• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ২ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ; ১৮ জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image
website logo

ইবিতে মারামারির ঘটনায় অভিযোগ


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: সোমবার, ২০ মার্চ, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ, ১২:৩২ পিএম
ব্যাচ-ভিত্তিক অনুষ্ঠানে
ইবিতে মারামারির ঘটনায় পাল্টা অভিযোগ

আহমাদ গালিব, ইবি প্রতিনিধি : ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে (ইবি) ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের ব্যাচ ‘প্রজ্জলিত-৩৫’ এর উদ্যোগে অবতরণিকা উৎসব পালন নিয়ে মারধরের ঘটনা ঘটে। পরবর্তীতে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের নিকট মারধরের শিকার ২ শিক্ষার্থী প্রক্টর বরাবর লিখিত অভিযোগ জমা দেন। এতে তাসিন ইসলাম রাহিন, মোবারক হোসেন আশিক ও রাব্বি ফকিরসহ ৩০-৪০ জনের বিরুদ্ধে অতর্কিত হামলার অভিযোগ করেন ওই ঘটনায় আহত মুশফিকুর রহমান ও রানা আহমেদ অভি। এদিকে ঘটনার দুদিন পর গতকাল শনিবার প্রক্টর বরাবর আহতদের বিরুদ্ধে পাল্টা লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন অভিযুক্তরা।  

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, গত বৃহঃস্পতিবার (১৬ মার্চ) অবতরণিকা উৎসব পালনে বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থীরা একত্রিত হলে শুরুতেই টি-শার্ট বিতরণ নিয়ে বাকবিতন্ডা ঘটে। বিষয়টি সিনিয়রদের হস্তক্ষেপে মীমাংসা করার পরেও ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের তিন শিক্ষার্থী (মুশফিকুর রহমান, সাব্বির রহমান শাওন, রানা আহমেদ অভি) পুনরায় শিক্ষার্থীদের সাথে ঝামেলা করে। এসময় তারা সাধারণ শিক্ষার্থীদের দেখে নেয়ার হুমকি দেয় এবং স্থানীয়দের সাথে নিয়ে বাইকে করে মহড়া দিয়ে ভয়ভীতি প্রদর্শন করে।অভিযুক্তরা শিক্ষার্থীদের হুমকি দিয়ে বলে, ‘ক্যাম্পাসের গেইট পার হলেই কিন্ত আমাদের বাড়ি, চিনিস আমাদের- মেরে একদম পুতে ফেলবো।’ ঘটনা প্রবাহের এক পর্যায়ে শিক্ষার্থীদেও মাঝে হাতাহাতি ও সংঘর্ষ হয়। এসময় ব্যাচের উপস্থিত ছাত্রীদের সাথে অসৌজন্যমূলক আচরণ করে। ইভটিজিংয়ের শিকার হয়ে এক ছাত্রী আয়োজন ছেড়ে চলে যায়।বাকবিতন্ডার একপর্যায়ে ইট নিয়ে আঘাত করতে আসে অভিযুক্ত মুশফিকুর রহমান। এসময় অভিযুক্তরা স্থানীয়দের সাথে নিয়ে দেশিয় অস্ত্রসহ অতর্কিত হামলা করে এবং সেখানেই মেরে ফেলার হুমকি দেয়। 

অভিযুক্তদের পাল্টা লিখিত অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, কিছু স্থানীয় শিক্ষার্থী উৎসবটিতে প্রথম থেকেই হুমকি দেয় এবং স্থানীয় সন্ত্রাসী ছেলেদের নিয়ে এসে সবাইকে হেনস্থা করে। তারা (মুশফিক ও সাব্বির শাওন) সমন্বয়ের কথা বলে পরে শিক্ষার্থীদের সাথে খারাপ আচরন করে ও স্থানীয় প্রভাব দেখায়। তাছাড়া উৎসবটিতে স্থানীয়দের বাইকে করে এনে মেয়েদের উত্যক্ত করে ও হুমকি দেয়। উক্ত ঘটনায় আমরা  (মোবারক হোসেন, মাহমুদুর রহমান সহ ২৮ জন) ইভেন্ট অর্গানাইজার ছিলাম। একপর্যায়ে বাংলা মঞ্চে বিশৃংখলা দেখে দৌড়ে যাই ও দেখি ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের শিক্ষার্থীদেও সাথে অন্যদের ঝামেলা চলছে। আমরা তাদের শান্ত হতে অনুরোধ করি ও এই ২ পক্ষের ঝামেলাতে আমাদের কোনও সংযুক্ততা ছিল না। 

এ বিষয়ে রানা আহমেদ অভি বলেন, ‘এগুলো সম্পন্ন বানোয়াট অভিযোগ। আমরা যদি অস্ত্র দিয়ে তাদেরকে অতর্কিত হামলা করতাম, তাহলে তাদের আহত হওয়ায় কথা। কিন্তু তা হয়নি। আর কোনো মেয়ের সাথে এরকম আমাদের কারো কিছুই হয়নি, আমরা জানিও না। স্থানীয় কোন লোক সেখানে ছিল না।’

আবার, প্রদত্ত অভিযোগ নিয়েমুশফিকুর রহমান বলেন, তারা যে অভিযোগ জমা দিয়েছে তা সম্পূর্ন উদ্দেশ্য প্রণোদিত। যদি তা সত্যই হয়ে থাকে তবে ঘটনার ২দিন পরে এসে কেনও অভিযোগ দিচ্ছে।’

ঢাকানিউজ২৪.কম / কেএন

আরো পড়ুন

banner image
banner image