• ঢাকা
  • শুক্রবার, ২৭ শ্রাবণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ; ১২ আগষ্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image

পর্তুগালে নিজস্ব ভবনে বাংলাদেশ দূতাবাস


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: রবিবার, ০৩ জুলাই, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ১১:৪৬ এএম
পর্তুগালে বাংলাদেশ দূতাবাস
পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন

নিউজ ডেস্ক : বাংলাদেশ সরকারের কেনা পর্তুগালে বাংলাদেশ দূতাবাসের নিজস্ব ভবন চালু হয়েছে । শুক্রবার (০১ জুলাই) দূতাবাস ভবনটির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন। সংক্ষিপ্ত আলোচনায় দু’দেশের সম্পর্ক আরও বাড়ানোর ওপর জোর দেন মন্ত্রী ও পর্তুগালের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সেক্রেটারি জেনারেল।

পর্তুগালের লিসবনে বাংলাদেশ দূতাবাস অবস্থিত। ২০২০ সালের ডিসেম্বরে বাংলাদেশ সরকারের কেনা নিজস্ব দূতাবাস ভবনে সেবা দেয়া শুরু হলেও উদ্বোধন হলো এত দিনে। শুক্রবার (০১ জুলাই) এর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন। এ সময় রাষ্ট্রদূত তারিক আহসান ও দূতাবাসের কর্মকর্তারা ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন পর্তুগিজ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সেক্রেটারি জেনারেল অ্যাম্বাসেডর আলভারো মৌরা।

উদ্বোধন করা হয় দূতাবাসের মুজিব কর্নারেরও। পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও আমন্ত্রিত অতিথিদের দূতাবাস প্রাঙ্গণ ঘুরে দেখান রাষ্ট্রদূত ও সচিবরা। অতিথিরা স্বাক্ষর করেন তাদের জন্য রাখা গেস্ট বুকে। এরপর সংক্ষিপ্ত আলোচনায় পর্তুগাল ও বাংলাদেশের ঐতিহাসিক সম্পর্কের কথা তুলে ধরেন বক্তারা। দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক আরও বাড়ানোর ওপর জোর দেন মন্ত্রী ও পর্তুগাল সরকারের প্রতিনিধিরা।

পর্তুগিজ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সেক্রেটারি জেনারেল অ্যাম্বাসেডর আলভারো মৌরা বলেন, বাংলাদেশ কমিউনিটি পর্তুগালের অর্থনীতিতে দারুণ ভূমিকা রাখছে। আমরাও চাই বাংলাদেশের সঙ্গে পর্তুগালের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের উন্নয়ন হোক। তবে আমাদেরও সীমাবদ্ধতা রয়েছে। অর্থনৈতিক সীমাবদ্ধতাটা এখানে মুখ্য। তবু আমরা চেষ্টা করছি।

বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন বলেন, পর্তুগালে বাংলাদেশের এ অগ্রযাত্রায় আমি পর্তুগালের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়সহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে ধন্যবাদ জানাই। বাংলাদেশের সঙ্গে পর্তুগালের সম্পর্ক ঐতিহাসিক। দিনে দিনে সে সম্পর্কের পরিধি বেড়েছে। আমরা চাই দুদেশের সম্পর্ক আরও বাড়বে এমন চলমান নানা সীমাবদ্ধতা কাটিয়ে সম্পর্ক আরও জোরদার হবে।

আলোচনা শেষে দূতাবাসের সেবা কার্যক্রম পরিদর্শন করেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী। এরপর দূতাবাস প্রাঙ্গণে সম্মিলিত কণ্ঠে গাওয়া হয় জাতীয় সংগীত।

পর্তুগিজ পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. জোয়াও গোমেজ কারভিনোর সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক বৈঠক করেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন। বিভিন্ন জটিলতা নিরসনসহ গুরুত্বপূর্ণ বিভিন্ন বিষয় নিয়ে কথা বলেন তারা।

ঢাকানিউজ২৪.কম / কেএন

আর্ন্তজাতিক বিভাগের জনপ্রিয় সংবাদ

banner image
banner image