• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ৬ মাঘ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ; ২০ জানুয়ারী, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image

পরীক্ষার প্রশ্ন ফাঁসের কোনো সুযোগ নেই: শিক্ষামন্ত্রী


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: রবিবার, ১৪ নভেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ০২:০৪ পিএম
প্রশ্ন ফাঁসের সুযোগ নেই
শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি

ডেস্ক রিপোর্টার: শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, চলমান এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় প্রশ্ন ফাঁসের কোনো সুযোগ নেই। রোববার এসএসসি পরীক্ষার প্রথম দিনে রাজধানীর মতিঝিল বয়েজ স্কুল পরিদর্শনে গিয়ে সাংবাদিকদের একথা জানান তিনি।

ডা. দীপু মনি বলেন, পরীক্ষার প্রশ্ন ফাঁসের কোনো সুযোগ নেই। আশা করি কোথাও প্রশ্ন ফাঁস হবে না কোনোভাবে।

তিনি বলেন, 'গুজব ছড়ানোর একটি অপচেষ্টা আছে, থাকবে। তবে কেউ যেন গুজবে কান না দেয়। আমি অভিভাবকদের কাছে অনুরোধ করবো- কোনোভাবেই আপনারা গুজবে কান দেবেন না। আপনাদের ছেলেমেয়েরাও যাতে গুজবে কান না দেয় সেদিকে লক্ষ্য রাখবেন। আর যারা গুজব ছড়াবে এবং প্রশ্ন ফাঁসের চেষ্টা করবে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। সবাই যেন সাবধান থাকে। কেউ যেন এ ধরনের অপচেষ্টার সঙ্গে সম্পৃক্ত না হয়।'

এখন পর্যন্ত খুবই শান্তিপূর্ণভাবে পরীক্ষা চলছে জানিয়ে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, হলগুলোর ভেতরে স্বাস্থ্যবিধি মেনে পরীক্ষা নেওয়ার সব ব্যবস্থা করা হয়েছে। তবে সমস্যা একটা যেটা হচ্ছে যে, বাইরে অভিভাবকেরা অপেক্ষা করছেন। সেখানে স্বাস্থ্যবিধি সেভাবে হয়তো মানা হচ্ছে না। আমরা আগেও বলেছি, আবারও বলছি- বাইরে যারা আছেন তারা যেন ভিড় না করেন।

সারাদেশে ১১টি শিক্ষা বোর্ডের অধীনে ২০২১ সালের এসএসসি ও সমমানের দাখিল, এসএসসি (ভোকেশনাল) ও দাখিল (ভোকেশনাল) পরীক্ষা রোববার সকাল ১০টায় একযোগে শুরু হয়। পরীক্ষা চলে সকাল সাড়ে ১১টা পর্যন্ত। বিকেলের পরীক্ষা দুপুর ২টা থেকে বিকেল সাড়ে ৩টা পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হবে।

প্রথম দিন সকালে এসএসসির পদার্থবিজ্ঞান (তত্ত্বীয়) বিষয়ের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। আর দাখিলের কোরআন মজিদ ও তাজবিদ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয় সকালে। বিকেলে দাখিলের পদার্থবিজ্ঞান (তত্ত্বীয়) পরীক্ষা নেওয়া হবে। এ ছাড়া কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের এসএসসি (ভোকেশনাল) পদার্থবিজ্ঞান-২ (সৃজনশীল) বিষয়ের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে সকালে।

এবছর মোট ২২ লাখ ২৭ হাজার ১১৩ শিক্ষার্থীর মধ্যে শুধু এসএসসিতে ১৮ লাখ ৯৯৮, দাখিলে তিন লাখ এক হাজার ৮৮৭ এবং এসএসসিতে (ভোকেশনাল) এক লাখ ২৪ হাজার ২২৮ জন পরীক্ষা দিচ্ছে। গত বছরের তুলনায় এ বছর পরীক্ষার্থী বেড়েছে এক লাখ ৭৯ হাজার ৩৩৪ জন। এবার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বেড়েছে ১৫১টি এবং কেন্দ্র বেড়েছে ১৬৭টি। এই বৃদ্ধির হার ৮ দশমিক ৭৬ শতাংশ।

করোনা পরিস্থিতির কারণে এবার যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মেনে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। পরীক্ষা শুরুর ৩০ মিনিট আগে কক্ষে গিয়ে আসন গ্রহণ করতে হয়েছে শিক্ষার্থীদের। পরীক্ষা শেষে ৩০ দিনের মধ্যে ফল প্রকাশ করা হবে।

ঢাকানিউজ২৪.কম / কেএন

জাতীয় বিভাগের জনপ্রিয় সংবাদ

banner image
banner image