• ঢাকা
  • বুধবার, ৮ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ; ২৪ জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image
website logo

মেয়াদোত্তীর্ণ ঔষুধ পাওয়ায় ৩ ফার্মেসিকে জরিমানা ভোক্তা অধিকার আইনে


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: শুক্রবার, ৩১ মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ০১:২৯ পিএম
মেয়াদোত্তীর্ণ ঔষুধ পাওয়ায়
৩ ফার্মেসিকে জরিমানা ভোক্তা অধিকার আইনে

নাজমুল হোসেন, নিজস্ব প্রতিবেদক : লক্ষ্মীপুর জেলায় অভিযান চালিয়ে মেয়াদোত্তীর্ণ ঔষুধ ৩ টি ফার্মেসির ৪৫ হাজার টাকা জরিমানা করেছে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর।

বৃহস্পতিবার (৩০ মে) সন্ধ্যার দিকে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের লক্ষ্মীপুর জেলা কার্যালয়ের সহাকারী পরিচালক নুর হোসেন তথ্য দিয়ে নিশ্চিত করেন।

লক্ষ্মীপুর জেলা কার্যালয়ে দুটি লিখিত অভিযোগ নিষ্পত্তি হয়। মু. রেদোয়ান নামের একজন ভোক্তা সদরের দালাল বাজার সংলগ্ন খোয়াসা দিঘির পাড়ে হান্ডি কিচেনে ২৫ টাকার স্প্রাইট ৩০ টাকা রাখার দায়ে প্রমাণ সহ একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

অভিযোগের ভিত্তিতে শুনানি হয়। শুনানিতে অভিযুক্ত প্রতিষ্ঠান দোষ স্বীকার করেন এবং প্রতিষ্ঠানটিকে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন ২০০৯ এর ৪০ ধারা মোতাবেক ২৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। আইন অনুযায়ী  আরোপিত জরিমানার ২৫% অর্থ ৬২৫ টাকা ভোক্তাকে দেয়া হয়েছে। 

মো. নোমান হোসেন বাবর নামের আরেকজন ভোক্তা স্টার এস কে হাসপাতালের বিরূদ্ধে প্যাথেডিন ইনজেকশন এর দাম (সঠিক দাম ১ এম্পুল ৩৪ টাকা) ৫০০ টাকা রাখার দায়ে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

অভিযোগটির সত্যতা প্রমাণিত হওয়ায় উক্ত প্রতিষ্ঠানকে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন ২০০৯ এর ৪০ ধারা অনুযায়ী ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।  আইন অনুযায়ী আরোপিত জরিমানার ২৫% অর্থ ২ হাজার ৫'শ ভোক্তাকে প্রদান করা হয়। 

ভোক্তা অধিকার অধিদপ্তর সূত্রে জানা যায়, বিকালের দিকে লক্ষ্মীপুরের জেলা শহরের বিভিন্ন ফার্মেসিতে অভিযান পরিচালনা করা হয়। এসময় মেয়াদোত্তীর্ণ ঔষুধ পাওয়ায় মাহমুদ ফার্মেসিকে ৫ হাজার ও ভূঁইয়া ফার্মেসিকে ২০ হাজার এবং স্টার কে এস ফার্মেসিকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

এ বিষয়ে নুর হোসেন বলেন, জনস্বার্থে ভোক্তা অধিকার কাজ করে যাচ্ছে। লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতাল ও রামগতি সড়কে আমরা অভিযান পরিচালনা করি। মেয়াদোত্তীর্ণ ঔষুধ পাওয়ায় ৩টি ফার্মেসিকে জরিমানা করা হয়। জনস্বার্থে এ ধরনের অভিযান অব্যাহত থাকবে। লঙ্ঘিত হলে ভোক্তার অধিকার ভোক্তা পাবে তার প্রতিকার এমন প্রত্যয় সামনে রেখে ভোক্তা অধিদপ্তর কাজ করে যাচ্ছে।

অভিযানে সার্বিক সহযোগিতা করেন লক্ষ্মীপুর জেলার নিরাপদ খাদ্য কর্মকর্তা সুমধু। সহযোগিতা ছিলেন লক্ষ্মীপুর মডেল থানা পুলিশের একটি চৌকশ টিম। 

ঢাকানিউজ২৪.কম / কেএন

আরো পড়ুন

banner image
banner image