• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ৭ মাঘ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ; ২০ জানুয়ারী, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image

আবাসনের জন্য ঢাকার বাইরের এলাকা নিয়ে ভাবতে হবে: বাণিজ্যমন্ত্রী


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: বৃহস্পতিবার, ২৩ ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ০৫:০৪ পিএম
আবাসনের জন্য ঢাকার বাইরের এলাকা
বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি

ডেস্ক রিপোর্টার: বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেছেন, মানুষ তার সারা জীবনের আয় দিয়ে বাসস্থান নিশ্চিত করতে চায়। ফ্ল্যাট-প্লটের জন্য টাকা-পয়সা দিয়ে যেন কোনো ক্রেতা প্রতারণার শিকার না হন, সেদিকে সবাইকে খেয়াল রাখতে হবে। আরও বলেন, ঢাকায় মানুষের চাপ বাড়ছে। ঢাকার বাইরের এলাকা নিয়ে এখন ভাবতে হবে। ব্যবসায়ীদের সেদিকটাও বিবেচনা করতে হবে।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে পাঁচ দিনব্যাপী রিহ্যাব ফেয়ারের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এই কথা বলেন। প্রস্তাবিত ডিটেইল এরিয়া প্লান (ড্যাপ) প্রসঙ্গে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, ড্যাপ বাস্তবায়ন হলে আবাসন খাতে ক্ষতি হতে পারে। আর তাতে মূলত সমস্যায় পড়বে সেসব সাধারণ মানুষ, যারা নিজেদের থাকার ব্যবস্থা নিশ্চিত করার অপেক্ষায় রয়েছেন। সবার সহযোগিতা হয়, এমন প্রকল্প বাস্তবায়ন হবে।

অনুষ্ঠানে প্রস্তাবিত ড্যাপের খসড়া প্রস্তুত করার আগে শীর্ষ ব্যবসায়ী নেতাদের সঙ্গে আলোচনা না করায় রাজউকের উপর ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন এফবিসিসিআইয়ের সভাপতি মো. জসিম উদ্দিন। তিনি বলেন, স্বল্প আয়ের দেশ থেকে মধ্যম আয়ের দেশে উন্নীত হওয়ার পর কয়েকটি চ্যালেঞ্জ আসতে পারে। সবার সহযোগিতায় সেগুলোকে অতিক্রম করতে হবে। কিন্তু দুঃখের বিষয় ড্যাপ বাস্তবায়ন হচ্ছে অথচ এ বিষয়ে আলোচনার জন্য এফবিসিসিআইকে ডাকা হয়নি। অথচ  এফবিসিসিআই সারা দেশের ব্যবসায়ীদের নেতৃত্বে দিচ্ছে।

তিনি আরও বলেন, প্রস্তাবিত যেই ড্যাপ তৈরি করা হয়েছে সেটা এফবিসিসিআইকে দেওয়া উচিত ছিল। এই সংগঠন থেকে ড্যাপের বিষয়ে ভাল পরামর্শ দেওয়া যেত। মনে রাখতে হবে, সরকার ব্যবসায়ীদের এগিয়ে যাওয়ার জন্য কাজ করছে। তাই ব্যবসায়ীদের অগোচরে কোনো সিদ্ধান্ত নিয়ে তা বাস্তবায়ন করা কঠিন।

জসিম উদ্দিন বলেন, ঢাকায় মানুষের চাপ বেড়ে যাওয়ায় মানুষকে সরিয়ে নেওয়ার পরিকল্পনা করছে রাজউক। কিন্তু কোথায় নেওয়া হবে, সে বিষয়ে কোনো দিক নির্দেশনা নাই। কৃষি জমি বাঁচাতে হবে। সেজন্য ভবনের উচ্চতা নিয়ে ভাবতে হবে। একটি বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চলে আবাসন ব্যবসায়ীদের জন্য একটা জোন রাখা উচিত। সেসব জোনে থাকবে শিক্ষা, স্বাস্থ্যসহ আবাসনেরও সব সুযোগ-সুবিধা।

রিহ্যাবের সভাপতি আলমগীর শামসুল আলামিন কাজল বলেন, প্রস্তাবিত ড্যাপ বাস্তবায়ন নিয়ে ব্যবসায়ীরা চরম আতংকে রয়েছে। তবে রাজউক বলেছে, একটি সময়োপযোগী ড্যাপ বাস্তবায়ন করবে। ব্যবসায়ী ও জনসাধারণের কথা বিবেচনা করে ড্যাপ বাস্তবায়ন করা হবে।

সরকার এমন কোনো পদক্ষেপ নেবে না, যা আবাসন খাতে ক্ষতির কারণ হয়ে দাঁড়াবে। উইন উইন সিচুয়েশনে ড্যাপ বাস্তবায়ন করা হবে। ড্যাপ নিয়ে আলোচনার আরও অনেক সুযোগ আছে। এখনি আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই।

বস্তিবাসীদের জন্য আবাসনের ব্যবস্থা নিশ্চিত করা জরুরি হয়ে পড়েছে। এ বিষয়ে রাজউক কাজ করছে। তাদের উচ্ছেদ নয়, বরং দেশের উন্নয়েনে তাদের সম্পৃক্ত করা হবে।

ঢাকানিউজ২৪.কম / কেএন

জাতীয় বিভাগের জনপ্রিয় সংবাদ

banner image
banner image