• ঢাকা
  • শনিবার, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ; ০৩ ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image

বৈষম্য দূর করার বার্তা নিয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ভারতীয় যুবক 


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: রবিবার, ২০ নভেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ১২:২০ পিএম
বৈষম্য দূর করার বার্তা নিয়ে
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ভারতীয় যুবক 

মনিরুজ্জামান মনির, ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধিঃ লিঙ্গ, জাতি, বর্ণসহ সব ধরনের বৈষম্য দূর করার বার্তা নিয়ে বাংলাদেশের ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় অবস্থান করছেন ভারতীয় নাগরিক দ্বিরাজ কুমার গুপ্তা। ভারতের বিভিন্ন রাজ্য ঘুরে এবার বাংলাদেশে এসেছেন বিহারের এই তরুণ। ১৩ নভেম্বর সিলেটের তামাবিল সীমান্ত দিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করেন ধিরাজ। 

তারপর সিলেট, শ্রীমঙ্গল, হবিগঞ্জসহ ৫টি জেলায় ঘুরে শুক্রবার সন্ধ্যায় তিনি ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় এসে পৌছান। শনিবার সকালে শহরের লোকনাথ দীঘির টেংকেরপাড় এলাকায় পৌছলে ভোরের সাথী ও রানার্স কমিউনিটির পক্ষ থেকে তাকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানানো হয়। আগামী ২০দিন সাইকেল নিয়ে দেশের বিভিন্ন জেলায় ঘুরবেন তিনি। এরপর তিনি ঢাকা হয়ে বেনাপোল বন্দর দিয়ে ভারতের পশ্চিমবঙ্গে প্রবেশ করবেন।

জানা যায়, ২০২১ সালের ১১ নভেম্বর থেকে সাইকেল যাত্রা শুরু করেন ভারতের বিহার প্রদেশের জেহানাবাদ জেলার নেওয়ারী নওঘর গ্রামের পানচু সাবের ছেলে দ্বিরাজ। তিনি বর্তমানে দিল্লির আম্বেতকার বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পিএইচডি করছেন। পাঞ্জাব, দিল্লি, বিহার, সিকিম, আসাম, ত্রিপুরা, মেঘালয়সহ এ পর্যন্ত ভারতের ১৪টি রাজ্য সাইকেল নিয়ে ঘুরেছেন।

২০১৯ সালে পাঞ্জাবের একটি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এমফিল করা দ্বিরাজ বলেন, ছোটবেলা থেকে প্রচুর বৈষম্য দেখেছি। আমাদের দেশে লিঙ্গ ও বর্ণের পাশাপাশি জাত নিয়েও বৈষম্য প্রবল। একসময় ভাবলাম, বৈষম্য দূর করার জন্য কিছু একটা করা দরকার। সেই ভাবনা থেকেই সাইকেল ভ্রমণ। ২০২১ সালের ১১নভেম্বর শুরু হয় দ্বিরাজের সাইকেল যাত্রা। 

প্রাথমিক ভাবে বাংলাদেশে আসার কোন পরিকল্পনা ছিল না। আমার পরবর্তী গন্তব্য পশ্চিমবঙ্গ। আসাম থেকে বাংলাদেশের ভেতর দিয়ে পশ্চিমবঙ্গ যাওয়া সহজ। তাই এখানে এসেছি। তিনি জানান, যেহেতু এসেছি তাই বাংলাদেশেও বিদ্বেষের বিরুদ্ধে মানুষকে সচেতন করতে কাজ করব। পাশাপাশি ভারত ও বাংলাদেশের সংস্কৃতি ও মানুষ সর্ম্পকে জানতে আমার এই যাত্রা। এদেশের মানুষের আতিথিয়েতা ও উষ্ণ অর্ভ্যথনায় আমি মুগ্ধ। ২০ দিন বাংলাদেশের বিভিন্ন এলাকা ঘুরে এই আহ্বান জানাব। দীর্ঘ ১ বছর ৮ দিনে এখন পর্যন্ত ৯৪৫০ কিলোমিটার যাত্রা পাড়ি দিয়েছি।

বাংলাদেশে সাইকেল কমিউনিটির সদস্যরা দ্বিরাজকে সহায়তা করছেন জানিয়ে ৬৪ জেলায় বাইসাইকেল রাইডার ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ভাদুঘর এলাকার হাফেজ আব্দুল্লাহ আল নোমান বলেন, ধিরাজের উদ্দেশ্য খুব ভাল। রাইডাররা তাকে সহায়তা করছেন। বাংলাদেশের বিভিন্ন এলাকার রাইডাররা তাকে সহায়তা করছেন।

ঢাকানিউজ২৪.কম / কেএন

সারাদেশ বিভাগের জনপ্রিয় সংবাদ

banner image