• ঢাকা
  • রবিবার, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ; ২৯ মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image

সিপিবি দ্বাদশ কংগ্রেসে ভোটাধিকার ও গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার দৃঢ় প্রত্যয় ঘোষনা


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: রবিবার, ২৭ ফেরুয়ারী, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ১০:৩২ পিএম
গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন
সিপিবির দ্বাদশ কংগ্রেসে

নিউজ ডেস্ক:  বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির (সিপিবি) দ্বাদশ কংগ্রেসে বামপন্থিদের ঐক্যবদ্ধ করে বাম-গণতান্ত্রিক বিকল্প গড়ার লক্ষ্যের প্রতি আবারও অবিচল আস্থার কথা জানিয়েছেন সারাদেশের প্রতিনিধিরা। একইসঙ্গে গণআন্দোলনের মাধ্যমে ভোটাধিকার ও গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন তারা।

রোববার ঢাকার গুলিস্তানে মহানগর নাট্যমঞ্চের কাজী বশির মিলনায়তনে সিপিবির দ্বাদশ কংগ্রেসের তৃতীয় দিনে এমন প্রত্যয় ব্যক্ত করা হয়। এ সময় প্রতিনিধিরা কংগ্রেসের খসড়া রাজনৈতিক প্রস্তাবের ওপর আলাপ-আলোচনা করেন।

পরে সিপিবির সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম রাজনৈতিক প্রস্তাব অনুমোদনের জন্য আহ্বান জানালে প্রতিনিধিরা তাদের প্রতিনিধি কার্ড উর্ধ্বে তুলে ধরে প্রস্তাব অনুমোদন করেন। এ প্রস্তাব অনুমোদনের মাধ্যমে প্রতিনিধিরা সিপিবির আগামী নেতৃত্বকে বাম-বিকল্প গড়ে তুলে শ্রমিক-কৃষকের রাষ্ট্র গঠনে কর্মসূচির গাইড ঠিক করে দেন।

তৃতীয় দিনের অষ্টম অধিবেশনে সভাপতিত্ব করেন কংগ্রেসের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য অ্যাডভোকেট এমদাদুল হক মিল্লাত। ৩৪ জন প্রতিনিধি রাজনৈতিক প্রস্তাবের উপর আলোচনা করেন।

তারা বলেন, রাষ্ট্র ও সমাজজীবনের সর্বক্ষেত্রে যে পচন ও অবক্ষয় দেখা দিয়েছে, সমাজতন্ত্রের লক্ষ্যে বিপ্লবী গণতান্ত্রিক পরিবর্তন ছাড়া অন্য কিছু দিয়ে সেই সংকট নিরসন করা যাবে না। বুর্জোয়া রাজনীতির বেড়াজাল ভেঙে বামপন্থিদের নেতৃত্বে বিকল্প রাজনৈতিক শক্তি এবং গণশক্তির সচেতন সংগঠিত উত্থান ছাড়া বর্তমানের দুঃশাসন হটানো ও ব্যবস্থা বদলানো সম্ভব না। বর্তমান পরিস্থিতি সুস্পষ্টভাবে প্রমাণ করছে, সাম্রাজ্যবাদ ও পুঁজিবাদী বিশ্বায়নই আজ সকল জাতির ও মানব সমাজের দুর্দশার মূল কারণ এবং সমাজতন্ত্রের পথ ধরেই এই সংকট থেকে মুক্তি সম্ভব।

এর আগে সপ্তম অধিবেশনে কেন্দ্রীয় কমিটির রিপোর্টের ওপর আলোচনা শেষে দলের সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ শাহ আলম রিপোর্টের ওপর সমাপনী বক্তব্য রাখেন। এরপর কংগ্রেসের প্রতিনিধিরা সর্বসম্মতিক্রমে তা অনুমোদন করেন।

পরে দলের ঘোষণা-কর্মসূচি সমসাময়িকীকরণ ও গঠনতন্ত্র সংশোধন বিষয়ে কংগ্রেসে আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়। এছাড়া দশম অধিবেশনে অডিট কমিটির রিপোর্ট ও একাদশ অধিবেশনে কন্ট্রোল কমিশনের রিপোর্টের ওপর আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়। আজ সোমবার কংগ্রেসের কাউন্সিল অধিবেশনে আগামী চার বছরের দলের নতুন নেতৃত্ব নির্বাচন করা হবে।

ঢাকানিউজ২৪.কম /

রাজনীতি বিভাগের জনপ্রিয় সংবাদ

banner image
banner image