসপাতালের টিকা গ্রহণ কেন্দ্রে আসেন। মহিলাদের টিকা প্রদান বুথে একজন নার্সকে টিকা কার্ড দেখালে তিনি টিকা প্রদান করেন। এর ঠিক দুই মিনিট পরে আরেকজন নার্স এসে আবারও তাকে টিকা পুশ করেন। পরে ওই নার্স তাকে সমস্যা হবে বলে জানান।.

গৃহবধুর স্বামী তাজিম উদ্দীন বলেন, ‘ভুল করে সিনোফার্মের ২টি টিকা একসঙ্গে দিয়ে ফেলেছে নার্স। প্রথম ডোজসহ তার তিনবার টিকা গ্রহণ হয়ে গেল। এখন কি হবে? খুব টেনশন হচ্ছে। যদি কিছু হয়। এদিকে হাসপাতালে চিকিৎসা করাতে ওষুধ ও ইনজেকশন কিনতে আমার অনেক টাকা খরচ হচ্ছে। নার্সদের ভুলের মাসুল আমার স্ত্রী ও আমাকে দিতে হচ্ছে।’.

এদিকে ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন বালিয়াডাঙ্গী উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আবুল কাসেম। তিনি বলেন, ‘টিকা বুথে প্রচন্ড ভিড় থাকে। প্রতিদিন এসব সামলাতে অমাদের হিমসিম খেতে হচ্ছে। ওই গৃহবধূ বর্তমানে ভালো আছে। ডাবল টিকা নেওয়ার কারণে মানসিক সমস্যায় ভুগছেন তিনি।. .

ঢাকানিউজ২৪ / গৌতম চন্দ্র বর্মন

স্বাস্থ্য বিভাগের জনপ্রিয় সংবাদ

banner image
banner image